¦
সার মিশ্রিত পানি অপসারণের কাজ বন্ধ : তদন্ত কমিটির ঘটনাস্থল পরিদর্শন

বাগেরহাট প্রতিনিধি | প্রকাশ : ০৯ মে ২০১৫

বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের ভোলা নদীর বিমলের চর এলাকায় ডুবে যাওয়া সারবোঝাই এমভি জাবালে নূর লাইটারেজ জাহাজটি উদ্ধারের প্রাথমিক কাজ হিসেবে জাহাজের অভ্যন্তরের সার মিশ্রিত পানি অপসারণের কাজ বৃহস্পতিবার রাত ১০ পর বন্ধ হয়ে গেছে। দশ ফুট বিশিষ্ট হোস পাইপ দিয়ে কার্গ্রাে জাহাজের নিচের সার মিশ্রিত পানি তোলা সম্ভব না হওয়ায় এ কাজ বন্ধ রাখা হয়। ২০ ফুট বিশিষ্ট হোর্স পাইপ সেখানে পৌঁছানোর পর আবারও কাজ শুরু হবে বলে শরণখোলা ইউএনও অতুল মণ্ডল জানান। জাহাজটি উদ্ধারের প্রাথমিক কাজের অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার সকালে ডুবন্ত কার্গোর অভ্যন্তরের সার অন্য কার্গোতে সরানোর জন্য বালু উত্তোলনকারী ড্রেজারের মেশিন ব্যবহার করা হয়। এদিকে লাইটারেজ জাহাজ ডুবির ঘটনায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে গঠিত ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পরে শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার অতুল মণ্ডলের কার্যালয়ে ওই কমিটির সদস্যরা পরবর্তী করণীয় বিষয় নিয়ে ঘরোয়া বৈঠক করেছেন বলে জানান এই কমিটির অন্যতম সদস্য শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার অতুল মণ্ডল।
তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার জাহাজটি উদ্ধারের প্রাথমিক কাজ হিসেবে জাহাজের অভ্যন্তরের গলিত সার একটি বালু উত্তোলনকারী ড্রেজার মেশিন দিয়ে অন্য কার্গোতে সরানো কাজ শুরু হয়। বিকালে নদীতে ভাটা থাকায় বেশ জোরেই এগিয়ে চলে গলিত সার অপসারণের প্রক্রিয়া। তবে ১০ ফুট বিশিষ্ট হোস পাইপ দিয়ে কার্গোর নিচের গলিত সার মিশ্রিত পানি আর তোলা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। বৃহস্পতিবার রাত ১০টার পর কাজ বন্ধ রাখতে হয়েছে। ভাটার সময়ে ২০ ফুট বিশিষ্ট হোস পাইপ দিয়ে পুনরায় সার অপসারণের কাজ শুরু করা হবে বলে তিনি জানান।ইউএনও আরও জানান, সার অপসারণের পরই জাহাজটিকে অনত্র সরানোর চিন্তা ভাবনা করা হবে। তিনি বলেন, যেহেতু জাহাজটির তলা ফেটে গেছে তাই এটিকে কিভাবে নদী থেকে উদ্ধার করা হবে সে বিষয় নিয়েও বিআইডব্লিউটিএর কর্মকর্তাদের সঙ্গেও কথা হয়েছে। তিনি জানান, শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করার সময়ে বিআইডব্লিউটিএর দুই কর্মকর্তাও জাহাজটি উদ্ধারের বিষয়ে বাস্তব অবস্থা উপলব্ধি করেছেন। প্রাথমিক কাজ হিসেবে শরণখোলা উপজেলা প্রশাসনের নেতৃত্বে জাহাজটি উদ্ধারের প্রাথমিক কাজ চলছে বলে তিনি জানান।উল্লেখ্য, দুর্ঘটনাকবলিত লাইটারেজ জাহাজটি মংলা বন্দরের অদূরে পশুর নদীর হারবারিয়া এলাকা থেকে ৬৭০ টন পটাশ সার বোঝাই করে ১ মে আশুগঞ্জের উদ্দেশে রওনা দেয়। প্রতিমধ্যে বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জের ভোলা নদীর বিমলের চরে আটকা পড়ে ৪ মে সোমবার সন্ধ্যায় চরে আটকা পড়ে। মঙ্গলবার বিকালে জাহাজটির তলা ফেটে পটাশ সার সুন্দরবনের ভোলা নদীতে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। একপর্যায়ে কার্গোটি কাত হয়ে একটি অংশ ডুবে যায়।
বাংলার মুখ পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close