প্রকাশ : ২১ আগস্ট, ২০১৬ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
স্বর্ণ জিতেই জবাব
রিও অলিম্পিকে মেয়েদের পোল ভল্টে স্বর্ণ জিতেছেন গ্রিসের একাতেরিনি স্তেফানিদি। দিয়েছেন সর্বকালের সেরা নারী পোল ভল্টার হিসেবে বিবেচিত ইয়েলেনা ইসিনবায়েভার সমালোচনার জবাবও। যুক্তরাষ্ট্রের স্যান্ডি মরিসকে হারাতে ৪.৮৫ মিটার উচ্চতা সফলভাবে পার করেন স্তেফানিদি। তার হাত ধরেই ২০০৪ এথেন্স অলিম্পিকের পর ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ড থেকে প্রথম সোনার পদক পেল গ্রিস। মরিসও ৪.৮৫ মিটার লাফিয়েছেন। কিন্তু বেশি ব্যর্থ প্রচেষ্টার জন্য রুপা নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাকে। নিউজিল্যান্ডের ১৯ বছর বয়সী এলাইজা ম্যাকার্টনি ৪.৮০ মিটার পার করে ব্রোঞ্জ জিতেন।
লন্ডন অলিম্পিকে স্বর্ণ ও বেইজিংয়ে রুপা জেতা যুক্তরাষ্ট্রের জেনিফার সুর রিওতে এসে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। অসুস্থতা নিয়ে তিনি একটি সফল প্রচেষ্টায় ৪.৬০ মিটার পার
করতে পারেন। অ্যাথলেটিক্সে রুশ অ্যাথলেটরা নিষিদ্ধ থাকায় রিও অলিম্পিকে আসতে না পারা ইসিনবায়েভার অবসরের ঘোষণার কয়েক ঘণ্টা পরে স্বর্ণ জিতেন স্তেফানিদি। দু’বারের অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন ইসিনবায়েভা দাবি করেন, রিও অলিম্পিকের বিজয়ীর সত্যিকারের স্বর্ণ জেতা হবে না কারণ তিনি প্রতিযোগিতায় নেই। সোনা জেতার পর
ইসিনবায়েভার এ কথার জবাবে স্তেফানিদি বলেন, ‘প্রতিটি অ্যাথলেটই তাকে এখানে চাইবে এবং তাকে হারানোর সুযোগ থাকবে। কিন্তু যা হওয়ার তাই হয়েছে, আমাদের এতে কিছু করার নেই।’ ২৬ বছর বয়সী স্তেফানিদি পরে বলেন ‘যা হল আমি বিশ্বাস করতে পারছি না। এটা অবিশ্বাস্য, দর্শকরা দারুণ। আমার মা-বাবাও এখানে। আমি আমার দেশকে গর্বিত করতে পেরে খুশি।’
চীনের সাফল্য ব্যাডমিন্টনে
নখ-কামড়ানো উত্তেজনার ফাইনালে স্নায়ুচাপ জয় করে এবং প্রতিপক্ষের ভুলের সুযোগ কাজে লাগিয়ে চীনকে এবারের অলিম্পিকে ব্যাডমিন্টন থেকে প্রথম স্বর্ণ এনে দিয়েছে ফু হাইফেং ও ঝাং নান জুটি। শুক্রবার ছেলেদের দ্বৈতের ফাইনালে রোমাঞ্চকর লড়াইয়ের পর ১৬-২১, ২১-১১, ২৩-২১ পয়েন্টে জেতে চীন। শেষ গেমে জয়ের খুব কাছে পৌঁছে গিয়েছিল মালয়েশিয়ার গো ভি শেম ও তান উই কিওং জুটি। কিন্তু দু’জনই নিজ নিজ সার্ভ নেটে লাগান। আর এই সুযোগে হাইফেং-নান জুটি তুলে নেন অসাধারণ এক জয়। চার বছর আগে লন্ডনে ব্যাডমিন্টনের সবকটি ইভেন্টে স্বর্ণ জেতা চীনের খেলোয়াড়দের এবারের পারফরম্যান্স হতাশাজনক। মেয়েদের দ্বৈত, একক ও মিশ্র দ্বৈতের শিরোপা জিততে পারেনি তারা।
এদিকে ব্যাডমিন্টনের নারী এককের ফাইনালে ভারতের পি ভি সিন্ধুকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন স্পেনের কারোলিনা মারিন। স্পেনে ব্যাডমিন্টনের ‘নাদাল’ নামে পরিচিত মারিন ১৯-২১, ২১-১২, ২১-১৫ ব্যবধানে সিন্ধুকে হারান। ব্যাডমিন্টন থেকে এটাই স্পেনের প্রথম পদক। স্বর্ণের স্বপ্ন গুঁড়িয়ে গেলেও রিওর আসরে সিন্ধুর জেতা রুপাই এখন পর্যন্ত ভারতের সর্বোচ্চ প্রাপ্তি। এর আগে মেয়েদের কুস্তি থেকে দেশটিকে ব্রোঞ্জ এনে দেন সাক্ষী মালিক। চার বছর আগে লন্ডন অলিম্পিকে ভারতকে ব্যাডমিন্টনের ব্রোঞ্জ এনে দিয়েছিলেন সাইনা নেহওয়াল। প্রথমবারের মতো অলিম্পিকে খেলতে এসে ২১ বছর বয়সী সিন্ধু নেহওয়ালকে ছাপিয়ে গেলেন।
তাজিকিস্তানের প্রথম স্বর্ণ
হ্যামার থ্রোতে স্বর্ণ জিতেছেন তাজিকিস্তানের দিলশোদ নাজারভ। ১৯৯১ সালে সোভিয়েত ইউনিয়নের ভাঙনের ফলে স্বাধীনতা লাভ করার পর মধ্য এশিয়ার দেশটির এটাই অলিম্পিকে প্রথম স্বর্ণ। রিও অলিম্পিকে তাজিকিস্তানের পতাকা বহন করা নাজারভ ৭৮.৬৮ মিটার দূরে
হাতুড়ি ছুড়েন। বেলারুশের ৪০ বছর বয়সী আইভান তিসিখান পেয়েছেন রুপা। ব্রোঞ্জ পেয়েছেন পোল্যান্ডের ভয়চেখ নোভিচকি।
শেষ সেকেন্ডের কিকে বাজিমাত
আইভরি কোস্টকে অলিম্পিক ইতিহাসে প্রথম স্বর্ণ এনে দিয়েছেন চেইক সাল্লাহ সিসে। শেষ সেকেন্ডের কিকে ব্রিটেনের লুতালো মুহাম্মাদকে হারিয়ে ছেলেদের তায়কোয়ান্দোর ৮০ কেজি ওজনশ্রেণীর স্বর্ণ জিতেছেন ২২ বছর বয়সী এই অ্যাথলেট। খেলার শেষ সেকেন্ডে মুহাম্মাদের মাথায় রিভার্স কিকে ৪ পয়েন্ট পেয়ে ৮-৬ পয়েন্টে জেতেন সিসে। এরপরই খেলার সময় ফুরিয়ে যায়। এই কিকের আগ পর্যন্ত ৬-৪ পয়েন্টে পিছিয়ে ছিলেন তিনি। তায়েকোয়ান্দোতে মাঝে এক পয়েন্টের বিরতি দিয়ে দুই মিনিটের তিনটি রাউন্ড হয়। প্রতিপক্ষের শরীরের সামনের অংশে কিক মারতে
পারলে পাওয়া যায় ১ পয়েন্ট, ঘুরিয়ে মারা কিকের জন্য মেলে ২ পয়েন্ট। মাথায় সাধারণ কিকের জন্য ৩ পয়েন্ট আর স্পিনিং কিকের জন্য ৪ পয়েন্ট পাওয়া যায়। রিও
অলিম্পিকে এ নিয়ে দ্বিতীয় পদক পেল আইভরি কোস্ট। মেয়েদের ৬৭ কেজি ওজনশ্রেণীতে ব্রোঞ্জ জেতেন দেশটির রুথ জাগবি। ওয়েবসাইট



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত