¦
এক শিক্ষকেই চলছে বিদ্যালয়!

মো. রইছ উদ্দিন, গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) থেকে | প্রকাশ : ০৯ মে ২০১৫

গৌরীপুর উপজেলার সহনাটী ইউনিয়নের পেচাংগীয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম নিয়ে অভিভাবকরা হতাশ! বিস্কুট বিতরণ আর নাম ডেকেই চলে যায় সময়। ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে মাত্র একজন শিক্ষক দিয়ে ২৫২ শিক্ষার্থীর চলছে পাঠদান।
কৃষক আবদুর রহিমের স্বপ্ন ছিল সেলিমকে ডাক্তার বানাবে। ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী আফরোজা আক্তারের চোখে পুলিশ অফিসার হওয়ার স্বপ্ন আঁকছে। ৩য় শ্রেণীর সোহেল হতে চায় পুলিশ। লায়লা আক্তার পছন্দ করেন ডাক্তারের পোশাক। শিক্ষক হতে চায় লিলি। এতো স্বপ্নের বিদ্যাপীঠ! প্রধান শিক্ষক মোঃ ইমাম হোসেন একমাত্র ভরসা। প্রধান শিক্ষক জানান, এ বিদ্যালয়ে চারজন শিক্ষক কর্মরত আছেন। স্বামীর সঙ্গে বিদেশে চলে যাওয়ায় সহকারী শিক্ষক অযুদা বেগম অনুপস্থিত। সহকারী শিক্ষক শিউলী আক্তার বিপিএড প্রশিক্ষণে আর মাতৃত্ব ছুটিতে রয়েছেন সহকারী শিক্ষক সুলতানা বেগম। বিদ্যালয়টিতে শিশু শ্রেণীতে ২৮ জন, ২য় শ্রেণীতে ৪১, ৩য় শ্রেণীতে ৩৫, ৪র্থ শ্রেণীতে ২০ ও ৫ম শ্রেণীতে ১৪ জন ছাত্রছাত্রী রয়েছে। নিয়মিত পাঠদান না হওয়ায় প্রতি বছর কমছে শিক্ষার্থী।
স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের অধীনে নির্মিত বিদ্যালয়ের ভবনটিও ঝুঁকিপূর্ণ। বিমে ফাটল দেখা দিয়েছে। পলেস্তার ধসে পড়ছে। অভিভাবকরা জানান, সকালের শিফটে শিশু শ্রেণী, ১ম ও ২য় শ্রেণীর ৩টি ক্লাস ও দুপুরের শিফটে ৩য়, ৪র্থ ও ৫ম শ্রেণীর ক্লাস অনুষ্ঠিত হয়। একজন শিক্ষক তাদের নাম ডাকা ও বিস্কুট বিতরণ করতে করতেই সময় শেষ হয়ে যায়। পাঠদানের সুযোগ নেই। শিক্ষক সংকটের কারণে ছাত্রছাত্রীর লেখাপড়া ব্যাহত হচ্ছে উল্লেখ করে ম্যানেজিং কমিটি সভাপতি আজিজুল হক জানান, দ্রুত শিক্ষক সমস্যা সমাধানের জন্য উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কাছে আবেদন করেছি। ক্ষুব্ধ অভিভাবক আবদুল হামিদ জানান, আমরার পুলাপান (ছেলেমেয়ে) যাতে মানুষ না হতে পারে, সেই ষড়যন্ত্র এখনও চলছে। এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জহির উদ্দিন জানান ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
বাংলার মুখ পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close