যুগান্তর ডেস্ক    |    
প্রকাশ : ২১ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
‘ডিনামাইট দিয়ে গুঁড়িয়ে দেয়া হবে তাজমহল’
বিশ্বখ্যাত ঐতিহাসিক মোগল স্থাপত্য তাজমহলকে ডিনামাইট দিয়ে ধ্বংস করা হতে পারে বলে আশঙ্কা করেছেন ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের সমাজবাদী পার্টির জ্যেষ্ঠ নেতা ও রাজ্যের সাবেক মন্ত্রী আজম খান। এছাড়া বিজেপি সংসদ সদস্য বিনয় কাটিয়ার গণমাধ্যমের সামনে দাবি করেন, তাজমহল আসলে হিন্দু মন্দির। মুঘল সম্রাট শাহজাহান শিবমন্দির ভেঙে সেখানে সৌধ তৈরি করেছেন। তাজমহলের নাম পরিবর্তন করে ‘তেজো মহল’ করারও দাবি জানিয়েছেন।
এর আগে উত্তরপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক সঙ্গীত সোম তাজমহলকে ‘ভারতীয় সংস্কৃতির কলঙ্ক’ বলে অভিহিত করেছিলেন। উত্তর প্রদেশে উগ্র হিন্দুত্ববাদী যোগি আদিত্যনাথ মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসার পর ‘তাজমহল ভারতীয় সংস্কৃতির প্রতিনিধিত্ব করে না’ বলে মন্তব্য করেছিলেন। এমনকি উত্তরপ্রদেশ সরকারের সেরা পর্যটন ক্যালেন্ডার থেকেও তাজমহলকে বাদ দেয়া হয়। এসব ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ও বিজেপি এমপি বিনয় কাটিয়ারের দাবি প্রসঙ্গে আজম খান বাবরী মসজিদের মতো তাজমহলকেও ধ্বংস করা হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। বুধবার আজম খান বলেন, যদি বাবরী মসজিদ ধ্বংস করা সম্ভব হয় তাহলে দেশের যেকোনো স্থাপত্য ধ্বংস করা হতে পারে। তাজমহলকে কোনো দিন ধ্বংস করে ফেলা হলে অবাক হওয়ার কিছু নেই। তিনি বলেন, ‘এদেশে যদি রাম মন্দিরের নামে বাবরী মসজিদকে ধ্বংস করতে পারে তাহলে এসব লোক সব কিছুই করতে পারে। বাবরী মসজিদ ধ্বংস করার আগে গোটা দেশে যে ধরনের পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছিল, তা একদিনে তৈরি হয়নি। সুবিচারপ্রিয় মানুষদের স্মরণে আছে তখন সুপ্রিমকোর্ট ও হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ ছিল, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী আদালতে হলফনামা দিয়ে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন এবং একতা পরিষদে প্রস্তাব নেয়া হয়েছিল।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত