¦
হাকালুকি হাওরে এবার অতিথি পাখির সংখ্যা কম

কুলাউড়া প্রতিনিধি | প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

এশিয়ার বৃহত্তম হ্ওার হাকালুকিতে দুদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত পাখি শুমারিতে এবার পাখির সংখ্যা কম পাওয়া গেছে। তবে পাখি শুমারিকালে হাওরে বিষটোপে মরা পাখি দেখতে পেয়েছেন বার্ড ক্লাবের সদস্যরা। বাংলাদেশ বার্ড ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা ইনাম আল হক, তাঁর ক্লাবের সদস্য এবং দেশী-বিদেশী পাখি বিশেষজ্ঞরা দুদিনের শুমারিতে অংশগ্রহণ করেন। গত ১৬ এবং ১৭ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ বার্ড ক্লাবের ১৮ সদস্য হাকালুকি হাওরের ২৩৮টি বিলের মধ্যে ৩৩টি বিলে পাখিশুমারি চালায়। এতে মোট ৫৬ প্রজাতির ২১ হাজার ৬৩১টি জলচর পাখি দেখা গেছে, যা গত বছরের তুলনায় কম। গত বছর এ হাওরে ৬০ প্রজাতির ২৩ হাজার ০৪২টি পাখি দেখা যায়। সবচেয়ে বেশি সংখ্যক পাখি দেখা গেছে যে ৫টি বিলে। সেগুলো হলো চাতলা বিলে ৪ হাজার ১৭৮টি, চকিয়া বিলে ২হাজার ১৩২টি, পিংলা বিলে ২ হাজার ৬৩টি, কৈয়ারকোণা বিলে ১ হাজার ৪৮৩টি এবং হাওয়াবন্যা বিলে ১ হাজার ১০৮টি। সবচেয়ে বেশি যে ৫টি প্রজাতির পাখি দেখা গেছে সেগুলো হচ্ছে শামখোল ৪ হাজার ৯২৮টি, ছোট পানকৌড়ি ১ হাজার ৯৪৭টি, পিয়াং হাঁস ১ হাজার ৬৯৯, মরচে রঙ ভুতিহাঁস ১হাজার ৫৪৯টি এবং পাতি কুট ১ হাজার ৪৮০টি। এছাড়া উল্লেখযোগ্য পাখি দেখা গেছে কালাঘাড় মানিকজোড় ১টি, খয়রা কাস্তেচরা ২৭টি, ফুলুরি হাঁস ৪টি, প্রশান্ত সোনাজিরিয়া ৩৬৬টি এবং উত্তুরে টিটি ২৪। গতকাল বুধবার থেকে ২৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত হাকালুকি হাওরে (নাগুয়া লরিবাই বিলের পার্শ্ববর্তী এলাকাতে) আসা পরিযায়ি পাখিদের পায়ে রিং লাগানো হবে। এই রিংয়ের মাধ্যমে পাখিদের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করা হবে।
বাংলার মুখ পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close