রফিক আহামেদ মিঠু    |    
প্রকাশ : ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়ায় অভিষেক উৎসব

ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার দৈনিক যুগান্তরের পাঠক সংগঠন ‘স্বজন সমাবেশ’ ফুলবাড়ীয়া উপজেলা শাখার নবগঠিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠান ২৪ ডিসেম্বর ফুলবাড়ীয়া ডিগ্রি কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ‘মাদক, ইভটিজিং বাল্যবিবাহ ও জঙ্গিবাদবিরোধী প্রচারণানির্ভর’ দিনব্যাপী আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক ও বিনোদনমূলক ম্যাগাজিন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। প্রথম পর্বে স্বজন সভাপতি অ্যাডভোকেট মফিজ উদ্দিন মণ্ডলের সভাপতিত্বে এবং স্বাগত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন। স্বজন সাধারণ সম্পাদক এমআর মতিনের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি দৈনিক যুগান্তরের ময়মনসিংহ ব্যুরো চিফ আতাউল করিম খোকন। প্রধান আলোচক পূর্বধলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ শিক্ষাবিদ মো. শহিদ খান, ফুলবাড়ীয়া ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. আবুল কালাম, ময়মনসিংহ জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মীর গোলাম মোস্তফা, যমুনা টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার হোসাইন শাহিদ, সাংবাদিক শরিফুজ্জামান টিটু, মো. ওয়ালিউল্লাহ, স্বজন সমাবেশের প্রধান উপদেষ্টা ও যুগান্তর প্রতিনিধি রফিক আহামেদ মিঠু, স্বজন উপদেষ্টা মো. গোলাম মোস্তফা, উপদেষ্টা প্রভাষক এটিএম মহিসিন শামিম, উপদেষ্টা মো. হারুন অর রশিদ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাংবাদিক আতাউল করিম খোকন বলেন, দেশের অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি হচ্ছে যুবকরা। যুব শক্তিকে দেশের প্রকৃত সম্পদ মনে করে তাদের প্রতি বেশি যতœবান ও সুদৃষ্টি রাখতে হবে। প্রধান আলোচক অধ্যক্ষ শহিদ খান বলেন, মাদক, ইভটিজিং ও জঙ্গিবাদের পেছনে হতাশা ও বেকারত্ব অনেকাংশেই দায়ী। লেখাপড়া শেষ করে একজন যুবক যখন কর্মহীনতার যন্ত্রণায় ভোগে তখন সমাজের নানাবিধ সমস্যায় জড়িয়ে যায়। সাংবাদকি হোসাইন শাহিদ বলেন, সম্পদের সীমাবদ্ধতায় মানুষ সাময়িক কষ্টে থাকে, মানসিক যন্ত্রণা লাগবে বিদেশ থেকে মাদক আমদানি করে- প্রযুক্তি আমদানি না করে দেশের সীমাহীন সম্ভাবনাকে অসার করে দেয়। উপদেষ্টা প্রভাষক এটিএম মহিসিন শামিম বলেন, সমাজের ধ্বংসাত্মক বিষয়গুলো দূর করার জন্য সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ভূমিকার পাশাপাশি স্বজন সমাবেশের অবদান অনস্বীকার্য। উপজেলা পুলিশিং কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. হারুন অর রশিদ বলেন, স্বজন সমাবেশের স্বজনরা দীর্ঘদিন ধরে সমাজের কল্যাণে যে কাজ করে যাচ্ছে তার জন্য আমি একজন স্বজন হিসেবে অত্যন্ত গর্বিত। স্বজন সহ-সভাপতি মীর্জা ফজলুল হক বলেন, সমাজ থেকে মাদক, ইভটিজিং ও বাল্যবিবাহের থাবা দূর করতে না পারলে পরিবার ও সমাজের ব্যাপক সর্বনাশ হবে। স্বজনদের ইতিবাচক ভূমিকা মানুষের মূল্যবোধকে জাগ্রত করবে।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে স্বজন প্রভাষক জিল্লুর রহমান, প্রভাষক নাজমুল ইসলাম, প্রভাষক শফিকুল ইসলাম শফিক, উসমান গণি, ডা. রফিকুল ইসলাম মানকি, প্রধান শিক্ষক মোয়াজ্জেম হোসেন ও রফিকুল ইসলামের উপস্থাপনায় ও স্বজন বন্ধুদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও বিনোদনমূলক ম্যাগাজিন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দর্শকদের মাতিয়ে তোলেন। শুরুতে স্বজন সেতু, রীতু, জরিনা, বাবু মনোরঞ্জন ও হাসান পরিবেশন করেন দেশাত্মবোধক নৃত্য- সবুজের বুকে লাল সেতু উড়বেই চিরকাল। নবান্ন উৎসবের নৃত্য ‘নতুন ধানের চিড়া’ পরিবেশন করে স্বজন শিখা, জ্যোতি ও তাবাচ্ছুম। স্বজন মজনুর কণ্ঠে দেশাত্মবোধক গান ‘একাত্তোরের মা জননী’ মুগ্ধ করে দর্শকদের। স্বজন শিল্পীগোষ্ঠী পরিবেশন করে স্বরচিত স্বজন সংগীত। স্বজনদের অংশগ্রহণে বাংলার ঐতিহ্য ও আধুনিক স্টাইল নিয়ে ফ্যাশন শো দেখে দর্শক করতালিতে মুখরিত করে তোলে অনুষ্ঠানস্থল। গ্রামীণ নৃত্য পরিবেশন করে স্বজন সেতু ও হালিমা। ‘দাদার স্বভাব ভালো না’ গানটির সঙ্গে সম্মিলিত নৃত্য পরিবেশন করে স্বজন, বাবু, রকিব, মনোরঞ্জন, হাসান, সুজন, মনির, রাকিব ও নাজমুল। স্বজন শিশু শিল্পী আজয়, অর্পণার ‘ওরে ও দুষ্ট ছেলে’ গানটির সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করেন। সবজান্তা হেকমত আলীর ইন্টারভিউ দর্শকদের আনন্দ দেয়। অতঃপর কয়েকটি বাংলা গানের সঙ্গে গ্রুপ ডান্স করে স্বজনের আধুনিক মৌলিক নৃত্য দলের সদস্যরা। স্বজন রাকিব, সেতু, জরিনা, নাজমুল শাকিল, মোস্তাফিজ হালিমা ও স্মৃতি সমাজের নানাবিধ অসঙ্গতির ওপর অভিনয় করে মুগ্ধ করে তোলেন উপস্থিত দর্শকদের। স্বজন শিল্পী হ্যাপি,মজনু ও আরিফের সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় অনুষ্ঠানস্থল করতালিতে মুখরিত হয়ে উঠে।

সমাজের ইতিবাচক পরিবর্তন ‘আমরা স্বজন’ এ প্রতিপাদ্য হৃদয়ে ধারণ করে স্বজন অভিষেক অনুষ্ঠানের আলোচনা ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনা দিয়ে আমন্ত্রিত অতিথি ও স্থানীয় লোকদের মাঝে ব্যাপক সাড়া জাগায়। অনুষ্ঠানের শেষাংশে নবগঠিত কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট মফিজ উদ্দিন মণ্ডল বলেন, আমরা যারা সমাজের নেতৃত্বে আছি তাদের প্রত্যেকেরই উচিত স্বজন সমাবেশের স্বজনদের মতো সচেতনতামূলক কাজে এগিয়ে আসা। আমার প্রত্যেকেই যদি নিজ নিজ অবস্থান থেকে এ ধরনের ভূমিকা রাখি তবেই দেশ তার আপন মহিমায় জেগে উঠবে। লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার প্রতি সম্মান রেখে সরকারের পাশাপাশি আমাদের সবাইকে সোনার বাংলা বিনির্মাণে কাজ করে যেতে হবে। তাহলেই আমরা সুখী-সমৃদ্ধ একটি জাতি হিসেবে বিশ্বে পরিচিত হব।

চার সাংবাদিককে সম্মাননা ক্রেস্ট : ফুলবাড়ীয়া উপজেলায় বিভিন্ন ক্ষেত্রে সাংবাদিকতায় বিশেষ অবদান রাখায় স্বজনদের আয়োজনে চার সাংবাদিককে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। রোববার ফুলবাড়ীয়া কলেজ মাঠে দৈনিক যুগান্তর স্বজন সমাবেশের অভিষেক অনুষ্ঠানে কৃষি ক্ষেত্রে অবদান রাখায় দৈনিক সমকালের কবীর উদ্দিন সরকার হারুন, জুয়া ও মাদক বন্ধে অবদান রাখায় সাপ্তাহিক ফুলখড়ির সম্পাদক ও যায়যায়দিনের মো. নুরুল ইসলাম খান ও অপরাধবিষয়ক রিপোটিংয়ে দৈনিক ইত্তেফাকের আবুল কালাম ও মানবতাবিষয়ক রিপোর্টিংয়ে বিশেষ অবদান রাখায় দৈনিক মানবকণ্ঠের ফুলবাড়ীয়া সংবাদদাতা মো. আবদুল হালিমকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করেন। যুগান্তরের ময়মনসিংহ ব্যুরো আতাউল করিম খোকন, শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ শহীদ খান, অধ্যক্ষ আবুল কালাম, সমকালের স্টাফ রিপোর্টার মীর গোলাম মোস্তফা, স্বজন সমাবেশের সভাপতি অ্যাডভোকেট মফিজ উদ্দিন মন্ডলসহ অতিথিরা।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত