¦
ঠাকুরগাঁওয়ে প্রকল্পের লাখ লাখ টাকা হরিলুটের অভিযোগ

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি | প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

ঠাকুরগাঁওয়ে প্রধানমন্ত্রীর দফতরের গৃহীত আদিবাসীদের (ক্ষুদ্র নৃ-তাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী) আয় বর্ধক প্রকল্পের লাখ লাখ টাকা হরিলুটের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় আদিবাসীদের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। অভিযোগে জানা যায়, সদর উপজেলার নারগুন ইউনিয়নের পূর্ব নারগুন (ছোটখোচাবাড়ী) গ্রামে সাঁওতাল সম্প্রদায়ের এ জনগোষ্ঠীর আয়বর্ধক প্রকল্পের জন্য স মিল (করাত কল) স্থাপনের জন্য ৫ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। কিন্তু প্রকল্প বাস্তবায়নের নামে যেনতেন কাজ করে বরাদ্দের সিংহভাগ টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ প্রকল্পের সদস্য বুধরাই মার্ডি ও মঙ্গল কিসকু অভিযোগ করে বলেন, এটি আমাদের কোনো উপকারে আসছে না। স মিল-এর যন্ত্রপাতি নিুমানের হওয়ায় এটি চালানো অসম্ভব হয়ে পড়েছে। এছাড়া বিদ্যুৎ সংযোগ না দিয়ে একটি নিুমানের শ্যালো মেশিন দেয়া হয়েছে তা দিয়ে লোকসান গুনতে হচ্ছে তাদের। পাকা ঘর, অফিস ঘর তৈরির কথা থাকলেও সেই টাকা সংশ্লিষ্টরা আত্মসাৎ করেছেন। স মিলের ঘর নির্মাণ মিস্ত্রি মাজেদুল ইসলাম জানান নিুমানের ঢেউটিন দিয়ে এ ঘর নির্মাণ করা হয়েছে, যা দুএক বছর পর নষ্ট হয়ে যেতে পারে। অন্যদিকে একই ইউনিয়নে আদিবাসীদের রিকশাভ্যান দেয়া হয়েছে। কিন্তু এই রিকশাভ্যানগুলো নিম্নমানের হওয়ায় উপকারভোগীদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। পাশের ইউনিয়ন জগন্নাথপুরের চন্ডিপুর গ্রামের উরাও সম্প্রদায়ের আদিবাসীদের একই প্রকল্পের আওতায় ৪০টি পরিবারের পুনর্বাসনের জন্য ২০১১ সালে ২৫ লাখ টাকা বরাদ্দে একটি গরুর খামার স্থাপন করা হয়। ঘর আছে কিন্তু গরু নেই। ওই প্রকল্পের সমিতির সদস্য ধীরমোহন ও লালু তির্কী অভিযোগ করে বলেন, কত টাকা বরাদ্দ আসছে তা তারা জানেন না। এ প্রকল্প উদ্বোধনের সময় ২৯টি গরু কেনা হয়। এরপর খামারে গরু নেই। খামারটি এখন খা খা করছে। ফলে ওই সমিতির সদস্যদের এ প্রকল্পটি কোনো উপকারে আসছে না। এ প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসক মুকেশ চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, বিষয়টি খোঁজ-খবর নিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
বাংলার মুখ পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close