সাতক্ষীরা প্রতিনিধি    |    
প্রকাশ : ১৩ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
সাতক্ষীরা সীমান্ত দিয়ে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পুশ করছে ভারত
২০ দিনে উদ্ধার ৩৯, অপেক্ষায় আর অমনক
এবার চোরাপথে ভারতীয় সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে আসছে মিয়ানমারের রোহিঙ্গারা। গত ২০ দিনে সাতক্ষীরায় এমন তিনটি ঘটনা চিহ্নিত হয়েছে। এ তিনটি পৃথক ঘটনায় ৩৯ রোহিঙ্গা অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী তাদের বাংলাদেশে ঠেলে পাঠিয়েছে। সীমান্তের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, আরও বহু সংখ্যক রোহিঙ্গা সাতক্ষীরা সীমান্ত অতিক্রম করার অপেক্ষায় রয়েছে। তাদেরও সুবিধাজনক সময়ে বাংলাদেশে পুশ ইন করা হবে।
২২ সেপ্টেম্বর সাতক্ষীরার কলারোয়া বাসস্ট্যান্ডে ১৩ রোহিঙ্গাকে ঘোরাফেরা করতে দেখে পুলিশ। তাদের উদ্ধার করে পাঠিয়ে দেয়া হয় কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শিবিরে। এ ঘটনার কয়েকদিন পর ৩ অক্টোবর আরও সাত রোহিঙ্গাকে কলারোয়ার হিজলদি সীমান্তের বাজারে ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়। পরে বিজিবি তাদের উদ্ধার করে। ১১ অক্টোবর ১৯ রোহিঙ্গাকে পাওয়া যায় সাতক্ষীরার পদ্মশাঁকরা সীমান্তে। বিজিবি তাদের উদ্ধার করে। তাদের নিয়ে এ সীমান্তে ৩৯ জন রোহিঙ্গা সদস্য উদ্ধার হল। তিন দফায় রোহিঙ্গা উদ্ধারের ঘটনাস্থল থেকে ভারতীয় সীমান্তের দূরত্ব কয়েক গজের মধ্যে। বিএসএফের ঠেলে পাঠানো এসব রোহিঙ্গাকে মানব পাচারকারীরা বাংলাদেশে ঢুকতে সহায়তা করে।
উদ্ধার হওয়া রোহিঙ্গাদের বরাত দিয়ে বিজিবি জানিয়েছে, এসব রোহিঙ্গা কয়েক বছর ধরে ভারতের বিভিন্ন স্থানে বসবাস করছিল। বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ সরকার রোহিঙ্গাদের আশ্রয়, খাদ্য, বস্ত্র ও চিকিৎসা সুবিধা দিচ্ছে জানতে পেরে ভারতে বসবাসরত রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে আসতে আগ্রহী হয়ে উঠেছে। ভারতীয় সীমান্তরক্ষী রাহিনী এ সুযোগে তাদেরকে বাংলাদেশ ভূখণ্ডে পুশ ইন করে দিচ্ছে।
তবে বাংলাদেশ সীমান্তে পুশ ইন হওয়ার পর তাদের নিয়ে বিব্রতকর অবস্থায় পড়ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বিজিবি বলছে, তারা অনুপ্রবেশকারী। তাদের বিরুদ্ধে মামলা হতে পারে। তবে মানবিক বিষয় বিবেচনা করে তাদের বিরুদ্ধে কোনো মামলার ঝুঁকি নিতে চায় না বিজিবি। অপরদিকে পুলিশ বলছে, বিজিবি তাদের আটক করেছে। সুতরাং বিজিবি মামলা দিলে তারা তা রেকর্ড করবে। এ ক্ষেত্রেও মানবিক দিকটা সামনে আসায় পুলিশ-বিজিবি কিছুই করতে পারছে না। বুধবার সাতক্ষীরার পদ্মশাঁকরায় উদ্ধার হওয়া ১৯ রোহিঙ্গাকে বিজিবি সাতক্ষীরা থানায় নিয়ে আসে। পুলিশ প্রথমে তাদের থানাহাজতে রাখে। কিন্তু বিজিবি কোনো মামলা না করায় পরে তাদের হাজতের বাইরে নিয়ে আসা হয়। সন্ধ্যায় তাদের ফেরত নিয়ে যাওয়া হয় বিজিবির ৩৮ ব্যাটালিয়ন সদর দফতরে। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্তও তাদের কক্সবাজারের শরণার্থী শিবিরে নিয়ে যাওয়া হয়নি।
সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার আলতাফ হোসেন জানান, উদ্ধার হওয়া রোহিঙ্গাদের সম্মানের সঙ্গে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শিবিরে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। এর আগে তাদের পর্যাপ্ত খাদ্য ও চিকিৎসা দেয়া হয়। অপরদিকে বিজিবির ৩৮ ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল আরমান জানান উদ্ধার হওয়া রোহিঙ্গাদের মর্যাদার সঙ্গে কক্সবাজারে পাঠানোর চেষ্টা চলছে।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত