প্রকাশ : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
নেইমার যখন কেঁদেছিলেন
২০১৪ বিশ্বকাপ ব্রাজিলের জন্য দুঃস্বপ্ন হয়ে থাকবে। নেইমার হঠাৎ ইনজুরিতে পড়লেন, ঘরের মাঠে সেমিতে জার্মানির কাছে ৭-১ গোলে বিধ্বস্ত হল পাঁচবারের চ্যাম্পিয়নরা। প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়ের আঘাতে পিঠের হাড় যেভাবে ভেঙে গিয়েছিল, নেইমার ভেবেছিলেন তার ক্যারিয়ারটাই বুঝি শেষ হয়ে যাবে। এত কষ্টে ভেঙে পড়ে সেসময় অঝোরে কেঁদেছিলেন ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার। সেবার ঘরের মাঠে দারুণভাবে এগিয়ে যাচ্ছিল ব্রাজিল। কোয়ার্টার ফাইনাল ছিল কলম্বিয়ার সঙ্গে। ওই ম্যাচে প্রতিপক্ষ দলের জুনিগা ইচ্ছে করেই হাঁটু দিয়ে আঘাত করেন নেইমারের পিঠে। চোট এতটাই গুরুতর ছিল যে, বিশ্বকাপটাই শেষ হয়ে যায় নেইমারের।
সেই দুঃসহ দিনগুলোর কথা ভাবলে এখনও শিউরে ওঠেন নেইমার। পিএসজি তারকা সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘ওই ইনজুরিটা আমার জীবনের সবচেয়ে বাজে মুহূর্ত ছিল। তখন আমি কেঁদেছিলাম। আমার মা-বাবাও কেঁদেছে। সবার মন ভীষণ খারাপ ছিল। আমার বন্ধু এবং পরিবারের সবার।’ চোট এমন পর্যায়ের ছিল যে, একসময় নিজের ক্যারিয়ারটাকে শেষ বলেই ধরে নিয়েছিলেন নেইমার। তিনি বলেন, ‘চিকিৎসার সময়টায় আমি পা তুলতে পারছিলাম না। নড়াতেও পারছিলাম না। কিছু অনুভব করতে পারছিলাম না, মনে হচ্ছিল আমার পা নেই। ডাক্তাররা আমাকে স্টেডিয়ামের হাসপাতালে নিয়ে যান। তারা বলছিলেন, সুখবর হল আপনি হাঁটতে পারছেন। তবে আপনার ফুটবল ক্যারিয়ারটা বোধহয় শেষ।’
এরপরের সময়টায় ঘরে বসে টিভিতে জার্মানির বিপক্ষে দলের অসহায় আত্মসমর্পণ দেখেছেন নেইমার। ওই ম্যাচটি নিয়ে ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টারের আক্ষেপ, ‘আমি যদি ম্যাচটা খেলতে পারতাম এবং ৭-১ গোলে হারের পর চোটে পড়তাম!’ ওয়েবসাইট।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত