প্রকাশ : ০৯ আগস্ট, ২০১৬ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
জেনে নিন
সংসারের খুঁটিনাটি : যত্নআত্তি

* রূপার গহনা অনেক সময় ব্যবহারের ফলে কালো হয়ে যায়। তাই একটি পাত্রে পানি নিয়ে কয়েক টুকরো আলু দিয়ে কিছুক্ষণ চুলায় ফুটিয়ে নিন। এরপর নামিয়ে ঠাণ্ডা করে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নরম কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন।

* যত্নের অভাবে ছুরি, কাঁচিতে অনেক সময় মরচে পড়ে যায়। তাই সময় নিয়ে এই মরচের দাগ তোলার জন্য ভিনেগারে অনেকক্ষণ ভিজিয়ে রেখে এরপর আধাঘণ্টা গরম পানিতে ফুটিয়ে নিন।

* কম্পিউটার এবং কিবোর্ড ব্যবহার করতে করতে ময়লা জমে যায়। ভালো করে হাত ধুয়ে শুকনো কাপড়ে মুছে এরপর কম্পিউটার ব্যবহার করুন। অনেক সময় তাড়াহুড়ার কারণে ময়লা হাতেই কম্পিউটারে কাজ করতে হয়। তুলায় নেইল পলিশ রিমুভার কয়েক ফোঁটা নিয়ে দাগ মুছে নিন। সব দাগ উঠে যাবে।

* বাজার থেকে নতুন বাসনপত্র কিনে আনার পর বাসনে লেগে থাকা স্টিকার তুলে ফেলি। কিন্তু বাসনের গায়ে খানিকটা স্টিকারের আঠা লেগে থাকে। তাই হাত দিয়ে স্টিকার তুলবেন না। মোমবাতি জ্বালিয়ে স্টিকারের ওপর ধরুন। হালকা গরম হলে স্টিকারের এক কোনা থেকে টেনে তুলে ফেলুন।

* সবসময় রান্না করার পর প্রেসার কুকারের ভেতরে হলদেটে দাগ পড়ে। তখন আর প্রেসার কুকারটি দেখতেও ভালো লাগে না। পুরনো মনে হয়। তাই এতে পানি নিয়ে অর্ধেক লেবু, লেবুর রস এবং ভিনেগার দিয়ে কিছুক্ষণ ফুটিয়ে নিন। এতে দাগ কমে যাবে।

* কলার মোচা কাটতে গিয়ে দেখা যায় হাতে দাগ লাগে। আবার রান্নার সময় দেখা যায় হাত হলুদ হয়ে গেছে। তাই রান্নার পর সময় নিয়ে আলু ভালো করে ঘষে নিন। দাগ চলে যাবে।

* প্লাস্টিকের জিনিসে অনেক সময় দাগ পড়ে যায়। তাই তারপিন তেলের সঙ্গে লবণ মিশিয়ে নিন। এবার দাগের জায়গাটি ভালো করে ঘষে নিন।

* কাপড়ে অনেক সময় দাগ লেগে যায় তাড়াহুড়ার কারণে। এই দাগ তুলতে কেরোসিনের সাহায্য নিতে পারেন। যেখানে দাগ লেগেছে সেখানে কেরোসিন দিন। এরপর লেবু ঘষে নিন। এরপর ভালো করে কাপড় ধুয়ে নিয়ে রোদে শুকিয়ে নিন।

* ঘরে সাজানোর জন্য অনেক সময় আমরা পিতলের জিনিস নির্বাচন করে থাকি। কিন্তু অনেক সময় কালচে ভাব বসে গিয়ে চকচকে ভাব কমে যায়। তাই ময়দা, লবণ এবং ভিনেগার দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এবার পিতলের পাত্রটির ওপর ১০ মিনিট মাখিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে নরম কাপড় দিয়ে আস্তে আস্তে ঘষে নিয়ে পেস্টটি তুলে ফেলুন। সোনার মতো চকচকে হয়ে যাবে আপনার প্রিয় পিতলের পাত্রটি।

-মেহজাবিন আহমেদ


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত