¦
বরগুনায় ডায়রিয়ার প্রকোপ

বরগুনা প্রতিনিধি | প্রকাশ : ০৮ এপ্রিল ২০১৫

বরগুনায় ডায়রিয়ার প্রকোপ দেখা দিয়েছে। ১ এপ্রিল থেকে ৭ এপ্রিল দুপুর ২টা পর্যন্ত বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ১৬১ জন রোগী ভর্তি করা হয়েছে। মার্চ মাসে এ হাসপাতালে ২৯৮ জন ডায়রিয়া রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুরে বরগুনা জেনালে হাসপাতাল গিয়ে দেখা যায়, হাসপাতালে ২০ শয্যার ডায়রিয়া ওয়ার্ডে স্থান সংকুলান না হওয়ায় স্যাঁতস্যাঁতে মেঝে, সিঁড়ির দুপাশে, বাড়ান্দায় রেখে রোগীদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। অপরিষ্কার পরিবেশে মশা-মাছি প্রতিনিয়ত ভনভন করছে। হাসপাতালের জরুরি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ৭ দিনে ১৬১ জন ডায়রিয়ার রোগী ভর্তি হন। হাসপাতাল থেকে ডায়রিয়া রোগীরা অভিযোগ করেন, স্যালাইন পাওয়া যাচ্ছে না, বাইরে থেকে কিনে এনে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে। বরগুনা সদর ভূতমারা গ্রামের কনিকা বলেন, ৩ দিন হয় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি, এ পর্যন্ত মাত্র ২টি স্যালাইন পেয়েছি বাকি স্যালাইনগুলো বাইরে থেকে কিনে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে। ডালভাঙ্গা গ্রামের নাজমা বেগম (৩৪) বলেন, ৩ দিন হয় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি, অর্ধেক স্যালাইনই বাইর থেকে কিনতে হয়েছে। এমন ধরনের কথা বললেন, রায়ভোগ গ্রামের লাল মিয়া, পারুল বেগম, বড়ইতলার স্বপনচন্দ্র, লাকুরতলার নুরুন নাহারসহ অনেকেই। হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা আরএমও কামরুল ইসলাম বললেন, স্যালাইনের সংকট আছে তবে যেভাবে বাইরে প্রচার করা হচ্ছে, সেভাবে নয়। আমরা সাধ্যমতো রোগীদের সেবা করে যাচ্ছি। কিছু রোগীকে স্যালাইন কিনতে বলা হলেও কোনো গরিব রোগীকে কিনতে বলি না, আমরা তাদের সঠিকভাবেই স্যালাইন দিয়ে আসছি। বরগুনার সিভিল সার্জন ডা. রুস্তুম আলী যুগান্তর প্রতিনিধিকে বললেন, পরিস্থিতি আমাদের নিয়ন্ত্রণের মধ্যে আছে, স্যালাইনের জন্য প্রতিদিনই চাহিদাপত্র পাঠাচ্ছি, আশা করি স্যালাইনের কোনো সংকট হবে না।
বাংলার মুখ পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close