বরিশাল ব্যুরো    |    
প্রকাশ : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
২০১৪ সাল আর ২০১৮ এক নয়
খন্দকার মোশাররফ
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির প্রহসনের নির্বাচনের মতো দেশে আর কোনো নির্বাচন করতে দেয়া হবে না। যে কোনো মূল্যে এ ষড়যন্ত্র রুখতে হবে। এজন্য বিএনপি নেতাকর্মীসহ সবাই প্রস্তুত রয়েছেন। তিনি বলেন, ২০১৪ সাল আর ২০১৮ এক নয়। এটি শেখ হাসিনা সরকারের মাথায় রাখা উচিত। বুধবার বরিশালে বিএনপির কর্মী সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
নগরীর অশ্বিনী কুমার হলে দুপুরে আয়োজিত মহানগর বিএনপির কর্মী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন খন্দকার মোশাররফ। এতে সভাপতিত্ব করেন কেন্দ্রীয় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও বরিশাল মহানগর বিএনপির সভাপতি মজিবর রহমান সরোয়ার। বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস জাহান শিরিন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মাহাবুবুল হক নান্নু, বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আহসান হাবিব কামাল, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি এবায়দুল হক চাঁন, সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম শাহীন, উত্তর জেলা বিএনপির সভাপতি অধ্যাপক মেজবাহ উদ্দিন ফরহাদ, মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জিয়াউদ্দিন সিকদার, সহ-সম্পাদক আনোয়ারুল হক তারিন প্রমুখ।
মোশাররফের সামনে বিএনপি নেতাকে লাঞ্ছনা ছাত্রদলের : ড. খন্দকার মোশাররফকে নদীবন্দরে স্বাগত জানাতে যাওয়া বিএনপির পদ-পদবিহীন নেতা সিটি মেয়র আহসান হাবিব কামালকে ‘দালাল’ বলে অপদস্থ করে ছাত্রদল কর্মীরা। এ সময় কামালের অনুসারী দক্ষিণ জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আতাহারুল ইসলাম চৌধুরী বাবুলকে লাঞ্ছিত করা হয়। বিএম কলেজ ছাত্রদলের এক নেতা জানান, ড. মোশাররফকে স্বাগত জানাতে সকাল সাড়ে ৭টায় তারা সুরভী লঞ্চের ভিআইপি জোনে ওঠেন। এরপর সেখানে প্রবেশ করেন আহসান হাবিব কামাল। এ সময় ছাত্রদল কর্মীরা তাকে ‘দালাল, দালাল’ বলে অপদস্থ করার চেষ্টা করে। এ সময় বাবুল এগিয়ে গেলে ছাত্রদল কর্মীরা তাকে লাঞ্ছিত করে। এ ঘটনায় সিনিয়র নেতারা বিব্রত হন।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত