• শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০
যুগান্তর রিপোর্ট    |    
প্রকাশ : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
ইসির সংলাপে ড. কামাল
নির্বাচনে সরকার ও প্রশাসনকে নিরপেক্ষ থাকতে হবে
গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময়ে সরকার ও প্রশাসনকে নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করতে হবে। ইসিকে আইনের সঠিক প্রয়োগ ও নিরপেক্ষতা নিশ্চিত করতে হবে। বুধবার বিকালে আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে ইলেকশন কমিশনের (ইসি) সঙ্গে সংলাপ শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে বুধবার সকালে ইসির সঙ্গে সংলাপে অংশ নিয়ে গণফ্রন্টের পক্ষ থেকে সংবিধান সংশোধন করে সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী দলগুলোর অংশগ্রহণে নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের প্রস্তাব দেয়া হয়। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে ধারাবাহিক সংলাপের অংশ হিসেবে বুধবার গণফ্রন্ট ও গণফোরামের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে সংলাপে বসে ইসি। আজ বৃহস্পতিবার জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ এবং ন্যাশনাল পিপলস্্ পার্টির (এনপিপি) সঙ্গে সংলাপ অনুষ্ঠিত হবে। ইসির সঙ্গে আড়াই ঘণ্টাব্যাপী সংলাপ শেষে বেরিয়ে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘আমরা কমিশনকে বলেছি- নির্বাচনের সময় আইনের সঠিক প্রয়োগ ও নিরপেক্ষতা যেন নিশ্চিত করা হয়।’ তিনি বলেন, ‘প্রশাসন নিরপেক্ষ দায়িত্ব পালন না করায় ও সরকার আইনকে অন্যভাবে ব্যাখ্যা করায় ’৯৬ সালে সংকট সৃষ্টি হয়েছিল। তখন অ্যামেন্ডমেন্ট করে নিরপেক্ষ সরকার বা তত্ত্বাবধায়ক সরকার করা হয়েছিল। এখন উচ্চ আদালতের রায়ের ফলে দলীয় সরকারই নির্বাচনের সময় থাকবে। এ সমস্যাটা ইসির কাছে তুলে ধরেছি। ইসিকে বলেছি, নির্বাচন সুষ্ঠু করতে হলে প্রশাসন নিরপেক্ষ থাকতে হবে।’ টাকা ও পেশিশক্তির প্রভাব নির্বাচন ব্যবস্থা ধ্বংস করছে জানিয়ে গণফোরাম সভাপতি বলেন, ‘দুই এমপির জন্য পার্লামেন্টারি ডেমোক্রেসি ধ্বংস হয়েছে। দুই এমপি হচ্ছে মাসল পাওয়ার ও মানি পাওয়ার। এ দুই শক্তি আমাদের গণতন্ত্রকে যে আঘাত করেছে তা আমরা হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছি গত ৪৬ বছর। কীভাবে দুই এমপি থেকে জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করতে আইনের সঠিক প্রয়োগ জরুরি। সংলাপে এ বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আমরা মনে করি, আমাদের কথাগুলো নির্বাচন কমিশন গ্রহণ অথবা অ্যাপ্রোসিয়েট করেছে।’
গণফ্রন্ট : গণফ্রন্টের চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেনের নেতৃত্বে ১২ সদস্যের প্রতিনিধি সংলাপে অংশ নেন। তারা নির্বাচনের সময়ে সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী রাজনৈতিক দলগুলোর সমন্বয়ে সরকার গঠন, ভোটগ্রহণে সেনা মোতায়েন, ইভিএম চালু, ধর্মবিরোধী দলের নিবন্ধন বাতিল, সংসদীয় আসন আরও ১৫০টি বাড়ানোসহ বেশ কিছু প্রস্তাব দেন।
দুই ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক শেষে দলটির চেয়ারম্যান জানান, গণফ্রন্টের পক্ষ থেকে একগুচ্ছ সুপারিশ রাখা হয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম হল- বর্তমান সরকারকে সংবিধান সংশোধন করে হলেও (তত্ত্বাবধায়ক নয়, অরাজনৈতিক সরকার নয়) একটি নির্বাচনকালীন সরকার গঠন করতে হবে।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত