চট্টগ্রাম ব্যুরো    |    
প্রকাশ : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
ঠিকাদার চাঁদা না দেয়ায় চট্টগ্রামে শ্রমিককে গুলি
অস্ত্র ও দুই সহযোগীসহ সন্ত্রাসী হান্নান গ্রেফতার

চট্টগ্রামে ঠিকাদারের কাছে ১০ লাখ টাকা চাঁদা চেয়ে না পেয়ে তার শ্রমিককে গুলি করেছে সন্ত্রাসীরা। রোববার রাতে আকবর শাহ থানার জঙ্গলতিফপুরে এ ঘটনা ঘটে। আহত শ্রমিকের নাম মিজান উদ্দিন (৩২)। তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত জঙ্গললতিফপুর এলাকার ত্রাস হিসেবে পরিচিত সন্ত্রাসী মো. হান্নানকে (৪৫) একটি বন্দুক, একটি কার্তুজ ও কয়েকটি ধারালো অস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ সময় তার আরও দুই সহযোগীকে গ্রেফতার করা হয়। তারা হল- মিলন (২০) ও ওমর ফারুক (২৮)।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ হান্নান ওই এলাকার বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে নিয়োজিত ঠিকাদারদের কাছ চাঁদা আদায় করে। চাঁদা না দিলে কাজ বন্ধ করে দেয়াসহ বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকি-ধামকি দেয়। রোববার রাত ১০টার দিকে ঠিকাদার কামাল উদ্দিন শ্রমিকদের নিয়ে রাস্তা নির্মাণের কাজ করছিলেন। এ সময় হান্নান দলবল নিয়ে কামালের কাছে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। তিনি টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় হান্নান ও তার সহযোগীরা কর্মরত শ্রমিকদের ওপর গুলি চালায়। এতে মিজান উদ্দিন গুলিবিদ্ধ হন। এ ঘটনায় ঠিকাদার কামালের ভাই ও ব্যবসায়িক অংশীদার আকবর হোসেন বাদী হয়ে আকবর শাহ থানায় চাঁদাবাজি মামলা করেছেন।

চমেক হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সোমবার মিজান উদ্দিনের শরীরে অস্ত্রোপচার করে গুলি বের করা হয়। তিনি এখন আশঙ্কামুক্ত। দুপুরে চমেক হাসপাতালের ক্যাজুয়ালটি ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায়, গুলিবিদ্ধ শ্রমিক হাসপাতালের বেডে কাতরাচ্ছেন। তার পেটের বাম পাশের নিচে গুলি লেগেছে। তিনি নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ এলাকার আলী আহমদের পুত্র। মিজানের ছোটভাই আবদুল মজিদ যুগান্তরকে বলেন, মিজানকে দুই ব্যাগ রক্ত দিতে হয়েছে।

প–লিশ জানায়, জঙ্গলসলিমপুর এলাকায় সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে রোববার গভীর রাতে চাঁদাবাজ চক্রের মূলহোতা হান্নানকে গ্রেফতার করা হয়। তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে আরও দুই সহযোগীকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি দেশীয় তৈরি কাঠের বাঁটযুক্ত এলজি, একটি লাল রঙের কাতুর্জ, বিভিন্ন সাইজের সাতটি কিরিচ ও একটি চাইনিজ কুড়াল উদ্ধার করা হয়। তারা জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে- এলাকায় তারা দীর্ঘদিন ধরে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছিল। অস্ত্র ও কিরিচ উদ্ধারের ঘটনায় পুলিশ আকবর শাহ থানায় অস্ত্র আইনে পৃথক মামলা করেছে।

আকবর শাহ থানার ওসি আলমগীর হোসেন যুগান্তরকে বলেন, ‘শ্রমিকের ওপর গুলি করার ঘটনায় জঙ্গলসলিমপুরে অভিযান চালিয়ে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের একজন এলাকার শীর্ষ চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসী হান্নান। অস্ত্র আইনে মামলার পর তাদের আদালতে চালান দেয়া হয়েছে। হান্নানের নেতৃত্বেই ওই হামলার ঘটনা ঘটে।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত