প্রকাশ : ১৪ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ও ওয়ানডে লীগ অনুমোদন

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে লীগভিত্তিক করার ভাবনা নতুন নয়। অতীতে এ নিয়ে অনেক আলোচনা হলেও সদস্য দেশগুলো একমত না হওয়ায় পরিকল্পনাটা বাস্তবে রূপ দিতে পারেনি আইসিসি। সব বাধা পেরিয়ে এবার সম্ভবত আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে বহুল আলোচিত টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ও ওয়ানডে লীগ। দুই সংস্করণের জন্য দুটি ভিন্ন ভিন্ন লীগ পদ্ধতির টুর্নামেন্ট চালুর প্রস্তাব আইসিসির সভায় আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদন পেয়েছে। নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ডে শুক্রবার আইসিসির পরিচালনা পর্ষদের সভার শেষ দিনে নয় দলের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ও ১৩ দলের ওয়ানডে লীগ চালুর ব্যাপারে নীতিগত সম্মতি জানিয়েছে সদস্য বোর্ডগুলো। তবে অনুমোদন পেলেও লীগভিত্তিক টুর্নামেন্ট দুটির পয়েন্ট পদ্ধতি এবং সূচির ধরন এখনও চূড়ান্ত হয়নি। এখনও মেলেনি অনেক প্রশ্নের উত্তর। প্রাথমিকভাবে ঠিক হয়েছে ২০১৯ বিশ্বকাপের পর শুরু হবে প্রথম টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ। অংশ নেবে শীর্ষ নয়টি টেস্টখেলুড়ে দল। লীগ পদ্ধতিতে খেলা এগোনোর পর ২০২১ সালের এপ্রিলের মধ্যে যে দুটি দল পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকবে, তারা চ্যাম্পিয়নশিপ ট্রুফির জন্য লর্ডসে ফাইনাল খেলবে। দুই বছরে প্রতিটি দল ছয়টি টেস্ট সিরিজ খেলবে। যার তিনটি দেশের মাটিতে, তিনটি বাইরে। প্রতিটি সিরিজ হবে অন্তত দুই টেস্টের। সর্বোচ্চ পাঁচটি টেস্ট থাকতে পারবে এক সিরিজে। ১২টি টেস্টখেলুড়ে দলের মধ্যে নিচের তিন দল চ্যাম্পিয়নশিপের বাইরে কীভাবে টেস্ট খেলবে সেটা এখনও পরিষ্কার নয়। বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, প্রথম টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নেবে বাংলাদেশ, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, ভারত, নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলংকা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

১৩ দলের প্রথম ওয়ানডে লীগ শুরু হবে ২০২০-২১ মৌসুমে। দুই বছরব্যাপী টুর্নামেন্ট চলবে ২০২৩ বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত। ওয়ানডে লীগ তখন বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব হিসেবেও বিবেচিত হবে। ২০২৩ বিশ্বকাপের পর ওয়ানডে

লীগ হয়ে যাবে তিন বছর মেয়াদি। প্রথম ওয়ানডে লীগে টেস্টখেলুড়ে ১২টি দলের সঙ্গে অংশ নেবে চলতি আইসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লীগ চ্যাম্পিয়নশিপের বিজয়ী দল। নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে প্রতিটি দল আটটি করে সিরিজ খেলবে। প্রতিটি সিরিজ হবে তিন ম্যাচের।

অকল্যান্ডের সভায় চারদিনের টেস্ট নিয়েও আলোচনা হয়েছে। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচগুলো পাঁচদিনেরই হবে। তবে ২০১৯ সাল পর্যন্ত পরীক্ষামূলক চারদিনের টেস্টের অনুমোদন দিয়েছে আইসিসি। মূলত দক্ষিণ আফ্রিকার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতেই এ সিদ্ধান্ত। এ বছরই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চারদিনের টেস্ট খেলতে চায় দক্ষিণ আফ্রিকা। দ্রুতই ঠিক করা হবে চারদিনের টেস্টের নিয়মকানুন। এএফপি/ক্রিকইনফো।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত