লালমনিরহাট প্রতিনিধি    |    
প্রকাশ : ১৭ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
কালীগঞ্জে মায়ের গহনা চুরি দেখে ফেলায় প্রাণ গেল শিশুর
পুকুর থেকে লাশ উদ্ধার
লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে মায়ের গহনা চুরি করার ঘটনা দেখে ফেলায় প্রাণ দিতে হল চার বছরের শিশু আলো মনিকে। বুধবার রাতে ওই শিশুকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর লাশ পুকুরে ফেলে দেয়া হয় বলে পুলিশ জানিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার দক্ষিণ দলগ্রামে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার কালীগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা করেছেন নিহতের মা দুলালী বেগম। শিশু আলো মনি ওই এলাকার আলমগীর হোসেনের মেয়ে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, ৪-৫ মাস আগে ওই গ্রামের আলমগীরের স্ত্রীর কিছু স্বর্ণালঙ্কার চুরি করেন প্রতিবেশী আশরাফুলের স্ত্রী লাকী বেগম। এ সময় মায়ের ওই গহনা চুরির দৃশ্য দেখে ফেলে শিশু আলো মনি। ফলে ওই সময় শিশুটিকে সুকৌশলে ডেকে নিয়ে মধু বলে বিষ খাইয়ে হত্যার চেষ্টা করেন অভিযুক্ত নারী। সে যাত্রায় আলো মনি বেঁচে গেলেও চুরির ঘটনাটি জানাজানি হয়ে যায়। এ নিয়ে অভিযুক্ত লাকী বেগম ও তার স্বামীর নামে মামলা করে শিশুটির পরিবার। ওই মামলায় পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়ে কিছুদিন কারাভোগের পর জামিনে বেরিয়ে আসেন লাকী বেগম।
বুধবার রাতে আলো মনিকে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন পরিবারের লোকজন। পরে বাড়ির অদূরে একটি পুকুরে তার লাশ দেখে পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। বৃহস্পতিবার সকালে থানা পুলিশ শিশু আলো মনির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। শিশুটিকে শ্বাসরোধে হত্যার পর লাশ পুকুরে ফেলে দেয়া হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ।
এ ঘটনায় শিশুটির মা দুলালী বেগম বাদী হয়ে অভিযুক্ত লাকী বেগমকে প্রধান আসামি করে থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। তবে ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত লাকী বেগম তার পরিবারসহ গা-ঢাকা দিয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।
কালীগঞ্জ থানার ওসি মকবুল হোসেন যুগান্তরকে বলেন, ‘চুরির ঘটনা দেখে ফেলায় শিশু আলো মনিকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে আমরা মোটামুটি নিশ্চিত হয়েছি। অভিযুক্ত আসামি পলাতক রয়েছে।’



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত