রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে চার দেশই ফ্যাক্টর

নানামুখী সংশয় ব্যক্ত করে কেউ কেউ বলেন, যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীন ও ভারতকে সত্যিকারার্থে পক্ষে টানতে না পারলে সংকট নিরসন কঠিন হবে

মাসুদ করিম
রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে প্রভাবশালী চার দেশই মূল ফ্যাক্টর। এই চার দেশ হল- চীন, রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র ও ভারত। আর বাস্তব প্রেক্ষাপট এমন যে, বেশিরভাগ দেশও যদি রোহিঙ্গাদের পক্ষে অবস্থান নেয়, আর মিয়ানমারের পক্ষে থাকে শক্তিশালী এই চারটি দেশ; তাহলেও সংকটের সমাধান মিলবে না। রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানোসহ তাদের নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করা বেশ কঠিন হবে। বলা যায়, এক রকম অসম্ভব ব্যাপার। বিপরীতে বাংলাদেশের দীর্ঘমেয়াদে নানামুখী ক্ষতির মুখে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। রোহিঙ্গা সংকট নিরসন প্রশ্নে বুধবার যুগান্তরের কাছে এমন মন্তব্য করেন বিশিষ্ট কূটনৈতিক বিশ্লেষকদের কয়েকজন। তারা বলেন, সংকট নিরসন করতে হলে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে বিশেষ পরাশক্তি হিসেবে চিহ্নিত যুক্তরাষ্ট্র,বিস্তারিত

২শ’ কোটি টাকা পেতে নানামুখী তৎপরতা

মামলার খরচের কথা বলে একটি অংশের বিরুদ্ধে বাণিজ্যের অভিযোগ

যুগান্তর রিপোর্ট
মামলাসংক্রান্ত জটিলতায় সরকারি হাসপাতালের নির্দিষ্ট কয়েকটি বিভাগের ইউজার ফি বণ্টন তিন বছর বন্ধ রয়েছে। এ সময় প্রায় ২০০ কোটি টাকা জমা হয়েছে; যা পেতে নানমুখী তৎপরতা চলছে। এ ফি পাইয়ে দেয়ার জন্য একটি চক্র বাণিজ্যও শুরু করেছে। ইউজার ফি বৃদ্ধিকে কেন্দ্র করে ২০১০ সালে একটি রিট মামলা হয়। মামলার কারণে ইউজার ফি বণ্টন বাধাগ্রস্ত হয়, সৃষ্টি হয় নানা জটিলতার। নিয়মানুযায়ী সরকারি হাপাতালের ল্যাবরেটরি চার্জ বাবদ রোগীদের কাছ থেকে যে টাকা নেয়া হয়, তার অর্ধেক পাবে সরকার। আর বাকি অর্ধেক পাবে ঝুঁকিপূর্ণ বিভাগের চিকিৎসক কর্মচারীরা। ফলে ১৯৮৪ সালের সরকারি আদেশ অনুযায়ী সরকারি হাসপাতালে রোগীদের কাছ থেকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা বাবদ ফি আদায় করা হলেওবিস্তারিত

মিরপুরের ‘বাজে’ মাঠ নিয়ে বিসিবির ব্যাখ্যা

স্পোর্টস রিপোর্টার
মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের আউটফিল্ড নিয়ে আইসিসির কাছে ব্যখ্যা দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আইসিসি দুই সপ্তাহ সময় দিলেও এক সপ্তাহের মধ্যেই উত্তর দিয়েছে বিসিবি। মিরপুরের আউটফিল্ড খারাপ থাকার পেছনে বন্যা ও বৃষ্টিকে কারণ হিসেবে দেখিয়েছে বিসিবি। মিরপুর স্টেডিয়াম সংস্কারের পর বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট দিয়ে আবার খেলা শুরু হয়েছে। টেস্টের আগে আউটফিল্ডের মান নিয়ে সংশয় জানিয়েছিলেন দুই দলেরই অধিনায়ক। খেলা শেষে ম্যাচ রেফারি মাঠের আউটফিল্ড নিয়ে আইসিসির কাছে রিপোর্ট করেন। ১৪ সেপ্টেম্বর আইসিসি জানায়, ম্যাচ রেফারির প্রতিবেদনে মিরপুরের আউটফিল্ডকে বাজে বলা হয়েছে। কাল বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন বলেন, ‘কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ শেষ হলে ম্যাচ রেফারি কর্তৃক আইসিসিতেবিস্তারিত

মোদি সরকারের বিরুদ্ধে মামলা করবে পশ্চিমবঙ্গ

মিয়ানমার সীমান্তে টহল বাড়াল ভারত * নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানের কারণেই রোহিঙ্গারা দেশ ছাড়ছে : স্বীকার করল ভারত

যুগান্তর ডেস্ক
ভারতে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা মুসলিমদের কেন্দ্রীয় সরকার ফেরত পাঠানোর যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গ সরকার তার বিরোধিতা করে সুপ্রিমকোর্টে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রাজ্যের শিশু অধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান অনন্যা চক্রবর্তী বলেন, ‘একজন রোহিঙ্গা শিশুও যদি পুশ ব্যাকের শিকার হয়, তা আমরা মেনে নেব না। সে জন্যই আমরা সুপ্রিমকোর্টে মামলা করব।’ কমিশনের পক্ষ থেকে সুপ্রিমকোর্টে ওই মামলা করার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির কাছ থেকে প্রয়োজনীয় অনুমতিও নেয়া হয়েছে। মমতা কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে মামলা করার জন্য অনুমতি দিয়েছেন বলেও খবর পাওয়া গেছে। নরেন্দ্র মোদির সরকার ভারতে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়ায় সুপ্রিমকোর্টে তার বিরুদ্ধে কয়েকটি জনস্বার্থ মামলা হয়েছে। সোমবার কেন্দ্রীয় সরকারবিস্তারিত

অর্থনৈতিক উন্নয়নে পুঁজিবাজারের বিকাশ জরুরি

সব পক্ষকে সহযোগিতা করতে হবে * বিদেশি বিনিয়োগ বাড়াতে হবে

যুগান্তর রিপোর্ট
ভয়াবহ বিপর্যয়ের পর বর্তমানে পুঁজিবাজারের প্রতি মানুষের আস্থা ফিরতে শুরু করেছে। একটি ধ্বংসস্তূপ থেকে বাজারে স্থিতিশীলতা আসছে। তবে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য পুঁজিবাজারের আরও বিকাশ জরুরি। এ ক্ষেত্রে বাজারের সঙ্গে সম্পৃক্ত সব পক্ষকে সহযোগিতা করতে হবে। পাশাপাশি বিদেশি বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। বুধবার রাজধানীর স্থানীয় একটি হোটেলে কর্মশালায় বক্তারা এসব কথা বলেন। শেয়ারবাজারের রিপোর্টারদের সংগঠন ক্যাপিটাল মার্কেট জার্নালিস্ট ফোরাম (সিএমজেএফ) ও বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশন যৌথভাবে এ কর্মশালার আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান, বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেন। এ ছাড়া অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বিএমবিএ সভাপতি ছায়েদুরবিস্তারিত

চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অর্ধকোটি টাকার অডিট আপত্তি

পাথরঘাটা উপজেলা পরিষদ

বরগুনা (দক্ষিণ) প্রতিনিধি
পাথরঘাটা উপজেলা পরিষদে দেড় কোটি টাকারও বেশি আর্থিক অনিয়ম, দুর্নীতি ও রাজস্ব ফাঁকির অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম রিপন এবং উপজেলা প্রকৌশলী মো. আজিজুর রহমানসহ কয়েকজন ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ ওঠেছে। সবচেয়ে বেশি অভিযোগ রয়েছে উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহ মো. কামরুল হুদা ওই চেয়ারম্যানকে ৫ সেপ্টেম্বর একটি পত্র দিয়ে ২৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে অডিট আপত্তি নিষ্পত্তি করতে বলেছেন। চিঠিতে এও উল্লেখ করেছেন, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ৪৯ লাখ ২৯ হাজার ৪৩৮ টাকার অডিট আপত্তি নিষ্পত্তি করতে না পারলে পরবর্তী নির্বাচনে তার অযোগ্য হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।বিস্তারিত

স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান শক্তিশালী করতে অনীহা কেন?

আবদুল লতিফ মন্ডল
নিজ নিজ নির্বাচনী এলাকায় ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন ও সংস্কারের জন্য সরকার জাতীয় সংসদ সদস্যদের ৬০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গত ১৩ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী সিটি কর্পোরেশন এলাকা বাদে প্রত্যেক সংসদ সদস্য এজন্য ১ কোটি করে টাকা পাবেন। ‘সর্বজনীন সামাজিক অবকাঠামো উন্নয়ন’ শীর্ষক প্রকল্পের মাধ্যমে পাওয়া এ টাকা সংসদ সদস্যরা নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী নিজ নিজ নির্বাচনী এলাকায় মসজিদ, ঈদগাহ, কবরস্থান, মন্দির, শ্মশান, গির্জা, প্যাগোডা, গুরুদুয়ারা এবং খেলার মাঠ উন্নয়নে ব্যয় করতে পারবেন। সংসদ সদস্যদের পছন্দ অনুযায়ী কাজ বাস্তবায়ন করবে স্থানীয় সরকার প্রকৌশলবিস্তারিত

আকাঙ্ক্ষাই অর্ধেক জীবন নিস্পৃহতা অর্ধেক মৃত্যু

মাহবুব কামাল
হেডিংয়ের কথাগুলো আমার মৌলিক আবিষ্কার নয়। হুবহু না হলেও বাক্যটির কাছাকাছি কথা আরও অনেকেই বলেছেন ইতিপূর্বে। বলা যায়, বাক্য গঠনটিই শুধু আমার, বাদবাকি অপরের। এই বাক্যের ভাবসম্প্রসারণ করা খুব সোজা একটি কাজ। মানুষ ও গাছপালা দু’টোরই জীবন আছে, জীবনের প্রায় সব বৈশিষ্ট্যই এ দু’য়ের মধ্যে বিদ্যমান। ‘প্রায়’ বললাম, কারণ মানুষ ও গাছপালার মধ্যে অনেক কমন বৈশিষ্ট্য থাকলেও গাছপালার জীবনে গতি নেই, যা আছে মানুষের। এ দুই আলাদা বৈশিষ্ট্যের কারণে মানুষকে বলা হয় প্রাণী আর গাছপালা হল উদ্ভিদ। অতঃপর আমরা বলতেই পারি, মানুষের জীবন থেকে যদি গতিটা কেড়ে নেয়া যায়, তাহলে সে উদ্ভিদ হয়ে যাবে। তো মানুষের ভেতর গতির সঞ্চার হয় কখন?বিস্তারিত

আলোচনা-সমালোচনায় রয়েছে যৌথ প্রযোজনার নতুন নীতিমালার খসড়া

অস্থির সময় পেরিয়ে কিছুটা স্বস্তির হাওয়া বইছে ঢাকাই চলচ্চিত্র পাড়ায়। অথচ কিছুদিন আগেও কাদা ছোড়াছুড়ি ছিল এ অঙ্গনে। পেছনে ছিল অনেকগুলো কারণ। সব কারণ পেছনে ফেলে এখন এক কাতারে দাঁড়িয়েছেন চলচ্চিত্র পাড়ার লোকেরা। তবে একটি বিষয়ে সুরাহা হয়নি এখনও। চলমান রয়েছে বিষয়টি। সেটি হচ্ছে যৌথ প্রযোজনায় ছবি নির্মাণ। এ প্রক্রিয়ায় আগেও ছবি নির্মিত হয়েছে। হচ্ছে এখনও। হয়তো আরও বিস্তৃত পরিসরে আগামীতেও হবে। তাই প্রয়োজন সুষ্ঠু একটা নীতিমালার। যেটা হবে সার্বজনীন। যে নীতিমালার আওতায় উভয় দেশ লাভবান হবে। দুই দেশের স্বার্থ সংরক্ষণ হবে। সম্প্রতি তথ্য মন্ত্রণালয় যৌথ প্রযোজনার নতুন নীতিমালার একটি খসড়া প্রকাশ করেছে। প্রস্তাবিত সে খসড়ায় অসঙ্গতি বিষয়েও বলেছেন কেউ কেউ। বিস্তারিত লিখেছেন- অনিন্দ্য মামুন

যৌথ উদ্যোগের চলচ্চিত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে প্রথমবারের মতো নীতিমালা করা হয় ১৯৮৬ সালে। যে নীতিমালায় যৌথ প্রযোজনার ছবিতে সব দেশের শিল্পীদের সমানভাবে অংশগ্রহণের নিশ্চয়তা বাধ্যতামূলক রাখা হয়েছিল। পরে ২০১২ সালে এসে আগের নীতিমালায় আনা হয় কিছুটা পরিবর্তন। পরিবর্তিত এ নীতিমালায় দুই দেশের নির্মাতারা আলোচনার মাধ্যমে চলচ্চিত্র নির্মাণের বিষয়ে যাবতীয় সিদ্ধান্ত নিবেন বিষয়টি সংযোজন করা হয়। বলা হয় এটিই ছিল ঢাকাই সিনেমার যৌথ প্রযোজনার জন্য সবচেয়ে বড় ক্ষতিকর দিক। এ নীতিমালার আওতায় এক দেশের চেয়ে আরেক দেশ সুবিধা বেশি নিয়ে থাকে। বলা যায় বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনার ক্ষেত্রে ভারতই সবচেয়ে বেশি সুবিধা ভোগ করে থাকে। সেই সঙ্গে সুবিধা ভোগ করে থাকে একশ্রেণীরবিস্তারিত
আর্কাইভ
প্রিন্ট সংস্করণ অনলাইন সংস্করণ
Content loader
Content loader

আজকের আবহাওয়া

আজকের প্রশ্ন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, নিখোঁজ নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। আপনিও কি আতঙ্কিত বোধ করছেন না?
 হ্যাঁ না মতামত নেই

বিজ্ঞাপন

logo
সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯ ইং
ফজর৬.০৫
যোহর১.১৫
আসর৪.১৫
মাগরিব৫.৩০
এশা৭.৩০
সূর্যোদয় - ৬.৪০সূর্যাস্ত - ৫.২০
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত