এম. মিজানুর রহমান সোহেল    |    
প্রকাশ : ২৬ নভেম্বর, ২০১৭ ১৯:৪৮:৫৮ প্রিন্ট
প্রিয় মুক্তিপিন: বাংলাদেশের ডিজিটাল ম্যাপে মুক্তিযুদ্ধ
দেশজুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মুক্তিযুদ্ধের লাখো ইতিহাস ও ঘটনাকে এক সুতোয় গাঁথতে মুক্তিযুদ্ধের ওপর সর্ববৃহৎ ডিজিটাল আর্কাইভ তৈরীর উদ্যোগ নিয়েছে প্রিয় লিমিটেড। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে সংরক্ষণ করে রাখার এ উদ্যোগের নাম দেওয়া হয়েছে ‘প্রিয় মুক্তি পিন’। 
 
পুরো ডিসেম্বর মাসজুড়ে দেশের ৬৪ জেলায় সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণে ও প্রিয়.কমের সরাসরি তত্বাবধানে মুক্তিযুদ্ধের ছোটবড় ঘটনাগুলোকে সনাক্ত করে অজানা ও ক্ষয়িষ্ণুপ্রায় ইতিহাসকে দীপ্তিময় করে তোলা হবে। এ সবগুলো ঘটনা ও ইতিহাস লিপিবদ্ধ করা হবে বাংলাদেশের ডিজিটাল মানচিত্রের ওপর। এ ডিজিটাল আর্কাইভ ইতিহাসকে পৌঁছে দেবে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে, যাতে প্রজন্মান্তরে আমাদের অমূল্য মুক্তিযুদ্ধ সংগ্রামের ঘটনা হারিয়ে না যায়। 
 
এ ব্যাপারে প্রিয় লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জাকারিয়া স্বপন বলেন, সর্বস্তরের বাংলাদেশি নাগরিককে এই উদ্যোগে সংযুক্ত করতে ডিসেম্বর মাস থেকে প্রিয় মুক্তি পিন সফটওয়্যারটি সকলের জন্য উন্মুক্ত করে রাখা হবে। উন্মুক্ত করা হবে মোবাইল অ্যাপ। বাংলাদেশেসহ বিশ্বের যেকোন প্রান্ত থেকে আগ্রহী যে কেউ মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে ‘মুক্তি পিন’ ম্যাপের মাধ্যমে প্রকাশ করে ইতিহাসের সর্ববৃহৎ এই ডিজিটাল আর্কাইভের অংশ হতে পারবেন। 
 
পিয়.কমের নিজস্ব বিচারক প্যানেল পিনদাতাদের দেওয়া প্রতিটি পিনের সত্যতা নিশ্চিত করবে। সঠিক পিনগুলোকে ম্যাপেই ভ্যারিফাই করে দেওয়া হবে। ২০১৮ সালের মার্চ মাসে আড়ম্বরপূর্ণ এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সর্বোচ্চ সংখ্যক সঠিক মুক্তি পিনদাতাদের মধ্য থেকে প্রথম ১০০ জনের প্রত্যেককে নগদ ১০ হাজার টাকা করে পুরস্কার ও অন্যান্য সৌজন্য সামগ্রী উপহার দেওয়া হবে। 
 
প্রিয় মুক্তি পিন উদ্যোগকে সফল করতে প্রিয়.কমের পক্ষ থেকে ডিসেম্বর মাসজুড়ে দেশের ৬৪টি জেলায় ১৩০টি স্থানে জাতীয় এবং স্থানীয় পর্যায়ে নানারকম রোড শো, ক্যাম্পিং, ইভেন্ট পূর্ববর্তী এবং ইভেন্ট পরবর্তী কার্যক্রমসহ নানারকম প্রচারণা চালানো হবে। এ বিশাল উদ্যোগে সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে ইভেন্ট চলাকালীন সময়ে ফ্রি ইন্টারনেট সহায়তা দেয়ার পরিকল্পনাও করেছে প্রতিষ্ঠানটি।  
 
কীভাবে পিন করবেন?
• আপনার স্মার্টফোনটিতে প্রিয় অ্যাপটি ডাউনলোড করুন অথবা ব্রাউজার থেকে ওয়েবপেইজটি ভিজিট করুন।
• ওয়েবপেইজ বা অ্যাপটি লোড হওয়ার পর আপনার সামনে উন্মুক্ত হওয়া স্ক্রীনটিতে ‘পিন করুন’ নামক বাটনটি ক্লিক করুন
• একটি উইন্ডো প্রদর্শিত হবে, সেখানে আপনার প্রাথমিক সমস্ত তথ্য (নাম, ফোন নাম্বার এবং ইমেইল) দেয়ার পর, আপনার পিন সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য দিন।
• মুক্তিপিনের টাইটেল, ওই ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট ছবি (এক বা একাধিক ছবি ব্যবহার করা যাবে), ঘটনার বিবরণ, সময়কাল (বাধ্যতামূলক নয়) লিখে সঠিক স্থানটি ম্যাপে সংযুক্ত করে পোষ্ট বাটনে ক্লিক করুন।
• ঘটনা সংশ্লিষ্ট সঠিক জায়গাটি ম্যাপে পিন করার সুবিধার্থে ম্যাপের সাথে সংযুক্ত সার্চ অপশনে জায়গাটির নাম লিখে ‘এন্টার’ ক্লিক করুন। এরপর সঠিক জায়গাটি ম্যাপের মধ্য থেকে খুঁজে বের করে পিন করুন।
• পোষ্ট করার পর আপনার পিনটি প্রাথমিক ভাবে ম্যাপে সংরক্ষিত হবে। কিছু সময় পর যাচাই-বাছাই (ভেরিফিকেশন) প্রক্রিয়া শেষে আপনার পিনটি মুক্তি পিন ম্যাপে স্থায়িভাবে প্রকাশ করা হবে।
• পিন প্রদানের জন্য আপনার দেয়া তথ্যগুলো অবশ্যই বাংলায় হতে হবে। এক্ষেত্রে ইউনিকোড কিংবা অভ্র, অংকুর ইত্যাদি ফন্ট ব্যবহার করা যাবে।
• ঐতিহাসিক জায়গাটির যুদ্ধের সময়কার তৎকালীন ছবি দেয়া বাধ্যতামূলক নয়। বর্তমানে ওই স্থানটি যেমন অবস্থায় আছে সেই ছবিটিও প্রদান করা যাবে।
• মুক্তিযুদ্ধের সাথে সংশ্লিষ্ট নয় এমন কোন অবান্তর ঘটনা পিন করা হলে কিংবা পিনকৃত ঘটনাটির সত্যতা না পাওয়া গেলে সেটি তাৎক্ষনিকভাবে ম্যাপ থেকে মুছে ফেলা হবে বলে প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে।


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত