প্রকাশ : ০৯ আগস্ট, ২০১৬ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
ফ্যাশন কনসেপ্ট প্রদর্শনী
৩১ জুলাই দেশীয় কৃষ্টি-সংস্কৃতি বহন করে এমন সব বিষয় ও রংয়ের প্রয়োগে ৩৫টি কনসেপ্টের উপর তৈরিকৃত পোশাক প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হয়। বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরে এ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, এমপি। এ ছাড়াও অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফ্যাশন এন্ট্রিপ্রিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (এফইএবি)-এর প্রেসিডেন্ট আজহারুল হক আজাদ, সুষেণ চন্দ্র দাস, অতিরিক্ত সচিব, শিল্প মন্ত্রণালয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মো. সফিকুল ইসলাম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, এসএমই ফাউন্ডেশন। এসএমই ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দেশব্যাপী ১২০ জন উদ্যোক্তাকে প্রশিক্ষণ দিয়ে সেখান থেকে বাছাইকৃত ৪০ জন উদ্যোক্তার সম্পূর্ণ দেশীয় কাপড় ও উপকরণে তৈরি করা পোশাক নিয়ে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। দেশের প্রথিতযশা ফ্যাশন ডিজাইনার জনাব চন্দ্র শেখর সাহা ফাউন্ডেশন আয়োজিত তিন পর্বের প্রশিক্ষণে কো-অর্ডিনেটরের দায়িত্ব পালন করেছেন। প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারী উদ্যোক্তাদের নতুন নতুন ধারণা সংবলিত পোশাক ফ্যাশন জগতে যোগ করবে এক নতুন মাত্রা।

প্রকৃতির রূপবদলে এখন চলছে মেঘ-বৃষ্টির খেলা। এই খাঁ খাঁ রোদ্দুর আবার এই তুমুল বৃষ্টি। রিমঝিম বৃষ্টি দেখতে দেখতে বারান্দায় দাঁড়িয়ে গরম কফির কাপে ঠোঁট রাখার ইচ্ছা আপনার হতেই পারে, তাই বলে তো আর সব কাজ ফেলে ঘরে বসে বৃষ্টি দেখলে চলবে না। হাজারটা কাজ এসে দরজায় দাঁড়ালে অলসতা কিংবা বিলাসিতাকে গুডবাই জানিয়ে বাইরে আপনাকে পা রাখতে হবেই। তবে বাইরে বের হওয়ার আগে প্রস্তুতির একটি ব্যাপার থেকে যায়। কোন পোশাকটা পরবেন, কীভাবে সাজবেন তা নিয়ে ভাবনা তো আপনাকেই ভাবতে হবে। যেহেতু এখন বর্ষাকাল তাই সাজের ক্ষেত্রেও থাকা চাই স্নিগ্ধতা। পাশাপাশি বৃষ্টির কারণে সাজ যাতে সহজেই নষ্ট হয়ে না যায়, সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

রূপ বিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভিন বলেন, এই মেকআপ হতে হবে হালকা। মুখে শুধু কমপ্যাক্ট পাউডার, চোখে পানিরোধক কাজল, মাশকারা আর ঠোঁটে লিপস্টিক। তবে মুখ যেন একেবারে ম্লান না দেখায় সে জন্য ঠোঁটের সাজ গাঢ় করতে পারেন। এখন তো গাঢ় ও কালচে রঙের লিপস্টিকেরই চল। গ্লসি বা ফ্রস্টেড লিপস্টিক এ সময়ের জন্য নয়। এখন ব্যবহার করতে হবে ম্যাট লিপস্টিক। দিনের বেলায় হালকা আর রাতে লাল, কফি, মেরুন, বাদামি, বেগুনি, পিচ রঙের লিপস্টিকে জমকালো দেখাবে। তবে ক্রিমি লিপস্টিক যদি দিতেই হয়, সে ক্ষেত্রে আগে ত্বকের টোনের সঙ্গে মিলিয়ে কোনো লিপ লাইনার দিয়ে পুরো ঠোঁট ভরিয়ে নিন। এরপর নিজের পছন্দের লিপস্টিক তুলিতে অল্প করে নিয়ে লাগিয়ে ফেলুন। তাহলে ঠোঁট খুব চকচকেও দেখাবে না আর লিপস্টিকের রংটাও ফুটে উঠবে।

এই আবহাওয়ার সাজ-বিষয়ক আরও কিছু পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। এ সময় গরম বেশি বলে ফাউন্ডেশন এড়িয়ে যেতে হবে। আর মেকআপের সব উপকরণই হবে শুকনো বা ম্যাট। মেকআপ করার আগে মুখে একখণ্ড বরফকুচি ঘষে নিলে লোপকূপগুলো বন্ধ হয়ে যাবে। ফলে মুখ ঘামবে কম। তারপর মুখ শুকিয়ে নিয়ে কমপ্যাক্ট পাউডার ও তার সঙ্গে ভালো মানের কোনো বেবি পাউডার সামান্য একটু মিশিয়ে মুখে ভালোমতো পাফ করে নিতে হবে। রাতের কোনো দাওয়াতে ব্লাশন ব্যবহার করা যেতে পারে। হালকা রঙের ম্যাট ব্লাশন গালে অল্প করে বুলিয়ে নিতে পারেন। চোখে আইশ্যাডো ব্যবহার না করে আই পেনসিল লাগিয়ে সেটাই আঙুল বা ব্রাশ দিয়ে মিশিয়ে নিতে পারেন। সবুজ, নীল, বেগুনি, বাদামি অনেক রঙের আই পেনসিল পাওয়া যায় এখন। হাইলাইট করার জন্য ত্বকের চেয়ে এক ধাপ হালকা টোনের কমপ্যাক্ট পাউডারও কিন্তু কাজে লাগানো যায়। ভ্রু জোড়া খুব বেশি পাতলা হলে বাদামির সঙ্গে একদম অল্প পরিমাণ কালো রঙের আইশ্যাডো মিশিয়ে ব্রাশ দিয়ে এঁকে নিতে পারেন। কিন্তু ভ্রু ঘন হলে এই কাজটি করার কোনো দরকার নেই। গরমে মেকআপ যত কম করা যায় ততই ভালো। তাই সিমার, প্যানকেক, লিপগ্লস এই জিনিসগুলো না হয় এই কয়টা দিন ড্রেসিং টেবিলের ড্রয়ারেই পড়ে থাকুক।

এসময় ত্বক ঠিক রাখতে সানস্ক্রিন লোশন ব্যবহার করা ভালো। এখন বরং ত্বকের ধরনের সঙ্গে মিলিয়ে মুখে বিবি ক্রিম, সিসি ক্রিম বা সানস্ক্রিন পাউডার ব্যবহার করুন। বাইরে যাওয়ার অন্তত ১৫-২০ মিনিট আগে এগুলো মুখে লাগাতে হয়। ভালো কোনো ব্রাশ দিয়ে সুন্দরমতো ব্লেন্ড করতে পারলে অল্প করে তরল ফাউন্ডেশন এ সময়েও ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে এটি যদি হয় অস্বস্তির কারণ, তাহলে এড়িয়ে যান। দিনশেষে আত্মবিশ্বাস আর স্বস্তিটাই তো বড় কথা। তাই সাজে জমকালো ভাব আনতে যে কোনো গাঢ় রঙের লিপস্টিক আর পাপড়িতে ঘন মাশকারার দিকে জোর দিন। এই দুটি জিনিসই মুখটাকে আকর্ষণীয় করে তুলতে যথেষ্ট। চোখের সাজের ক্ষেত্রে ন্যাচারাল দেখায় এমন কোনো আইশ্যাডো বাছাই করতে পারেন।

সাজ শেষে আপনি যখন বাইরে বেরোনোর জন্য প্রস্তুত তখন মুখে হালকা করে স্প্রে করে নিন মেকআপ ফিক্সিং স্প্রে। এটি মেকআপ দীর্ঘসময় ধরে ঠিক রাখতে সাহায্য করে। তবে যত কিছুই করেন না কেন; যদি হুট করে বৃষ্টির কবলে পড়েই যান অথবা খুব ঘামতে থাকেন তাহলে টিস্যু বা কাপড় দিয়ে মুখ মুছতে যাবেন না যেন। এতে মেকআপ উঠে আসবে। বরং হাতব্যাগে সব সময় কমপ্যাক্ট পাউডার আর পাফ রাখুন। যেন প্রয়োজন হলেই পাফ দিয়ে মেকআপটা ঠিকঠাক করে নিতে পারেন।

লক্ষ্য করুন

* বর্ষায় সাধারণ ফেসওয়াশের বদলে একটু স্ক্রাবিং ফেসওয়াশ ব্যবহার করলে ভালো হয়। কেননা এসময় স্যাঁতসেঁতে আবহাওয়ায় ত্বকে ধুলোময়লা বেশি জমে থাকে। মাঝে মাঝে ডিপ ক্লিঞ্জিং করে নেয়া ভালো।

* বর্ষায় ওয়াটারপ্রুফ সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। মনে রাখবেন রোদ থাকুক আর নাই থাকুক সানস্ক্রিন সারা বছর দরকার।

* খুব বেশি কভারেজ দেয়া ফাউন্ডেশন বর্ষায় ব্যবহার না করাই ভালো। ফাউন্ডেশন, আইলাইনার, কাজল যা-ই ব্যবহার করবেন, সবই যেন ওয়াটারপ্রুফ হয়। তারচেয়ে ভালো কোনো বিবি ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন।

* বর্ষার একটা বড় সুবিধা হচ্ছে এসময় যে কোনো রং মানিয়ে যায়। তাই কালারফুল আইশ্যাডো প্যালেটের এক্সপেরিমেন্ট করার সময় এটাই। উজ্জ্বল রঙের ড্রেস আর মেকাপ ব্যবহার করুন বর্ষায়।

* লিপকালার ব্যবহারের সময় বেছে নিন বোল্ড ম্যাট কালার। পোশাকের সঙ্গে কনট্রাস্ট করে রং বেছে নিন। দেখবেন মনমরা দিনেও আপনাকে কেমন উজ্জ্বল দেখাবে।

* পরিপাটি করে চুল বেঁধে নিন। বৃষ্টির মধ্যে চুল খুলে রাখবেন না। বর্ষায় এমনিই চুল পড়ার সমস্যা বেড়ে যায়। বৃষ্টির পানিতে ভিজলে চুলের ক্ষতি হবে। তাই অনেক ধরনের বিনুনি ট্রাই করতে পারেন বর্ষায়।

* লিক্যুইড ওয়াটারপ্রুফ ব্লাশ ব্যবহার করবেন। হাইলাইটার বা কনট্যুরিং খুব প্রয়োজন না পড়লে না করাই ভালো। মুখে যত প্রডাক্ট লাগাবেন, ভিজে গেলে তত সমস্য।

* ফেস মিস্ট স্প্রে মাঝে মাঝে স্প্রে করলে মুখটা ফ্রেশ লাগবে।

* মুখের কোনো অংশের মেকআপ খারাপ হয়ে গেলে খুব কাজে দেবে মেকআপ রিমুভাল ওয়াইপস। তাই ব্যাগে রেখে দিবেন।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত