হাবীবাহ্ নাসরীন    |    
প্রকাশ : ২৫ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
বর্ষায় নেট-জর্জেট

আপনার সাধের সাজ-পোশাক নষ্ট করে দেয়ার জন্য এক পশলা বৃষ্টিই যথেষ্ট। ধরুন আপনি ছাতা নিয়ে বের হননি। অথবা ছাতা নিলেও বৃষ্টির তীব্রতা এতটাই ছিল, তাতে আপনার মাথাটা বাঁচলেও ভিজে গেছে শরীরের অনেকটাই। এদিকে আপনার ক্লাস অথবা অফিস, কিংবা জরুরি কোনো মিটিং। যেখানেই যান না কেন ভেজা শরীরে তো আর থাকতে পারবেন না।

আবার সঙ্গে করে অতিরিক্ত এক সেট পোশাক বয়ে বেড়ানোও সম্ভব নয়। তাই বর্ষাকালে এমন কাপড়ের পোশাক পরা উচিত নয় যা সহজে শুকাবে না। সুতি কাপড় শুকাতে একটু দেরি হয়। বিশেষ করে মোটা তন্তু বা মোটা বুনটের সুতির কাপড় শুকাতে অনেক বেশি দেরি হয়। এছাড়া পোশাকের বুনটটাই এমন থাকে, এ ধরনের কাপড় বৃষ্টিতে ভিজলে তা শরীরের সঙ্গে সেঁটে গিয়ে এক রকমের অস্বস্তিকর অবস্থার সৃষ্টি করে। এ ধরনের কাপড় শরীরের সঙ্গে পানির সংস্পর্শটাও রাখে বহুগুণ। আর এ কারণে ঠাণ্ডা লাগার ভয়টাও থাকে বেশি। অন্যদিকে সুতি কাপড়ে বৃষ্টির পানি শুকিয়ে গেলে এতে এক ধরনের গন্ধ কিংবা ছোট ছোট দাগ হতে পারে যা আপনার পোশাকের সৌন্দর্য নষ্ট করতে পারে। সুতি পোশাকের মতো বৃষ্টির এ সময়টায় মোটা বুনটের অন্যান্য কাপড় যেমন আদ্দি বা খদ্দরের পোশাক পরা থেকেও বিরত থাকতে হবে। অন্যদিকে বৃষ্টিতে কোনো কারণে আপনার প্রিয় পোশাকটি ভিজে গেলে বাড়ি ফিরে যত দ্রুত সম্ভব তা শুকাতে দেয়ার ব্যবস্থা করতে ভুলবেন না। আর কাদাপানিতে ভিজে গেলে কিংবা দাগ বসে যাওয়ার আশঙ্কা থাকলে তা ধুয়ে দেয়ার ব্যবস্থা করতে হবে তাড়াতাড়ি।

এবার আসা যাক কোন পোশাক বর্ষার দিনে আরামদায়ক। সাধারণত বৃষ্টির সময় বা মেঘলা আবহাওয়ায় এমন পোশাকই নির্বাচন করা উচিত; যা বৃষ্টিতে ভিজলে দ্রুত শুকিয়ে যায়। আবার হুট করে রোদ উঠলেও অস্বস্তি তৈরি করে না। এক্ষেত্রে অধিকাংশ ক্ষেত্রে কৃত্রিম তন্তুজাত কাপড়ই আপনাকে সুরক্ষিত রাখবে। এছাড়া জর্জেট কিংবা নেটের কাপড়ের তৈরি পোশাক পরতে পারেন। এছাড়া রাজশাহী সিল্ক বা হাফসিল্ক, সুতি জর্জেট বা বেক্সি জর্জেটের তৈরি পোশাকগুলোও বর্ষার দিনে আপনাকে অনেকটা স্বাচ্ছন্দ্য দেবে। বৃষ্টির সময়টাতে আবহাওয়া খানিকটা গুমোট থাকে বলে সুতি কিংবা জর্জেট কাপড়কেই বেশি প্রাধান্য দেন অনেকে। রঙটাও একটু গাঢ় পরাই সুবিধাজনক। সহজে ধোয়া যায় বা ভিজলে তাড়াতাড়ি শুকায় তেমন পোশাক নির্বাচন করুন। সালোয়ার-কামিজের ক্ষেত্রে সুতির বদলে জর্জেট বা নেটের কাপড় বেছে নিতে পারেন। শাড়ির ক্ষেত্রেও সুতি এড়িয়ে জর্জেট বেশি উপযোগী। কাপড়ের রঙ নির্বাচনে উজ্জ্বল ও গাঢ় রঙগুলো বাছাই করুন। এক্ষেত্রে সবুজ, পার্পেল, কমলা, লেমন, নীল এসব রঙ বর্ষায় নারীদের খুব ভালো মানায়। এছাড়া বর্ষার রং হিসেবে নীলের খ্যাতি আছে। তাই নীল রঙটিকে পোশাকের রং হিসেবে বেছে নিতে পারেন।

বর্ষায় জর্জেটের পাশাপাশি আরও যে কাপড়টি পরতে পারেন সেটি হল নেট। গত কয়েক বছর ধরেই তরুণীদের পোশাক তৈরির ক্ষেত্রে নেটের কাপড়ের চাহিদা বেশ লক্ষণীয়। নেটের পোশাক পরার জন্য ভালো শারীরিক গঠনের প্রয়োজন। যদি শারীরিক গড়ন সুন্দর হয় তবে নেটের পোশাকে আপনি নিজেকে ফুটিয়ে তুলতে পারবেন। আপনার শারীরিক গঠন একটু ভারির দিকে হলে নেটের কাপড় এড়িয়ে চলাই ভালো। সুতি কাপড়ের সঙ্গে পাতলা নেটের কাপড় ব্যবহার করে দুই স্তরের পোশাক বানাতে পারেন। আপনার সঙ্গে মানানসই এমন ইনার ব্যবহার করা ভালো। পোশাকের আকর্ষণ বাড়ানোর জন্য রঙিন যেমন- বিপরীত রঙ ব্যবহার করতে পারেন। পোশাকের রঙের বিপরীত রঙের স্কার্ফ, কানের দুল বা বেল্ট ব্যবহার করুন।

বর্ষার এসময়ে মুখের সাজ হালকা হলেই ভালো লাগবে। কপালে ছোট টিপ এবং চোখে নীল, সবুজ বা ছাই রঙের কাজলের টান দিতে পারেন। চোখের সাজের ক্ষেত্রে ওয়াটারপ্র“ফ কাজল, মাশকারা, লাইনার ব্যবহার করুন। আইশ্যাডো দিলে হালকা কোনো রং বেছে নিতে পারেন। হালকা ফেস পাউডার লাগাতে পারেন। লিপস্টিকের বেলায় গ্লসি হলেই ভালো। হালকা গোলাপি, বাঙ্গি, হালকা বাদামি ধরনের রং বাছাই করতে পারেন লিপস্টিকের ক্ষেত্রে।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত