প্রকাশ : ২১ আগস্ট, ২০১৬ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
বোল্টের অলিম্পিক মিশন শেষ

রেকর্ড গড়াই হয় ভাঙার জন্য। তারপরও কিছু কিছু রেকর্ড ভাঙে না কখনোই। অলিম্পিকে উসাইন বোল্টের ঐতিহাসিক ‘ট্রিপল ট্রিপল’ কীর্তির রেকর্ডও হয়তো ভাঙবে না কখনোই। স্প্রিন্টের ইতিহাসে ৯টি অলিম্পিক সোনা জেতার কীর্তি নেই আর কারও। বোল্টের এ রেকর্ডের পুনরাবৃত্তি করা সম্ভব- ভাঙা সম্ভব নয়। বোল্ট নিজেও ‘মিশন সম্পন্ন’ করার ঘোষণা দিয়ে বলেছেন, কেউ কখনও তার রেকর্ড ভাঙতে পারবে না।

মহাকাব্যিক যাত্রাটা শুরু হয়েছিল বেইজিং অলিম্পিকে ১০০ মিটার স্প্রিন্টে বিশ্বরেকর্ড গড়ে। মাঝে লন্ডন জয় করে অলিম্পিক অভিযান শেষ হল রিওতে নবম সোনার পদক জিতে। প্রাপ্তির চূড়ায় উঠে বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা অ্যাথলেট বোল্ট জানালেন তার ‘মিশন সম্পন্ন’।

৯টি ফাইনাল, ৯টি সোনা। ৪দ্ধ১০০ মিটার রিলেতে জিতে হয়ে গেছে ‘ট্রিপল ট্রিপল’। আগেই বলেছিলেন টানা তিন অলিম্পিকে টানা তিন ইভেন্টে সোনা জিতে অমরত্ব চান তিনি। নিজেকে ঘোষণা করেছিলেন ‘সবার সেরা’। অলিম্পিকের শেষ রেসে জিততে না পারলে যে এই দাবি জোরালো হবে না, সেটা জানতেন বোল্ট। তাই দৌড় শেষে বললেন, ‘আমি সবার সেরা। আমি ভারমুক্ত যে এটা হয়েছে। আমি খুশি, নিজেকে নিয়ে গর্বিত। স্বপ্নটা সত্যি হয়েছে।’

৯টি সোনা জিতে বোল্ট স্পর্শ করলেন ফিনল্যান্ডের মাঝারি ও দূরপাল্লার দৌড়বিদ পাভো নুর্মি ও যুক্তরাষ্ট্রের স্প্রিন্টার কার্ল লুইসকে। অলিম্পিক ইতিহাসে অ্যাথলেটিক্সে আর কারও এ কৃতিত্ব নেই। সংবাদ সম্মেলনে এমন কীর্তির অনুভূতি জানাতে বোল্ট ছিলেন বড্ড সাদামাটা, ‘মিশ্র একটা অনুভূতি হচ্ছে। স্বস্তি, বছরের পর বছর ধরে আমি এ চাপটা নিয়েছি। অবশ্যই আমি খেলাটাকে মিস করব, মিস করব অলিম্পিককে। কেননা এটাই সবচেয়ে বড় মঞ্চ।’ রিওর তৃতীয় সোনাটা জেতার পর তিন সতীর্থের সঙ্গে নেচে উদযাপন করেন আজ ৩০তম জন্মদিন পালন করতে যাওয়া বোল্ট। আগামীর পরিকল্পনা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে সংবাদিকদের সঙ্গে একটু-আধটু মজাও করলেন বিশ্বের দ্রুততম মানব। তবে সব কথাতেই ঘুরেফিরে এলো বিদায়ের প্রসঙ্গ, ‘এ সাক্ষাৎকারগুলো মিস করব না। এখানে আসার পর থেকে ৫০০ সাক্ষাৎকার দিয়েছি। কিন্তু আমি অবশ্যই দর্শক, এ প্রতিযোগিতা মিস করব। আমি প্রতিযোগিতা ভালোবাসি। অবশ্যই এই দর্শক, এ উন্মাদনা মিস করব। কিন্তু এটা দারুণ একটা ক্যারিয়ার। যেটা পারি, তার সবটাই আমি করেছি। বিশ্বকে প্রমাণ করেছি, খেলাটায় আমিই সবার সেরা। তাই মিশনটা দারুণভাবে শেষ হল।’

১০০ মিটার স্প্রিন্টে ৯.৫৮ সেকেন্ড, ২০০ মিটারে ১৯.১৯ সেকেন্ডের বিশ্বরেকর্ড বোল্টের। শুধু দেশের বাইরের প্রতিযোগী নয়, লড়তে হয়েছে জ্যামাইকা দলের সতীর্থ আসাফা পাওয়েল, ইয়োহান ব্লেকেরও সঙ্গে। অলিম্পিকে শেষ দৌড়ে বোল্টের আরেক সঙ্গী নিকেল অ্যাশমিড। বোল্ট জানালেন সতীর্থদের সঙ্গে লড়াইটাও উপভোগ করেছেন তিনি। ‘দলের সঙ্গে লড়তে ভালোবাসি আমি। জ্যামাইকার সেরা চারজনের সঙ্গে লড়াই করাটা সব সময় আনন্দের। আমি সব সময় আমার দেশের প্রয়োজনটা মেটাতে চেয়েছি এবং দেশের জন্য যতটা পারি, ততটা ভালো দূত হওয়ার চেষ্টা সব সময় করেছি। এমনকি অবসর নেয়ার পরও আমি দেশকে ওপরে তোলার কাজটা চালিয়ে যাব।’ রিওতে আসা যুক্তরাষ্ট্রের জাস্টিন গ্যাটলিন, জ্যামাইকার আসাফা পাওয়েলের ডোপ পরীক্ষায় ব্যর্থ হওয়ার ইতিহাস আছে। রিওর আসরের আগে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় ডোপিংয়ের দায়ে রাশিয়ার অ্যাথলেটদের নিষিদ্ধ করা হয়েছে। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে কখনও ডোপ পরীক্ষায় ব্যর্থ হননি বোল্ট। ঠিক পথে থাকার তৃপ্তি নিয়েই অলিম্পিক থেকে বিদায় নিচ্ছেন তিনি। ‘আমি মনে করি, আমরা কঠিন পথের ভেতর দিয়ে গিয়েছিলাম, কিন্তু তরুণ যারা আমাদের দলে আছে, তাদের নিয়ে আমরা সঠিক পথে থেকেছি।’

অলিম্পিকে আর আসা হবে না; বিদায়রাগিণী বাজছে। তাই এত প্রাপ্তির পরও মিশ্র অনুভূতি বোল্টের। কিংবদন্তি এই অ্যাথলেট আগামীর পরিকল্পনা নিয়ে বললেন, ‘ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ডে আমি যা করতে চেয়েছিলাম, তার সবই করেছি। আমাকে শুধু নতুন লক্ষ্য ঠিক করতে হবে এবং নতুন চাওয়া পূরণের তালিকা তৈরি করতে হবে। তবে সবার আগে আমি ছুটিতে যেতে ও বিশ্রাম নিতে চাই।’ ওয়েবসাইট।

একনজরে বোল্ট

বিশ্ব রেকর্ড

১০০ মিটার : ৯.৫৮ সেকেন্ড

(বার্লিন, ২০০৯)

২০০ মিটার : ১৯.১৯ সেকেন্ড

(বার্লিন, ২০০৯)

১০০ মিটার রিলে : ৩৬.৮৪

সেকেন্ড (লন্ডন, ২০১২)

যত অর্জন

২০০৮ অলিম্পিক : ১০০ মিটার, ২০০ মিটার ও ১০০ মিটার রিলেতে স্বর্ণ

২০০৯ বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ : ১০০ মিটার, ২০০ মিটার ও ১০০ মিটার রিলেতে স্বর্ণ

২০১১ বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ : ২০০ মিটার ও ১০০ মিটার রিলেতে স্বর্ণ

২০১২ অলিম্পিক : ১০০ মিটার, ২০০ মিটার ও ১০০ মিটার রিলেতে স্বর্ণ

২০১৩ বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ : ১০০ মিটার, ২০০ মিটার ও ১০০ মিটার রিলেতে স্বর্ণ

২০১৫ বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ : ১০০ মিটার, ২০০ মিটার ও ১০০ মিটার রিলেতে স্বর্ণ

২০১৬ অলিম্পিক : ১০০ মিটার, ২০০ মিটার ও ১০০ মিটার রিলেতে স্বর্ণ


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত