যুগান্তর রিপোর্ট    |    
প্রকাশ : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
রাজধানীর ৯৮ ভাগ ছিনতাইকারী মাদকাসক্ত : ডিবি
এক রাতে গ্রেফতার ৫৬
ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) যুগ্ম কমিশনার আবদুল বাতেন বলেছেন, হঠাৎ করে রাজধানীতে ছিনতাইকারীদের তৎপরতা বেড়ে গেছে। যারা এ ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত তাদের ‘টানা পার্টির সদস্য’ উল্লেখ করে এ গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, এদের ৯৮ ভাগই মাদকাসক্ত। তারা যেসব মোবাইল ফোন ছিনতাই করছে দ্রুত সে সবের আইএমই নম্বর চেঞ্জ করে ফেলছে। তাই ছিনতাই হওয়া মোবাইল ফোন উদ্ধার করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে বেগ পেতে হচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ে কেন ছিনতাই বেড় গেল তাই নিয়ে গবেষণা প্রয়োজন।
বুধবার দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে ডিবির যুগ্ম কমিশনার আবদুল বাতেন এসব কথা বলেন। গোয়েন্দা কর্মকর্তা আবদুল বাতেন বলেন, কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা ও টিভি চ্যানেলে একের পর এক ছিনতাইয়ের খবর প্রকাশ হচ্ছিল। এসব খবরকে পুলিশ ইতিবাচকভাবে দেখে। বিষয়টি নিয়ে ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া ডিবি এবং ক্রাইম ডিভিশনের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকে তিনি বেশকিছু গাইডলাইন দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার রাতে বিশেষ অভিযান চালিয়ে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে ৫৬ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করে ডিবি। তাদের মধ্যে ৬ জনকে ছিনতাইয়ের প্রস্তুতির সময় হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে একটি চাইনিজ কুড়াল, তিনটি চাপাতি ও দুটি চাকু উদ্ধার করা হয়। এ অভিযানের ফলে নগরবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসবে। ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে বৈঠকের পর ডিএমপির ক্রাইম ডিভিশন বিভাগ পৃথক অভিযানে ৩০-৩৫ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করে বলে তিনি জানান।
আবদুল বাতেন বলেন, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ছিনতাইকারীরা বাস টার্মিনাল, রেল স্টেশন ও লঞ্চঘাট এলাকায় যাত্রীদের টার্গেট করে তাদের কাছ থেকে মূল্যবান জিনিস ছিনতাই করে বা টেনে নিয়ে যায়। ছিনতাইয়ের ঘটনায় অনেক সময় মামলা হয় না। ওই সব ঘটনায় থানায় কোনো রেকর্ড থাকে না। দুই ধরনের বিষয়কে মাথায় রেখেই ডিবি বিশেষ অভিযান চালায়। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে আবদুল বাতেন বলেন, রাজধানীর যাত্রাবাড়ী, কারওয়ান বাজার, সোনারগাঁও মোড়, বাংলামোটর ছিনতাইপ্রবণ এলাকা। ওইসব এলাকা থেকেই বেশিরভাগ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বিভিন্ন বাস টার্মিনাল থেকেও উল্লেখযোগ্যসংখ্যক ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এর আগেও তাদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা আছে।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত