jugantor
সোনাইমুড়িতে কনস্টেবলকে পেটাল ছাত্রলীগ সভাপতি
ঘটনাস্থল থেকে ৪ জন আটক

  স্টাফ রিপোর্টার, নোয়াখালী  

২৬ জুন ২০১৪, ০০:০০:০০  | 

নোয়াখালী সোনাইমুড়ি থানায় পুলিশ কনেস্টেবল জাহাঙ্গীরকে পিটিয়ে আহত করেছে সোনাইমুড়ি কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ সুজন। মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থানার লকে গ্রেফতারকৃত

আসামিকে অনুমতি ছাড়া দেখতে এলে কনস্টেবল জাহাঙ্গীর বাধা দিলে উত্তেজিত হয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ সুজন তাকে এলোপাতাড়ি কিল ঘুষি দিয়ে আহত করে। আহত পুলিশের চিৎকারে অপর পুলিশের সদস্যরা এগিয়ে এলে সুজনসহ সন্ত্রাসীরা থানা থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়।

থানা সূত্র জানায়, স্থানীয় দু’পক্ষের মধ্যে টাকা লেনদেনকে কেন্দ্র করে মারামারি সংঘর্ষ বাধে। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৪ জনকে গ্রেফতার করে। ওই সন্ত্রাসীরাই সুজনের আত্মীয়। সুজনের নেতৃত্বে ৩-৪ জন ছাত্রলীগের ক্যাডার থানায় এসে গ্রেফতারকৃতদের সঙ্গে তদন্ত কর্মকর্তার অনুমতি না নিয়ে লকে দেখা করতে গেলে কর্তব্যরত পুলিশ জাহাঙ্গীর বাধা দেয়। এতে সুজন উত্তেজিত হয়ে কনস্টেবল জাহাঙ্গীরকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি দিয়ে আহত করে দ্রুত পালিয়ে যায়। এদিকে ওসি তদন্ত কর্মকর্তা এসআই শওকত ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে যুগান্তরকে জানান, অনুমতি না নিয়ে সোনাইমুড়ি কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি সুজন ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে লকে গ্রেফতারকৃত আসামিদের সঙ্গে দেখা করতে গেলে দায়িত্বরত কনেস্টেবল জাহাঙ্গীর বাধা দিলে তাকে কিল-ঘুষি দিয়ে এ ঘটনা ঘটায়।



সাবমিট

সোনাইমুড়িতে কনস্টেবলকে পেটাল ছাত্রলীগ সভাপতি

ঘটনাস্থল থেকে ৪ জন আটক
 স্টাফ রিপোর্টার, নোয়াখালী 
২৬ জুন ২০১৪, ১২:০০ এএম  | 
নোয়াখালী সোনাইমুড়ি থানায় পুলিশ কনেস্টেবল জাহাঙ্গীরকে পিটিয়ে আহত করেছে সোনাইমুড়ি কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ সুজন। মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থানার লকে গ্রেফতারকৃত

আসামিকে অনুমতি ছাড়া দেখতে এলে কনস্টেবল জাহাঙ্গীর বাধা দিলে উত্তেজিত হয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ সুজন তাকে এলোপাতাড়ি কিল ঘুষি দিয়ে আহত করে। আহত পুলিশের চিৎকারে অপর পুলিশের সদস্যরা এগিয়ে এলে সুজনসহ সন্ত্রাসীরা থানা থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়।

থানা সূত্র জানায়, স্থানীয় দু’পক্ষের মধ্যে টাকা লেনদেনকে কেন্দ্র করে মারামারি সংঘর্ষ বাধে। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৪ জনকে গ্রেফতার করে। ওই সন্ত্রাসীরাই সুজনের আত্মীয়। সুজনের নেতৃত্বে ৩-৪ জন ছাত্রলীগের ক্যাডার থানায় এসে গ্রেফতারকৃতদের সঙ্গে তদন্ত কর্মকর্তার অনুমতি না নিয়ে লকে দেখা করতে গেলে কর্তব্যরত পুলিশ জাহাঙ্গীর বাধা দেয়। এতে সুজন উত্তেজিত হয়ে কনস্টেবল জাহাঙ্গীরকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি দিয়ে আহত করে দ্রুত পালিয়ে যায়। এদিকে ওসি তদন্ত কর্মকর্তা এসআই শওকত ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে যুগান্তরকে জানান, অনুমতি না নিয়ে সোনাইমুড়ি কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি সুজন ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে লকে গ্রেফতারকৃত আসামিদের সঙ্গে দেখা করতে গেলে দায়িত্বরত কনেস্টেবল জাহাঙ্গীর বাধা দিলে তাকে কিল-ঘুষি দিয়ে এ ঘটনা ঘটায়।



 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র