তারা ঝিলমিল ডেস্ক    |    
প্রকাশ : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
বছরজুড়ে সরগরম হলিউড

২০১৭ সালে হলিউডপাড়ায় লড়াইটা বেশ জমে উঠেছিল। একসঙ্গে সব সুপারহিরোকে দেখা গেছে। অ্যাকশন আর রোমান্স দুই ধরনের ছবিই বছরজুড়ে মাত করেছে দর্শকদের। এর মধ্যে কিছু ছবি সমালোচকদের প্রশংসায় সেরার খেতাব পেলেও সাফল্য দেখেনি বক্স অফিসে। কিছু ছবি আবার ব্যবসা করেছে বেশ। বলিউডপাড়ার সারা বছর আলোচনায় থাকা বা ব্যবসা সফল ছবির অন্যতম হচ্ছে ‘দ্য ফেইট অব দ্য ফিউরিয়াস’। ছবিটি সর্বাধিক আয়ের রেকর্ড করেছে বলেই খবর দিয়েছে বক্স অফিস। ‘দ্য ফাস্ট অ্যান্ড দ্য ফিউরিয়াস’ মুভি ফ্র্যাঞ্চাইজির অষ্টম কিস্তি দিয়ে বিশ্বমাত করেছিল ভিন ডিজেল, ডোয়াইন জনসনের এ ছবিটি। এফ গ্যারি গ্রের পরিচালনায় ছবিটি সর্বাধিক আয়ের রেকর্ড গড়েছে। মুক্তির প্রথম সপ্তাহে ৫৩২ দশমিক ৫ মিলিয়ন ডলার আয় করেছে ছবিটি। এ ক্ষেত্রে পেছনে ফেলেছে ডিজনির ‘স্টার ওয়ারস : দ্য ফোর্স অ্যাওয়াকেন্স’। এ ছবির আয় ছিল ৫২৯ মিলিয়ন ডলার। ১৭ নভেম্বর মুক্তি পায় ডিসি কমিকের বহুল প্রতীক্ষিত ছবি ‘জাস্টিস লিগ’। বলিউডের সব ক্ষমতাবান সুপারহিরোর সমাবেশ এ ছবিতে। ছবিটি বক্স অফিসের হিটের জায়গা দখল করে নেয়। আয় করে ৬৩৫.৯ মার্কিন ডলার। এ বছর হলিউডের আলোচিত ছবির মধ্য অন্যতম হচ্ছে ‘ওয়ান্ডার ওম্যান’। সমুদ্রের বুকে জনারণ্য এক স্বর্গ দ্বীপ, নাম তার ‘থেমিস্কিরা’। কিন্তু অবাক করা ব্যাপার হল, পুরো দ্বীপে নেই একটিও পুরুষ! সবাই এখানে নারী! এরা সবাই হল যোদ্ধা ‘আমাজন নারী’। অলিম্পাস পর্বতের দেবতারা তাদের বানিয়েছেন মানবজাতিকে রক্ষা করতে। কিন্তু এ পুরো দ্বীপে অসংখ্য প্রাপ্তবয়স্কা নারীর মাঝে শিশু কেবল একটি মেয়ে- ডায়ানা। বড় হলে তার পরিচয় হয়, ‘ওয়ান্ডার ওম্যান’। কিন্তু কেন সে এ দ্বীপের একমাত্র শিশু? কী এর পেছনের রহস্য? এসব নিয়েই অসাধারণ অ্যাকশন দৃশ্যে ভরপুর ছবি ওয়ান্ডার ওম্যান। এতে মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইসরাইলি অভিনেত্রী গাল গাদোত। একজন নারী পরিচালকের পরিচালনায় এ যাবতকালের সর্বোচ্চ আয় করা মুভি এখন ওয়ান্ডার ওম্যান। যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ১৪ দশমিক ৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের ব্যবসা করেছে মার্ভেলের ‘থর : রাগনারক’। গার্ডিয়ান অব গ্যালাক্সি, বিউটি অ্যান্ড দ্য বিস্ট ও স্পাইডারম্যান : হোমকামিংয়ের পর এটিই চতুর্থ ছবি, যেটি প্রথম দিন সর্বোচ্চ ব্যবসা করেছে। এ বছরের অন্যতম সেরা ছবি স্পাইডারম্যান হোমকামিং। এ ছবিটিও বক্স অফিসে ব্যবসাসফল তালিকায় অবস্থান করছে। এ মৌসুমে মুক্তি পাওয়া সিনেমাগুলো গভীরভাবে বিশ্লেষণ কিংবা সেরা সিনেমাগুলো হাইলাইট করতে গেলেই বোঝা যায় ‘দ্য ফেইট অব দ্য ফিউরিয়াস’ কেমন ছবি। সিনেমা কতখানি ভালো তা আসলে বক্স অফিসের পারফরমেন্স দিয়ে যাচাই করা যায় না সবসময়। ২০১৭ সালের এ প্রথমভাগেই বিস্ময়করভাবে চলে এসেছে বেশ কয়েকটি দাগ কেটে যাওয়ার মতো সিনেমা। এর মধ্যে রয়েছে ‘দ্য লস্ট সিটি অব জেড’। একটা মিথিক্যাল শহরের খুঁজে ব্রিটিশ এক্সপ্লোরার পার্সি ফসেটের অ্যামাজন যাত্রার সত্য গল্পের প্রেক্ষাপটে অবসেশন আর মানসিক দৃঢ়তার ওপর নির্ভর করে তৈরি এ সিনেমা। দারুণ ছিল এ সিনেমার দৃশ্যায়ন। বছরের শেষে এ ছবিটিও ছিল আলোচনায়। নির্মাণের দিক থেকে ‘বিউটি অ্যান্ড দ্য বিস্ট’-এর পরিচালক বিল কনডন কোনো ঝুঁকি নেননি। ডিজনির আগের লাইভ অ্যাকশন ছবি ‘সিন্ডারেলা’ কিংবা ‘দ্য জঙ্গল বুক’-এর মতো মূল গল্প থেকে সরে এসে নয়, বরং মূলের অনুকরণ করেই নতুন সিনেমাটি তৈরি করেছেন তিনি। আর তাই ১৯৯১ সালের মূল ‘বিউটি অ্যান্ড দ্য বিস্ট’-এর অনেক দৃশ্যের সঙ্গে হুবহু মিলে যায় নতুন সিনেমার সিংহভাগ। এ মিল অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সিনেমাটিকে সফল করে তুলতে সাহায্য করেছে।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত