লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি    |    
প্রকাশ : ০৭ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
মুক্তিযোদ্ধাদের সংবাদ সম্মেলন
নড়াইল-২ আসনের এমপির বিরুদ্ধে একাত্তরে গণহত্যার অভিযোগ
নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শেখ হাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে একাত্তরে মুক্তিযোদ্ধাদের গণহত্যার অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও রয়েছে আওয়ামী লীগ কর্মী ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তানকে মারধর, দুর্নীতি, অনিয়ম ও অত্যাচার-নির্যাতনের অভিযোগ। সোমবার লোহাগড়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ তাদের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করে। এ ব্যাপারে সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শেখ হাফিজুর রহমান বলেন, মূলত সামনে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে একশ্রেণীর লোক আমার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ তুলছে। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মুক্তিযোদ্ধা ইউসুফ সরদার। এ সময় জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার এমএম গোলাম কবীর, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ফকির মফিজুল হক ও সহকারী কমান্ডার শেখ নওশের আলী, দিঘলিয়া ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শেখ আবদুস সবুর, মুক্তিযোদ্ধা চান মিয়া, সরদার সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
শেখ হাফিজুর রহমান এমপি ওয়ার্কার্স পার্টি নড়াইল জেলার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য। তিনি গত সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে নড়াইল-২ আসনের এমপি নির্বাচিত হন। এমপি হাফিজুর রহমান ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় নকশালে যুক্ত ছিলেন। একাত্তরে কুমড়ী গ্রাম এলাকায় নকশালদের সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মুখ যুদ্ধে পাঁচ মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন। তারা হলেন- কুমড়ী গ্রামের মোশারেফ শেখ, কোলা গ্রামের ইয়ার আলী, তালবাড়িয়া গ্রামের খোকা, যোগিয়া গ্রামের ইদ্রিস যোতি ও বাটিকাবাড়ি গ্রামের জবা দাই। এ যুদ্ধে নকশালদের নেতৃত্ব দেন শেখ হাফিজুর রহমান এমপি। এছাড়া একাত্তরে তার নেতৃত্বে কুমড়ী গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা শেখ সাহিদুজ্জামান ও আবু তালিবকে গুলি করে হত্যা করা হয়।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত