যুগান্তর ডেস্ক    |    
প্রকাশ : ০৭ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
শুনানিতে ভারতের সুপ্রিমকোর্ট
ফাঁসি কাম্য নয়, যন্ত্রণাহীন মৃত্যুদণ্ডের ব্যবস্থা করুন

ভারতের সুপ্রিমকোর্ট বলেছে, মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার অন্য কোনো পন্থা ভাবুক সরকার। ফাঁসি দেয়া কাম্য নয়।

শুক্রবার এমনই মত প্রকাশ করেছে ভারতের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রর নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। সর্বোচ্চ আদালত বলেছে, ‘যে কোনো ব্যক্তির মৃত্যুই শান্তির হওয়া উচিত, যন্ত্রণার নয়। কারণ বহু শতাব্দী ধরে কথিত আছে যে, যন্ত্রণাহীন মৃত্যুর সমতুল্য আর কিছুই নয়।’ এ বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপালের সহায়তা চেয়েছেন সুপ্রিমকোর্ট। কেন্দ্রীয় সরকারকে আদালত নোটিশও পাঠিয়েছে। খবর এনডিটিভির।

মৃত্যুদণ্ড আদৌ বহাল থাকা উচিত কিনা, সে নিয়ে ভারত শুধু নয়, গোটা বিশ্বেই বিতর্ক রয়েছে। অনেক দেশই মৃত্যুদণ্ডের অবলুপ্তি ঘটিয়েছে ইতিমধ্যেই। ভারতেও মৃত্যুদণ্ড তুলে দেয়ার দাবি অনেক দিন ধরেই উঠছে। সুপ্রিমকোর্ট মৃত্যুদণ্ড তুলে দেয়ার পক্ষপাতী নয়। কিন্তু ফাঁসির মতো যন্ত্রণাদায়ক পদ্ধতিতে কাউকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া উচিত নয় বলেই দেশের সর্বোচ্চ আদালত এখন মনে করছে। ঋষি মালহোত্র নামে এক আইনজীবীর দায়ের করা জনস্বার্থ মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই এই পর্যবেক্ষণ সুপ্রিমকোর্টের। মালহোত্র শুনানিতে বলেন, যে কোনো ব্যক্তিরই মর্যাদার অধিকার রয়েছে। তার ব্যাখ্যা, কাউকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দেয়ার পর তার মৃত্যু হওয়ার আগ পর্যন্ত তাকে অপরিসীম যন্ত্রণার মধ্য দিয়ে তো যেতে হয়। ওই সময়ে তার মর্যাদাও সম্পূর্ণ ধূলিসাৎ হয়ে যায়। মৃত্যুর সময়টা এমন হওয়া কিছুতেই কাম্য নয় বলে ওই আইনজীবীর দাবি। সুপ্রিমকোর্টও ঋষি মালহোত্রর সঙ্গে সহমত হয়েছে।

প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ এদিন স্বীকার করেছে, ৩০ বছর আগে সুপ্রিমকোর্টই বলেছিল, ফাঁসির মাধ্যমে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার পদ্ধতি সংবিধানসম্মত। কিন্তু সর্বোচ্চ আদালত মনে করিয়ে দিয়েছেন, ভারতের সংবিধান চিরকালই প্রগতিশীল এবং সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এই সংবিধান নিজেকে বদলে ফেলেছে। সর্বোচ্চ আদালতের মন্তব্য, ‘এক সময় যা বৈধ ছিল, পরবর্তীকালে তা অবৈধ হয়ে যেতেই পারে।’ কেন্দ্রীয় সরকারকে সুপ্রিমকোর্টের পরামর্শ, মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার জন্য যন্ত্রণাবিহীন কোনো পন্থা খুঁজে বের করুক সংসদ। তিন সপ্তাহ পরে ফের এ বিষয়ে শুনানি হবে বলে আদালত জানিয়েছেন।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত