প্রকাশ : ০৬ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
নবাবি দাপটে কুপোকাত
ঈদের ছবি নিয়ে ঈদের আগে ঢাকাই চলচ্চিত্রাঙ্গন ছিল উত্তাল। আন্দোলন, পক্ষে-বিপক্ষে সংবাদ সম্মেলন, উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ের মধ্যে ঈদের আগেই ঈদের ছবি নিয়ে দর্শকরা আলাদা বিনোদন উপভোগ করেছেন। যদিও আন্দোলন ছিল যৌথ প্রযোজনার নামে যৌথ প্রতারণার বিরুদ্ধে। সেই অভিযোগে ঈদের দুটি ছবি মুক্তির বিরুদ্ধে অবস্থান ছিল আন্দোলনকারীদের। কিন্তু সব অভিযোগকে পাশ কাটিয়ে অবশেষে মুক্তি পেয়েছে ছবিগুলো। এবং মুক্তির পর দাপুটে বিচরণ নিয়ে এখনও চলছে প্রেক্ষাগৃহে। ঈদের ছবির হালহকিকত নিয়ে বিস্তারিত লিখেছেন এফ আই দীপু

এবারের ঈদুল ফিতরের আগে প্রায় হাফডজন ছবি মুক্তির আওয়াজ দিলেও শেষ অব্দি মুক্তি পেয়েছে তিনটি ছবি। বাকিগুলো কেবল আওয়াজ দিয়েই শেষ। মুক্তির মিছিলে দাঁড়াতে পারেনি। প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাওয়া ছবিগুলোর মধ্যে রয়েছে শাকিব খান-শুভশ্রী অভিনীত জয়দেব মুখার্জির ‘নবাব’, শাকিব খান-অপু বিশ্বাস অভিনীত বুলবুল বিশ্বাসের ‘রাজনীতি’ এবং কলকাতার জিৎ ও বাংলাদেশের নুসরাত ফারিয়া অভিনীত বাবা যাদবের ‘বস-২’। আগে থেকে ধারণা করা হচ্ছিল এবারের ঈদে শাকিব খান আর জিতের মধ্যে জম্পেশ লড়াই হবে। এ লড়াইয়ে অনেকেই কলকাতার জিৎকেও এগিয়ে রেখেছেন। কারণ শাকিব খানের বিপরীতে একদল লোক অপপ্রচার আর সমালোচনায় লেগেই ছিল। এ ছাড়া অপু বিশ্বাস ও সন্তান ইস্যুর পাশাপাশি পরিচালক সমিতির নিষেধাজ্ঞা ইত্যাদি বিষয়গুলো নিয়ে শাকিব খানকে বেশ কঠিন মারপ্যাঁচের মধ্যেই রাখা হয়েছিল। কিন্তু না, ছবি মুক্তি পাওয়ার পর ঘটনা দেখা গেল উল্টো। দর্শকদের ঢল নামে শাকিব খানের দুটি ছবি দেখার জন্য। তাই এবারের ঈদও শাকিবময় হতে দেখা গেছে। ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবিগুলোর মধ্যে ‘নবাব’ ও ‘বস-টু’ বাংলাদেশ ও ভারতের যৌথ প্রযোজনার হলেও ‘রাজনীতি’ একমাত্র দেশীয় ছবি। এ প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়া পর্যন্ত ছবিগুলো মুক্তির প্রায় দশ দিন পার করে ফেলেছে। এ সময় তিনটি ছবির মধ্যে ব্যবসায়িকভাবে শীর্ষে রয়েছে শাকিব খান অভিনীত ‘নবাব’। দেশের ১২৭টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় ছবিটি। এটি হচ্ছে ছবিটি শাকিব খান ও কলকাতার শুভশ্রী জুটির প্রথম ছবি। এ ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের অমিত হাসান, শিবা শানু, মেঘলা, কলকাতার খরাজ মুখার্জি, রজতাভ দত্ত, সব্যসাচী চক্রবর্তী প্রমুখ। ছবিটির ট্রেলার প্রকাশের পরই আন্দাজ করা গেছে দর্শকরা কতটা লুফে নেবেন এটি। তা ছাড়া ঈদের আগে চলচ্চিত্র ঐক্যজোটের আন্দোলনসহ নানা অনিশ্চয়তার মধ্যেও মুক্তি পেয়েই ছবিটি বাজিমাত করেছে। ছবিটির দেশীয় প্রযোজনা সংস্থা জাজ মাল্টিমিডিয়া জানিয়েছে, প্রায় সব হলেই নবাবের শো হাউসফুল গিয়েছে। টিকিটের জন্য হল ভাংচুরের ঘটনাও ঘটেছে। মূলকথা, ছবিটি দর্শকদের ঈদের উন্মাদনায় ভাসিয়েছে। কিন্তু নকলের অভিযোগ থেকে বের হতে পারেনি ছবিটির গল্প। অভিযোগ উঠেছে বলিউডের আমির খানের ‘বাজি’, ‘সারফারোশ’ ও শাহরুখ খানের ‘বাদশা’ ছবির গল্প ভেঙে ‘নবাব’-এর প্লট তৈরি করা হয়েছে। এ ছাড়া ছবিটিতে বাংলাদেশের আর্টিস্ট ছাড়া গল্পে কোথাও বাংলাদেশের আবহ খুঁজে পাওয়া যায়নি বলেও অভিযোগ করেছেন কেউ কেউ। এতসব অভিযোগের মধ্যেও দর্শকদের নজর ছিল শাকিব খানের দিকে। ছবির নায়ক শাকিব খান- শুধু এ ভরসায় দর্শকরা ছবিটি দেখতে হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন। গেল কয়েক বছরের ঈদের ছবির রেকর্ডে ‘নবাব’ই সবচেয়ে ব্যবসাসফল বলে জানিয়েছে প্রযোজনা সংস্থা জাজ।

অন্যদিকে ‘বস-২’ ছবিটিও ব্যবসা করেছে বলে দাবি করেছে বাংলাদেশ অংশের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া। তবে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নবাবের ধারের কাছেও হয়নি এর ব্যবসা। ফলে ঈদের আগে শাকিবের সঙ্গে জিতের লড়াইয়ের যে আওয়াজ উঠেছিল সেটি একেবারেই ধোপে টেকেনি। কারণ ঈদে শাকিব খানের ‘রাজনীতি’ নামে আরও একটি ছবি মুক্তি পেয়েছিল। নবাবের বিপরীতে রাজনীতিই ছিল দর্শকদের কাছে আলোচনার খোরাক। ‘বস-টু’ ছবিতে জিতের বিপরীতে অভিনয় করেছেন কলকাতার শুভশ্রী এবং বাংলাদেশের নুসরাত ফারিয়া। ছবিটি বাংলাদেশের ১১২টি হলে মুক্তি পেয়েছে। শুরু থেকেই নানা বিষয় নিয়ে বিতকির্ত হয়ে আসছে ছবিটি। বিশেষ করে ‘আল্লাহ মেহেরবান’ শিরোনামে একটি গানে নুসরাতের খোলামেলা পোশাকের ইস্যু নিয়ে অনেকে ছবিটি থেকে মুখ ঘুরিয়ে নিয়েছেন। এ ছাড়া নকলের অভিযোগ তো রয়েছেই। কিন্তু প্রেক্ষাগৃহ আধিক্যের কারণে ব্যবসায়িকভাবে নবাবের পরই ছিল ‘বস-২’ এর অবস্থান।

অন্যদিকে যৌথ প্রযোজনার দুই আলোচিত-সমালোচিত ছবির চাপে অনেকটাই আলোচনার বাইরে ছিল দেশীয় প্রযোজনায় নির্মিত একমাত্র ছবি ‘রাজনীতি’। ঈদে সারা দেশের মাত্র ৪০টি হলে মুক্তি পায় ছবিটি। প্রযোজকের অভিযোগ, রাজনীতি ছবিটি নোংরা রাজনীতির মুখেই পড়েছে। কিন্তু তরুণ নির্মাতা বুলবুল বিশ্বাসের সুন্দর গল্প আর নির্মাণে দর্শকদের টানতে সমর্থ হয়েছে ছবিটি। পারিবারিক রাজনীতির গল্পের এ ছবিটি মুক্তির পর থেকেই আলোচনায় আসে। শাকিব-অপু জুটির আপাতত সর্বশেষ সিনেমা হওয়ার কারণে এ ছবিটি নিয়েও আলোচনার কমতি ছিল না। তবে প্রচারণা কম, শুরুর দিকে ছবিটি নিয়ে শাকিব খানের অনাগ্রহ ইত্যাদি কারণে মুক্তির আগে এক প্রকার কোণঠাসা হয়ে পড়েছিল রাজনীতি। কিন্তু গল্পের কারণে শেষে দর্শকরা ছবিটির প্রতি আগ্রহী হয়ে ওঠেন। ঢাকায় একটিমাত্র সিনেমা হলে মুক্তি পায় ছবিটি। সেটি হচ্ছে যমুনা ফিউচার পার্কের ব্লকবাস্টার সিনেমাস। শুরুতে দিনে দুটি শো প্রদর্শন করলেও পরে দর্শকদের ভিড় সামলাতে হলিউডের ছবি নামিয়ে দিয়ে রাজনীতির শো বাড়িয়ে দেয় ব্লকবাস্টার কর্তৃপক্ষ। এ ছবিতে শাকিব-অপু ছাড়াও অভিনয় করেছেন আনিসুর রহমান মিলন, ডি জে সোহেল, শহীদুল আলম সাচ্চু, সাদেক বাচ্চু, আলীরাজ প্রমুখ। হল সংখ্যা অল্প হলেও পরিচালকের দাবি দর্শকরা ছবিটি লুফে নিয়েছেন। আগামীকাল থেকে হল সংখ্যাও বাড়ছে বলেও জানান পরিচালক। আপাতদৃষ্টিতে ঈদের ছবির ব্যবসায়িক অবস্থানে রাজনীতি তিন নাম্বারে অবস্থান করলেও অনেকের মতে, যদি অধিক সংখ্যক প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি মুক্তি পেত তা হলে এবারের ঈদে রাজনীতিই হতো সেরা ছবি।

সব মিলিয়ে এবারের ঈদের ছবির বাজারকে বেশ জমজমাটই দেখা গেল। তবে এ জমজমাটের কৃতিত্বের দাবিদার একমাত্র শাকিব খান। কারণ নবাব কিংবা রাজনীতি ছবিতে যদি শাকিবের বদলে অন্য কেউ থাকত তা হলে দর্শকদের মধ্যে এত মাতামাতি দেখা যেত না বলেও জানিয়েছেন চলচ্চিত্রবোদ্ধারা। অন্যদিকে ঈদের আগে নবাব ও বস-২ এর বিরুদ্ধে আন্দোলনই ছবি দুটি দেখার প্রতি দর্শকদের আগ্রহ অনেকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে বলেও জানিয়েছেন কেউ কেউ। বিশেষ করে ‘নবাব’ নিয়ে দর্শকদের মধ্যে উচ্ছ্বাস ছিল বেশি। রাজনীতি দেখার পর সেটিও নিয়ে উচ্ছ্বাসের কমতি ছিল না কোথাও।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত