প্রকাশ : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
এখনই বলো না বিদায়
কুক-ব্রডের দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন

অ্যাশেজ হাতছাড়া হওয়ার পর কুক, ব্রড, অ্যান্ডারসনদের দল থেকে ছেঁটে ফেলার জোর দাবি তুলেছিল ব্রিটিশ মিডিয়া। অধিনায়ক জো রুট তখন তিন সিনিয়রের

পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। আস্থা রেখেছিলেন তাদের ওপর। রুট যে ‘শিকড়’ চিনতে ভুল করেননি, তা প্রমাণ হয়ে গেল মেলবোর্ন টেস্টে। দুঃসময়কে কী দারুণভাবেই না পাল্টা জবাব দিলেন অ্যালিস্টার কুক ও স্টুয়ার্ট ব্রড। এ দু’জনের সৌজন্যেই মূলত অস্ট্রেলিয়ার একাধিপত্যে ছেদ টেনে চলতি অ্যাশেজে ইংল্যান্ড নিজেদের সেরা দিনটি কাটিয়েছে বুধবার। সিরিজের চতুর্থ টেস্টের দ্বিতীয়দিন ব্রডের দারুণ বোলিংয়ে পথ হারিয়ে ৩২৭ রানে গুটিয়ে যায় অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংস। ব্রড ও অ্যান্ডারসনের তোপের মুখে মাত্র ৬৭ রানে শেষ সাত উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। পরে সাবেক ও বর্তমান অধিনায়কের শতরানের জুটি ইংল্যান্ডকে বসিয়ে দিয়েছে চালকের আসনে। কুকের ৩২তম টেস্ট শতকে মেলবোর্ন টেস্টের দ্বিতীয়দিন শেষে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ দুই উইকেটে ১৯২ রান। টেস্টে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকদের তালিকায় মাহেলা জয়াবর্ধনেকে ছাড়িয়ে আট নম্বরে উঠে আসা কুক ১০৪ রানে অপরাজিত। তৃতীয় উইকেটে তার সঙ্গে ১১২ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়া রুট খেলছেন ৪৯ রানে।

আট উইকেট হাতে রেখে প্রথম ইনিংসে এখনও ১৩৫ রানে পিছিয়ে থাকলেও জয়ের স্বপ্ন দেখার মতো শক্ত ভিত পেয়ে গেছে ইংল্যান্ড। দলের প্রত্যাঘাতে নেতৃত্ব দিয়ে কুক ও ব্রড প্রমাণ করে দিলেন, এখনও ফুরিয়ে যাননি তারা। সিরিজের প্রথম তিন টেস্টে মাত্র ৮৩ রান করা কুক টানা ১০ ইনিংসে ফিফটির দেখা পাননি। দীর্ঘ খরা কাটিয়ে কাল তুলে নিলেন সেঞ্চুরি। ৫১ রানে চার উইকেট নিয়ে ব্রডও দুঃসময়ের ঘেরাটোপ থেকে বেরিয়ে এলেন। গত এক বছরে ইংলিশ পেসারের সেরা বোলিং পারফরম্যান্স এটি।

মার্ক স্টোনম্যান ও জেমস ভিন্সকে ৮০ রানের মধ্যে ফিরিয়ে দিয়ে ইংল্যান্ডকে চাপে ফেলেছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু কুক ও রুটের যুগলবন্দিতে উড়ে গেছে সেই চাপ। দিনের শেষ ওভারে স্মিথকে চার হাঁকিয়ে ১৬৪ বলে তিন অঙ্কের ম্যাজিক ফিগার স্পর্শ করেন কুক। ফিফটির পথে থাকা রুটও জমে গেছেন উইকেটে।

এর আগে তিন উইকেটে ২৪৪ রান নিয়ে দ্বিতীয়দিনের খেলা শুরু করেছিল অস্ট্রেলিয়া। আগুনে বোলিংয়ে দ্রুতই স্বাগতিকদের ধসিয়ে দেন ব্রড। ৬১ রানে তিন উইকেট নেয়া অ্যান্ডারসনও রাখেন বড় ভূমিকা। তবে সবচেয়ে বড় আঘাতটা হানেন অভিষিক্ত টম কারেন। আগের দিন ‘নো’ বলের জন্য ডেভিড ওয়ার্নারের উইকেট না পাওয়া এই তরুণ পেসার পান স্টিভ স্মিথের অমূল্য উইকেট। ২০১৪ সালের পর এই প্রথম বক্সিং ডে টেস্টে আউট হলেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক! থামলেন সেঞ্চুরির আগে। ব্যক্তিগত ৭৬ রানে স্মিথের বিদায়েই অস্ট্রেলিয়ার ধসের শুরু। অধিনায়কের সঙ্গে ১০০ রানের জুটি গড়া শন মার্শকে (৬১) বিদায় করেন ব্রড। অস্ট্রেলিয়ার শেষ ছয় ব্যাটসম্যানের মধ্যে দুই অঙ্ক ছুঁতে পেরেছেন শুধু টিম পেইন (২৪)। এএফপি/ক্রিকইনফো।

স্কোর কার্ড

অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংস ৩২৭ (ব্যানক্রফট ২৬, ওয়ার্নার ১০৩, স্মিথ ৭৬, শন মার্শ ৬১, পেইন ২৪। অ্যান্ডারসন ৩/৬১, ব্রড ৪/৫১, ওকস ২/৭২)।

ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংস

রান বল ৪ ৬

কুক ব্যাটিং ১০৪ ১৬৬ ১৫ ০

স্টোনম্যান ক ও ব লায়ন ১৫ ৩৭ ১ ০

ভিন্স এলবিডব্ল– ব হ্যাজলউড ১৭ ৩৭ ৩ ০

রুট ব্যাটিং ৪৯ ১০৫ ৬ ০

অতিরিক্ত ৭

মোট (২ উইকেটে, ৫৭ ওভারে) ১৯২

উইকেট পতন : ১/৩৫, ২/৮০।

বোলিং : হ্যাজলউড ১২-২-৩৯-১, বার্ড ১২-২-৩৮-০, লায়ন ১৭-২-৪৪-১, কামিন্স ১১-০-৩৯-০, মিচেল মার্শ ৪-০-১৭-০, স্মিথ ১-০-১১-০।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত