বরগুনা (দক্ষিণ) প্রতিনিধি    |    
প্রকাশ : ২১ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
১০৭ বাল্যবিয়ে বন্ধে পদক্ষেপ
আন্তর্জাতিক চিলড্রেনস পিস প্রাইজের জন্য মনোনীত সাজেদা
গ্রামের বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ ও কিশোর-কিশোরীদের অধিকার আদায়ে ভূমিকা রাখায় শিশুদের নোবেল খ্যাত ইন্টারন্যাশনাল চিলড্রেনস পিস প্রাইজের জন্য মনোনীত হয়েছে বরগুনার কিশোরী সাজেদা আক্তার। যেখানেই বাল্যবিয়ে সেখানেই ছিল সাজেদার প্রতিরোধ। সাজেদা নারীদের উত্ত্যক্তকারী বখাটেদের প্রতিরোধেও ভূমিকা রাখে। তার প্রচেষ্টায় এলাকার ১০৭টি বাল্যবিয়ে বন্ধ হয়েছে।
বরগুনার এক হতদরিদ্র পরিবারের কিশোরী সাজেদা আক্তার। সে একজন কলেজছাত্রী। নিজের পড়াশোনার পাশাপাশি বাল্যবিয়ে রোধে ঝাঁপিয়ে পড়ত। এ কারণে তাকে এ বছর ইন্টারন্যাশনাল চিলড্রেনস পিস প্রাইজের জন্য বাংলাদেশ থেকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। যারা শিশুদের অধিকার রক্ষার জন্য সাহসী ভূমিকা রাখে প্রতিবছর তাদের এ পুরস্কারে ভূষিত করা হয়। ২০১৩ সালে এ পুরস্কার পেয়েছিলেন পাকিস্তানের মালালা ইউসুফজাই।
সাজেদা আক্তার বরগুনার সদর উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নের মাইঠা গ্রামের হতদরিদ্র পরিবারের মেয়ে। সে সরকারি মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী। বাবা সানু মিয়া দরিদ্র ভূমিহীন রিকশাচালক। তিনি বলেন, ‘রিকশা চালাইয়্যা সংসার চালানোই কষ্ট। এত কষ্টের পর লোকজনে যহন মাইয়্যার সাহসী কাজের প্রশংসা করে, তহন মনটা খুশিতে ভইর‌্যা যায়।’
বরগুনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. নুরুজ্জামান যুগান্তরকে বলেন, একটি দরিদ্র পরিবারের কিশোরী যেভাবে দারিদ্র্য, বাল্যবিয়ে, যৌন হয়রানি, ঝরে পড়া শিশুদের বিদ্যালয়ে ফিরিয়ে নেয়া এবং মাদকের বিরুদ্ধে লড়াই করছে- তা আমাদের সমাজে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত।
ইন্টারন্যাশনাল চিলড্রেনস পিস প্রাইজের ওয়েবসাইটে সাজেদা সম্পর্কে বলা হয়েছে, ১৬ বছর বয়সী সাজেদার জন্ম বরগুনার উপকূলীয় এলাকায়। ২০০৭ সালের ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় ‘সিডর’-এ আক্রান্ত হয় তার পরিবার। দরিদ্রতার মধ্যেও সে সামাজিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসংক্রান্ত বিভিন্ন গ্রুপের সঙ্গে কাজে সক্রিয়। সে কিশোরীদের পক্ষ নিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধে ব্যাপক ভূমিকা রাখে। তার প্রচেষ্টায় ১০৭টি বাল্যবিয়ে বন্ধ হয়। ৮৭টি ঝরে পড়া শিশুকে সে স্কুলে ফেরাতে সহায়তা করে।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত