প্রকাশ : ০৯ আগস্ট, ২০১৬ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
এ সময়ে ডেঙ্গু
বর্ষাকাল কার না ভালো লাগে। এই বৃষ্টির দিনে ঘরের ভেতর আবদ্ধ হয়ে থেকে বৃষ্টির শব্দ শোনা এবং মজার মজার খাবার খাওয়া আমাদের সবারই পছন্দ। কিন্তু এই বর্ষাকাল উপভোগ্য হয়ে ওঠার পাশাপাশি বেশ কিছু প্রাণঘাতী রোগের উপলক্ষও হয়ে ওঠে। এই বর্ষাকালে ডেঙ্গুর প্রকোপ এবং তা প্রতিরোধের উপায় যদি আমাদের জানা থাকে তবে আমরা নিশ্চিন্তে এই সময়টি উপভোগ করতে পারি

বর্ষাকালে মশাবাহিত রোগের সম্ভাবনা অনেক বেশি পরিমাণে বৃদ্ধি পায়। বাড়ির আশপাশে জমে থাকা পানিতেই এই রোগ সৃষ্টিকারী মশাদের জন্ম হয়। মশাবাহিত রোগগুলোর মধ্যে ডেঙ্গু সবচেয়ে মারাত্মক। এই রোগ সাধারণত এডিস মশার কারণে হয়ে থাকে। আক্রান্ত হওয়ার ৪-৬ দিন পর এই রোগের লক্ষণ প্রকাশ পায় এবং সেগুলো হল-

* হঠাৎ উচ্চমাত্রার জ্বর

* প্রচণ্ড মাথা ব্যথা

* চোখের পেছনের দিকে ব্যথা

* মাংসপেশী এবং অস্থিসন্ধিতে তীব্র ব্যথা

* অবসাদ

* বমি বমি ভাব

* ত্বকে র‌্যাশ, যা সাধারণত জ্বরের ২-৫ দিন পর দেখা দেয়

* নাক বা মাড়ি দিয়ে রক্ত পড়া

লক্ষণগুলো বেশিভাগ সময়ে এতটাই মৃদু হয় যে অনেকে এটিকে সাধারণ জ্বর বা ভাইরাল ইনফেকশন মনে করে থাকে।

যাদের বয়স বেশ কম এবং অতীতে কখনও এই সমস্যা দ্বারা আক্রান্ত হয়নি তাদের ক্ষেত্রে লক্ষণগুলো মৃদু হতে পারে কিন্তু যাদের বয়স বেশি তাদের ক্ষেত্রে এই রোগের লক্ষণগুলো তীব্রভাবে দেখা দিতে পারে। ডেঙ্গুর কারণে হেমোরাজিক ফিভার দেখা দিতে পারে এবং এর কারণে উচ্চমাত্রার জ্বর, লসিকা গ্রন্থি রক্তনালী ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া, নাক এবং মাড়ি দিয়ে রক্ত পড়া, লিবার স্ফীত হয়ে যাওয়ার মতো লক্ষণগুলো প্রকাশ পেতে পারে। এটির কারণে মারাত্মক রক্তপাত, শক এবং মৃত্যুও হতে পারে। যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম এবং অতীতে ডেঙ্গু দ্বারা আক্রান্ত হয়েছে এমন ব্যক্তির এই সমস্যা দেখা দেয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি।

চিকিৎসক কিভাবে এই রোগ নির্ণয় করে?

সাধারণত রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে রক্তে ডেঙ্গুর ভাইরাস আছে কিনা তা নির্ণয় করা হয়। আপনি যদি কোনো অপরিচ্ছন্ন বা পানি আবদ্ধ হয়ে আছে এমন জায়গা থেকে ফেড়ার পর অসুস্থ হয়ে পড়েন তবে আপনার উচিত চিকিৎসককে এই বিষয়ে অবগত করা। কারণ এর ফলে আপনার লক্ষণগুলো ডেঙ্গুর সঙ্গে সম্পর্কিত কিনা সে বিষয়ে চিকিৎসকের সিদ্ধান্ত নিতে সুবিধা হবে।

বেশ কিছু নিয়ম মেনে চলার মাধ্যমে ডেঙ্গুর মতো মারাত্মক রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব। কিছু বিষয়ে সচেতনতা আমাদের এই রোগ থেকে দূরে রাখতে পারে-

ডেঙ্গু জ্বর প্রতিরোধ করার জন্য কোনো ধরনের ভ্যাক্সিন নেই। এই রোগ থেকে বাঁচার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে মশার কামড় এড়িয়ে চলা। মশা থেকে রক্ষা পেতে নিুলিখিত বিষয়গুলো মেনে চলুন-

* ঘনবসতি এলাকা থেকে দূরে থাকতে হবে

* মশা থেকে বাঁচতে মশা প্রতিরোধক লোশন বযবহার করতে পারেন।

* বের হওয়ার সময় লম্বা হাতার জামা পরতে হবে

* জানালা দিয়ে যাতে মশা ঘরে ঢুকতে না পারে সে জন্য জানালায় তারজালি লাগিয়ে নিতে পারেন

* বাড়ির আশপাশে পুরনো টায়ার, ভাঙা পাত্র, ক্যান বা ফুলের টবে যদি পানি জমে থাকে তবে তা পরিষ্কার করতে হবে।

* আপনার যদি ডেঙ্গুর লক্ষণ দেখা দেয় তবে দেরি না করে তৎক্ষণাত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে।

তথ্য : RX71.co


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত