ফারুক হোসেন শিহাব    |    
প্রকাশ : ০৬ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
লোক নাট্যদলের নাট্যযজ্ঞে সরব নাটকপাড়া
ঈদকেন্দ্রিক নিরসই যাচ্ছিল নাটকপাড়াখ্যাত বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার পরিবেশ। থিয়েটার চর্চার যে তীর্থস্থানে প্রতিদিন বিকাল থেকেই নাটকপ্রেমীদের পদচারণায় থাকে মুখরিত, সেই জমজমাট জায়গাটি ক’দিন ধরেই নীরব-নিস্তব্ধ। ঈদ আমেজে নগরবাসী ব্যস্ত থাকায় নেই লোকসমাগম, নেই আড্ডা, জ্বলে না মঞ্চে বাতি। এমনি আবহে হঠাৎই নাট্যপ্রেমীদের মাঝে আনন্দের ধুম। প্রাণছোঁয়া এ মুখরতা দেশের প্রথম সারির থিয়েটার সংগঠন লোক নাট্যদলের তিন যুগপূর্তিকে ঘিরে। এ উপলক্ষে ৪ দিনব্যাপী জমকালো নাট্যোৎসবের আয়োজন করেছে প্রতিশ্রুতিশীল এ নাট্যদল। গতকাল ৫ জুলাই বিকাল সাড়ে ৬টায় জাতীয় নাট্যশালার লবিতে বর্ণাঢ্য এ উৎসবের উদ্বোধন করেন সংস্কৃতি সচিব মো. ইব্রাহীম হোসেন খান। লোক নাট্যদলের কর্ণধার ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে জমকালো উদ্বোধনীপর্ব শেষে জাতীয় নাট্যশালায় প্রদর্শিত হয় সুকুমার রায় রচিত নাটক ‘অবাক জলপান’ এবং বাংলাদেশের সর্বাধিক মঞ্চায়িত নাটক ‘কঞ্জুস’। মলিয়েরের দ্য মাইজার অবলম্বনে নাটকটি রূপান্তর করেছেন তারিক আনাম খান। উদ্বোধনী পর্বসহ নাট্যমঞ্চায়নে ছিল দর্শক-শুভাকাক্সক্ষীদের উপচে পড়া ভিড়। ৮টি নাটক নিয়ে সাজানো হয়েছে প্রাণবন্ত এ নাট্যাসর। ৮টি নাটকই নির্দেশনা দিয়েছেন লিয়াকত আলী লাকী। এ যাবৎ ঢাকার মঞ্চে একটি নাট্যদল থেকে একই নির্দেশকের এতগুলো নাটকের সম্মিলনে এটিই প্রথম উৎসব। ফলে দেশের নাটকের ইতিহাসে নতুন এক মাইলফলক সৃষ্টি করেছে লোকনাট্য দল। মঞ্চায়নে আজ ৬ জুলাই সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় রয়েছে আলোচনা অনুষ্ঠান এবং ড. আবদুস সেলিম অনূদিত গাও সিং জিয়ানের ‘মাঝরাতের মানুষেরা’ নাটকের প্রদর্শনী। আগামীকাল বিকাল ৪টা থেকে জাতীয় নাট্যশালায় রয়েছে পরপর তিনটি নাটকের প্রদর্শনী। নাটকগুলো হচ্ছে- লিয়াকত আলী লাকীর গ্রন্থনা ও পরিকল্পনায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনালেখ্য ‘মুজিব মানে মুক্তি’ এবং রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘ডাকঘর ও রথযাত্রা’। একই দিন সন্ধ্যা ৭টায় এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে প্রদর্শিত হবে ময়মনসিংহ গীতিকা অবলম্বনে পদাবলী যাত্রা ‘সোনাই মাধব’। ৮ জুলাই শনিবার বেলা ১১টায় রয়েছে সেমিনার। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন পশ্চিমবঙ্গের প্রখ্যাত নাট্যগবেষক আশীষ গোস্বামী। সন্ধ্যা ৭টায় সমাপনী মঞ্চে প্রদর্শিত হবে নাসরীন মুস্তাফা রচিত নাটক ‘লীলাবতী আখ্যান’। এই নাট্যযজ্ঞের মধ্য দিয়ে আবারও সরব হয়ে উঠেছে নাটকপাড়া। নাট্যকর্মীসহ সংশ্লিষ্টদের মধ্যেও যেন সঞ্চারিত হয়েছে নাটকময় ব্যস্ততা। ১৯৮১ সালের ৬ জুলাই লিয়াকত আলী লাকীর নেতৃত্বে নাট্যপ্রেমী কিছু তরুণের হাত ধরে দেশের সংস্কৃতি অঙ্গনে যাত্রা শুরু করে লোক নাট্যদল। নিরলস স্পৃহা নিয়ে সৃষ্টির অদম্য আকাক্সক্ষায় প্রতিষ্ঠিত লোক নাট্যদলের মূল লক্ষ্য আধুনিক নাট্যমনস্ক দর্শকদের উপযোগী করে বাংলার ঐতিহ্যবাহী নাট্যকর্মের শিল্পিত উপস্থাপনসহ বিশ্বনাট্যের বিভিন্ন ধারার নাটক প্রযোজনা এবং বাংলা নাটককে সমৃদ্ধ করা। জন্মলগ্ন থেকেই নিয়ত নিরীক্ষার মাধ্যমে নতুন নতুন নাট্য বিষয় ও আঙ্গীকের সঙ্গে দর্শকদের সম্পৃক্ত করা, নিয়মিত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ নাট্যকর্মী তৈরি করা, সৃষ্টিশীল ও নিষ্ঠাবান নাট্যকর্মীদের সম্মানিত করা, নাট্যচর্চার ইতিহাস সংরক্ষণ করা, ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে নাটকের সঙ্গে যুক্ত করা, বড়দের পাশাপাশি শিশু-কিশোর ও যুবদের জন্য নাট্যান্দোলন পরিচালনা করা, নতুন দর্শক সৃষ্টি করা, সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যমে সুশিক্ষিত ও সচেতন সমাজ গড়ে তোলাসহ নানাবিধ সৃজনশীল কার্যক্রম লোক নাট্যদল পরিচালিত হচ্ছে দলকর্মীদের দৃঢ় সৃজন-মননে। জীবনঘনিষ্ঠ ও নিরীক্ষাধর্মী নাটক মঞ্চায়নের অঙ্গীকারে বিশ্বস্ত থেকে লোক নাট্যদল শিশু নাটকসহ ৬০টি নাটক প্রযোজনা করেছে। এর মধ্যে ৫০টি মঞ্চনাটক, ৭টি পথনাটক, ১টি নাট্যালেখ্য।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত