গাজী মুনছুর আজিজ    |    
প্রকাশ : ০২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
বসন্তবিলাস মনে মনে

গাছের শুকনো ঝরাপাতা বলে দিচ্ছে শীত শেষের দিকে। শীতের শেষ মানেই বসন্তের আগমন। সে ধারাবাহিকতায় আর কয়েক দিন পরই আসছে ফাল্গুন। পহেলা ফাল্গুন ঋতুরাজ বসন্তের শুরু। বসন্ত মানেই গাছে গাছে নতুন ফুল, নতুন সবুজ কচিপাতা, পাখির সুর- সব মিলিয়ে প্রকৃতিময় আনন্দ আর ভালবাসার আবেশ।

পহেলা ফাল্গুন নিয়ে আবহমান বাংলায় রয়েছে নানা সংস্কৃতি। সাহিত্যের নানা শাখায়ও পহেলা ফাল্গুন বা ঋতুরাজ বসন্তকে নিয়ে রয়েছে নানা রচনা। কবির ভাষায় পহেলা ফাল্গুন ‘ফুল ফুটুক আর নাই ফুটুক আজ বসন্ত।’ বাংলার সংস্কৃতির ধারায় পহেলা ফাল্গুনে এখন দেশীয় পোশাকের প্রতিষ্ঠান বা ফ্যাশন ডিজাইনাররাও বিশেষ পোশাকের রঙ ও নকশা করে থাকেন। এসব পোশাকের রঙ এবং নকশায় পহেলা ফাল্গুনের প্রকৃতির উপস্থাপন দেখা যায় নানা মাত্রায়।

রঙ বাংলাদেশের কর্ণধার সৌমিক দাস বলেন, শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতি, পোশাক বা খাবারের মাধ্যমেই যে কোনো জাতির পরিচয় উপস্থাপন হয়। এর মধ্যে পোশাক অন্যতম মাধ্যম। সেজন্যই আমরা ঋতুরাজ বসন্তের রঙের আদলে পোশাক তৈরি করে থাকি। এছাড়া আগে ঋতুর সঙ্গে মানিয়ে পোশাকের ব্যবহার খুব একটা দেখা যেত না। কিন্তু এখন দেশীয় অনেক ফ্যাশন হাউসই ঋতুর সঙ্গে মানিয়ে পোশাক তৈরি করছে। পহেলা ফাল্গুনকে সামনে রেখে অনেক ফ্যাশন হাউসের পোশাক দেখা যায়। এটা আমাদের এক ধরনের সাংস্কৃতিক বিপ্লব এবং এর জন্য দেশীয় ফ্যাশন হাউস এবং ফ্যাশন ডিজাইনাররা বেশি ভূমিকা রেখেছেন।

ফ্যাশন হাউস মেঘের কর্ণধার মিল্টন বলেন, আমাদের সংস্কৃতিকে আমরাই টিকিয়ে রাখব। আর পোশাক সংস্কৃতির অন্যতম বাহক। সেজন্য আমরা সব সময়ই ঋতুভিত্তিক পোশাকের রঙ ও নকশা করে থাকি। পহেলা ফাল্গুনকে ঘিরে এরই মধ্যে দেশীয় ফ্যাশন হাউসগুলো এনেছে নানা রঙ ও নকশার পোশাক। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মিনারা আকতার ধানমণ্ডি থেকে বসুন্ধরা সিটির দেশীদশে এসেছেন ফাল্গুনের পোশাক কিনবেন বলে। তিনি বলেন, পহেলা ফাল্গুন আমাদের সংস্কৃতির অন্যতম উৎসব। আর সেই উৎসবে যদি পোশাকটাও হয় উৎসবকেন্দ্রিক, তাহলে উৎসবের আনন্দের মাত্রাও বেড়ে যায় বহুগুণে। সেজন্যই ফাল্গুনের পোশাক কিনতে এসেছি।

অনেক ফ্যাশন সচেতন ক্রেতাই এখন ভিড় করছেন দেশীয় ফ্যাশন হাউসগুলোতে ফাল্গুনের পোশাক কিনতে। ফ্যাশন হাউসগুলোও তাদের বিক্রয় কেন্দ্রে নানা নকশার ফাল্গুনের পোশাকের পসরা সাজিয়েছে।

ফ্যাশন হাউস রঙ বাংলাদেশ, নগরদোলা, অঞ্জন’স, কে-ক্র্যাফট, বিবিয়ানা, সাদাকালো, প্রবর্তনা, নিপুণ, দেশাল, বাংলার মেলা পহেলা ফাল্গুন উপলক্ষে এনেছে বাহারি সব রঙ ও নকশার পোশাক। এসব পোশাকের রঙে প্রাধান্য পেয়েছে হলুদ ও বসন্তের নানা রঙের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। এছাড়াও ফ্যাশন হাউস নবরূপা, অন্যমেলা, নিত্য উপহার, মেঘ, সমীকরণ, বিসর্গসহ বিভিন্ন ফ্যাশন হাউস পহেলা ফাল্গুন উপলক্ষে পোশাক এনেছে। দেশীয় পণ্যের প্রতিষ্ঠান আড়ং বরাবরের মতো এবারও পহেলা ফাল্গুনে নানা রঙ ও নকশার পোশাক এনেছে।

এসব ফ্যাশন হাউস পহেলা ফাল্গুন উপলক্ষে এনেছে শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া, পাঞ্জাবি ও শিশুদের পোশাক। অনেক ফ্যাশন হাউস একই রঙ ও নকশার পোশাক এনেছে কাপলদের জন্য। আবার অনেক ফ্যাশন হাউস কাপলদের সঙ্গে মিল রেখে শিশুদের জন্যও পহেলা ফাল্গুনের পোশাক এনেছে। অর্থাৎ পরিবারের সবার জন্যই একই রঙ ও নকশার পোশাক কেনা যাবে অনেক ফ্যাশন হাউস থেকে।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত