চট্টগ্রাম ব্যুরো    |    
প্রকাশ : ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
স্মরণসভায় বক্তারা
মহিউদ্দিন চৌধুরী ছিলেন চট্টগ্রামবাসীর আশার প্রতীক
শোকসভায় বক্তারা বলেছেন, সাবেক মেয়র এবং নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী ছিলেন পেশাজীবী ও শ্রমজীবী মানুষের নেতা। তিনি ছিলেন চট্টগ্রামবাসীর আশা-আকাক্সক্ষার মূর্ত প্রতীক। শুক্রবার বিকালে সোনালি যান্ত্রিক মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির উদ্যোগে নগরীর কোতোয়ালি থানার ফিশারীঘাট এলাকায় এ শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন মহিউদ্দিন চৌধুরীর ছেলে ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।
শোকসভায় বক্তারা বলেন, মহিউদ্দিন চৌধুরী মৃত্যুবরণ করলেও চট্টগ্রাম এবং বাংলাদেশের ইতিহাসে বেঁচে থাকবেন হাজার বছর। কারণ তিনি তৃণমূল থেকে নগর পিতা হয়ে জীবনের পড়ন্তবেলায়ও গণমানুষের অধিকার আদায়ে কাজ করে গেছেন। ফিশারীঘাট এলাকা থেকে মাছ বাজার উচ্ছেদের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধেও তিনি লড়াই করে গেছেন নিঃস্বার্থভাবে।
মৎস্যজীবী নেতা আবদুর সত্তারের সভাপতিত্বে ও মোহাম্মদ মহসীনের সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সোনালি যান্ত্রিক মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির আহ্বায়ক মো. শামসুল আলম, সচিব জানে আলম, মৎস্যজীবী স্বরূপ বিকাশ, বিধান বড়ুয়া, নগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান হোসেন ইমু, সাধারণ সম্পাদক নূরুল আজিম রনি, প্রয়াত মহিউদ্দিন চৌধুরীর ছোট ছেলে সালেহীন চৌধুরী প্রমুখ।
ফিশারীঘাট মাছ বাজার নিয়ে ষড়যন্ত্রের কথা উল্লেখ করে মহিউদ্দিনপুত্র মহিবুল হাসান চৌধুরী সভায় বলেন, সরকারি অনেক জায়গায় ব্যবসা চলছে, সব জায়গা বাদ দিয়ে শুধু একটি দরিদ্র গোষ্ঠীকে উচ্ছেদ করার উদ্দেশ্যে উঠেপড়ে লেগেছে একটি মহল। বাজারের সাধারণ মাছ ব্যবসায়ীদের ওপর জুলুম নির্যাতন বন্ধ করতে হবে। তিনি বলেন, চট্টগ্রামের সব শ্রেণী-পেশার মানুষের অধিকার আদায়ের জন্য আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন আমার বাবা এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। তার আদর্শ বুকে ধারণ করে চট্টলাবাসীর অধিকার আদায়ে আমিও লড়ে যাব।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত