প্রকাশ : ২৫ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
হজের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি
জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা সাপেক্ষে হজ অনুষ্ঠিত হয়। তাই হজযাত্রীদের প্রস্তুতি নিতে হবে এখনই। হজের প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি ও নানা বিষয় নিয়ে আজকের আয়োজন। -ঘরেবাইরে প্রতিবেদক

* প্রয়োজনীয় বিষয়

ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবদুল জলিল জানান, হজযাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা, টিকা দেয়া, স্বাস্থ্যসনদ সংগ্রহ করা জরুরি। এসব সংগ্রহের জন্য যে এজেন্সির মাধ্যমে হজে যাবেন তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। ঢাকার আশকোনা হজ কার্যালয় থেকেও জানা যাবে। আপনার ফ্লাইট কবে তা জেনে নিন। সেই সঙ্গে পাসপোর্ট ও বিমানের টিকিট সংগ্রহ করুন। বৈদেশিক মুদ্রা নিতে ভুলবেন না।

* হজ সামগ্রী

বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে অবস্থিত আল-ইসলাম ব্রাদার্সের স্বত্বাধিকারী হাজী মো. মহিবুল্লাহ রাজু বলেন, যাত্রার কিছুদিন আগে হজসামগ্রী সংগ্রহ করা ভালো। প্রয়োজনে একাধিক সামগ্রী রাখতে পারেন। যেন হারিয়ে গেলে বা নষ্ট হলে সহজে পাওয়া যায়। হজসামগ্রীর মধ্যে আছে- পুরুষের এহরামের কাপড় কমপক্ষে দুই সেট (গায়ের জন্য আড়াই হাত বহরের তিন গজ ও শরীরের নিচে পরার জন্য একই বহরের আড়াই গজ)। এহরামের কাপড় সাদা ও সুতি হলে আরামদায়ক। নারীদের এহরামের কাপড় তাদের স্বাভাবিক পোশাকই। এহরাম বাঁধার টাওয়াল সেট, এহরাম বাঁধার বেল্ট, মিনাব্যাগ, পাসপোর্ট ব্যাগ, জুতা রাখার ব্যাগ, পাথর রাখার ব্যাগ, প্লাস্টিক জায়নামাজ, নখকাটার কাটার বক্স, কাঁধের ব্যাগ, মহিলাদের হিজাব, মহিলাদের চুল বাঁধার টুপি, হাত মোজা ও পা মোজা, হাওয়ার বালিশ, বোডিং হোল্ডার, সানক্যাপ, পায়ের তাবেয়া, চামড়ার মোজা, তায়াম্মুমের মাটি, মিসওয়াক, ছাতা, গামছা, লুঙ্গি, গেঞ্জি, পায়জামা, পাঞ্জাবি, টাওয়াল, জুতা, টুপি, তসবি, আতর, বোরকা, সাবান, ব্রাশ-টুথপেস্ট, সুঁই-সুতা, থালা, বাটি, গ্লাস, হজ গাইড ও কোরআন শরিফ।

* ব্যাগ গোছানো

আপনার সব ব্যাগে ইংরেজিতে নাম, ঠিকানা, পাসপোর্ট নম্বর ও বাংলাদেশের কাছের কারও মোবাইল নম্বর লিখে রাখুন। আর বড় ব্যাগে অবশ্যই তালা দেবেন। তবে ব্যাগ যত ছোট ও হালকা করা যায় যাত্রা ততই ভালো হবে। প্রয়োজনে যে মালপত্র নিয়েছেন তার একটি তালিকা করে হাতব্যাগে বা গলার ব্যাগে রাখুন।

* হজ সম্পর্কে জানুন

হজের নিয়ম জেনে নিন। ইসলামিক ফাউন্ডেশন, হজ ক্যাম্প বা যে এজেন্সির মাধ্যমে যাচ্ছেন তারা হজের প্রশিক্ষণের আয়োজন করে। বাজারে হজের গাইড পাওয়া যায়। স্থানীয় মসজিদের ইমাম বা আলেমদের কাছেও জানতে পারেন। ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের হজ ব্যবস্থাপনা পোর্টালে www.hajj.gov.bd নামের এ ওয়েব সাইটে হজের নিয়ম-কানুন পাবেন।

* জরুরি কাগজপত্র ও প্রয়োজনীয় সামগ্রী

দীর্ঘ হজ যাত্রায় আপনার কাগজপত্র গুছিয়ে রাখা জরুরি। সেজন্য পাসপোর্ট আকারের ১০ কপি ছবি, স্ট্যাম্প আকারের ৬ কপি ছবি, পাসপোর্টের ২-৩ পাতার সত্যায়িত ফটোকপি, স্বাস্থ্য পরীক্ষার সনদপত্র, টিকাকার্ড, ব্যাংকে টাকা জমা দেয়ার রসিদ, নারী হজযাত্রীর ক্ষেত্রে শরিয়তসম্মত মাহরামের সঙ্গে সম্পর্কের সনদ ইত্যাদি সঙ্গে রাখুন। সব হজযাত্রীর জন্য বাংলাদেশ থেকে একটি পরিচয়পত্র দেয়া হয়। এতে পিলগ্রিম নম্বর, নাম, ট্রাভেল এজেন্সির নামসহ ইত্যাদি তথ্য থাকে। এটা গলায় বা হাতের কাছে রাখুন। একটি কাগজে নিজের নাম, পাসপোর্ট নম্বর, এজেন্সির নাম ও সৌদি আরবে সংশ্লিষ্ট হজ এজেন্সির প্রতিনিধির মোবাইল নম্বর ইংরেজিতে লিখে রাখুন। এছাড়া সৌদি আরবে থাকাকালে মোয়াল্লেমের পক্ষ থেকে হজযাত্রীকে পরিচয়পত্রের একটি কার্ড বা কব্জিবেল বেল্ট দেয়া হয়। সেই কার্ড ও যে হোটেলে থাকবেন সেই হোটেলের কার্ড অবশ্যই সঙ্গে রাখুন।

* এহরাম বাঁধা

ঢাকা থেকে আপনার গন্তব্য মক্কা না মদিনায় তা জেনে নিন। তবে অধিকাংশ হজযাত্রীর গন্তব্য মক্কা হয়। মক্কা হলে বিমানে ওঠার আগে ইহরাম বাঁধা ভালো। কারণ গন্তব্যে পৌঁছানোর আগেই ‘মিকাত’ বা এহরাম বাঁধার নির্দিষ্ট স্থান। চাইলে বিমানেও বাঁধা যায় কিন্তু বিমানে পোশাক পরিবর্তন করাটা ঝামেলার। বিনা ইহরামে মিকাত পার হলে এজন্য দম বা কাফফারা দিতে হয় এবং এটি গুনাহের। এহরাম গ্রহণ করে এহরামের নিয়ম-কানুন মেনে চলুন (এহরামের নিয়ম জানতে হজ গাইড পড়ুন)। যদি কারও গন্তব্য ঢাকা থেকে মদিনা হয়, তাহলে মদিনা থেকে মক্কায় যাওয়ার সময় এহরাম বাঁধলে চলবে।

* মোবাইল সিম

মক্কা গিয়ে মোবাইলের একটি সিমকার্ড কিনুন। পাসপোর্টের কাগজপত্র দেখিয়ে সিমকার্ড কিনতে পারবেন।

* মানচিত্র সংগ্রহ

অনলাইনে আরাফাত, মিনা বা মক্কার হজের স্থানসমূহের মানচিত্র দেয়া আছে। সেখান থেকে মানচিত্র সংগ্রহ করে প্রিন্ট করে নিতে পারেন। মদিনার মানচিত্রও আছে। মানচিত্র থাকলে চলতে-ফিরতে সহজ হবে।

* হারিয়ে গেলে

হারিয়ে গেলে চিন্তা না করে মোয়াল্লেমের দেয়া হাতের পরিচয়পত্র, হোটেলের কার্ড অনুযায়ী হোটেল বা বাসা খোঁজ করুন। ভালো হয়, যখন সেখানে থাকবেন, নিজের মতো করে জায়গাটা চিনে নিন এবং সেই অনুযায়ী পথ চলুন। আর মানচিত্র দেখে আগেই বুঝে নিন আপনার অবস্থানের স্থানটি।

* জেনে রাখুন

কাবা শরিফের প্রতিটি গেটের আলাদা নাম আছে। তাই নামগুলো মনে রাখলে চলাচলে সহজ হবে। আপনি যার সঙ্গে থাকবেন তাকেও গেটগুলো চিনিয়ে দিন। তাহলে হারিয়ে গেলে খুঁজে পেতে সহজ হবে।

কাবাঘরে তাওয়াফ করুন সবুজ বাতি দেখে। সবুজ বাতি হজরে আসওয়াদ বরাবর। হজরে আসওয়াদ বা সবুজ বাতি থেকে কাবাঘর একবার ঘুরে আবার সবুজ বাতির কাছে এলে এক চক্কর হবে। এভাবে সাত চক্কর দিতে হবে। এছাড়া হজ সংক্রান্ত যে কোনো তথ্য পাবেন ww w.hajj.gov.bd

* প্রয়োজনীয় যোগাযোগ

পরিচালক, হজ ঢাকা অফিস : ৮৯৫৮৪৬২। সচিব, ধর্ম মন্ত্রণালয় : ০৮৮-০২-৯৫১৪৫৩৩। বাংলাদেশ হজ মিশন, মক্কা, ০০-৯৬৬-২-৫৪১৩৯৮০। বাংলাদেশ হজ মিশন, মদিনা : ০০-৯৬৬-০৪-৮৬৬৭২২০। বাংলাদেশ হজ মিশন, জেদ্দা : ০০-৯৬৬-২-৬৮৭৬৯০৮।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত