jugantor
হাতিয়ায় সরকারি জমিতে বাড়ি ও মার্কেট নির্মাণের অভিযোগ

  মো. হানিফ, নোয়াখালী থেকে  

২০ অক্টোবর ২০১৫, ০০:০০:০০  | 

নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ হাতিয়ার এমপি আয়েশা ফেরদাউসের স্বামী মোহাম্মদ আলীর বিরুদ্ধে সরকারি জমিতে বাসা ও মার্কেট নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। তিনি আওয়ামী লীগের কোনো পদে না থাকলেও এমপির প্রভাব খাটিয়ে কোটি কোটি টাকার সরকারি খাসজমি দখল করে নিয়েছেন। গরু বাজার অন্যত্র সরিয়ে ১০ তলা মার্কেট নির্মাণ প্রক্রিয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অপরদিকে বন-জলদস্যু বাহিনী দিয়ে চানন্দী, কেয়ারিং চর ও নলের চর প্রশাসনিক ইউনিয়নে হাতিয়া নদী ভাঙনের শিকার ভূমিহীনদের খাসজমি থেকে উচ্ছেদ করে মোহাম্মদ আলী কোটি কোটি টাকার সরকারি জমি দখল করে মৎস্য প্রকল্প গড়ে তুলেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এদিকে হাতিয়া বাজারে খাসজমিতে গড়ে তোলা মোহাম্মদ আলীর অবৈধ ৫ তলা ভবন ভেঙে সরকারি জমি বুঝিয়ে দিতে ভূমি অফিসের পক্ষ থেকে নোটিশ দেয়া হয়েছে। কিন্তু বিষয়টি তোয়াক্কা না করে এই বাজারেই গরু বাজার অন্যত্র সরিয়ে ১০ তলা মার্কেট ভবন নির্মাণ করারও প্রক্রিয়া শুরু করেছেন তিনি। মোহাম্মদ আলীর বিরুদ্ধে কোটি কোটি টাকার সরকারি জমি দখলের অভিযোগে হাতিয়া উপজেলায় ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। মোহাম্মদ আলী একসময় ছিলেন ঠিকাদার। হাতিয়া পৌরসভার প্রকৌশলী মোহাম্মদ ফজলুল আজিম মহিলা কলেজের দক্ষিণসংলগ্ন জরাজীর্ণ একতলা ভবন রয়েছে। তার স্ত্রী এমপির প্রভাব খাটিয়ে ক্ষমতার অপব্যবহার করে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন তিনি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ব্যবসায়ীরা জানান, হাতিয়া বাজারে ৩শ’ ব্যবসায়ীর দোকানঘর রয়েছে। এ বাজারে সরকারি জমিতে মোহাম্মদ আলী ৫ তলা ভবন নির্মাণ করেছেন। একই বাজারে গরু বাজার অন্যত্র সরিয়ে ১০ তলা মার্কেট ভবন নির্মাণের প্রক্রিয়া চলছে। এসি ল্যান্ড অফিসের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কর্মচারীরা জানান, মোহাম্মদ আলী ডালচর, তমরদ্দি, নিঝুম দ্বীপ, কেয়ারিং চর, নলের চর ও চানন্দি ইউনিয়নের শত শত একর সরকারি খাসজমি দখল করে মৎস্য প্রজেক্ট গড়ে তুলেছেন। হাতিয়া উপজেলার সাবেক এমপি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ওয়ালী উল্যাহ ও সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন যুগান্তরকে জানান, মোহাম্মদ আলী আওয়ামী লীগের কোনো পদে নেই। এমপির প্রভাব খাটিয়ে তিনি হাতিয়া বাজারের কোটি কোটি টাকার সরকারি জমিতে ৫ তলা ভবন নির্মাণ করেছেন। একই সময় গরু বাজার অন্যত্র সরিয়ে এখানেও ১০ তলা মার্কেট নির্মাণ প্রক্রিয়া শুরু করেছেন। হাতিয়া উপজেলা আসনের এমপি আয়েশা ফেরদাউস যুগান্তরকে বলেন, হাতিয়া বাজার উন্নয়ন করতে আমার স্বামী ৫ তলা ভবন নির্মাণ করেছেন। এ জমি ইজারা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। মোহাম্মদ আলী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এ বাজারে কোনো ভবন নির্মাণ হয়নি। বাজারের পরিবেশ সুন্দর করতে আমি ৫ তলা ভবন নির্মাণ করেছি। গরু বাজার অন্যত্র সরিয়ে এখানে মার্কেট নির্মাণের প্রক্রিয়া চলছে। তবে ভবন ও মার্কেট নির্মাণের জমি ইজারা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। হাতিয়া উপজেলার এসি ল্যান্ড পঙ্কজ বড়–য়া বলেন, সরকারি জমিতে মোহাম্মদ আলীর করা ৫ তলা ভবন ভেঙে দেয়ার নোটিশ দিয়ে জেলা প্রসাশক ও অতিরিক্ত জেলা প্রসাশককেও (রাজস্ব) অবহিত করা হয়েছে।



সাবমিট

হাতিয়ায় সরকারি জমিতে বাড়ি ও মার্কেট নির্মাণের অভিযোগ

 মো. হানিফ, নোয়াখালী থেকে 
২০ অক্টোবর ২০১৫, ১২:০০ এএম  | 
নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ হাতিয়ার এমপি আয়েশা ফেরদাউসের স্বামী মোহাম্মদ আলীর বিরুদ্ধে সরকারি জমিতে বাসা ও মার্কেট নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। তিনি আওয়ামী লীগের কোনো পদে না থাকলেও এমপির প্রভাব খাটিয়ে কোটি কোটি টাকার সরকারি খাসজমি দখল করে নিয়েছেন। গরু বাজার অন্যত্র সরিয়ে ১০ তলা মার্কেট নির্মাণ প্রক্রিয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অপরদিকে বন-জলদস্যু বাহিনী দিয়ে চানন্দী, কেয়ারিং চর ও নলের চর প্রশাসনিক ইউনিয়নে হাতিয়া নদী ভাঙনের শিকার ভূমিহীনদের খাসজমি থেকে উচ্ছেদ করে মোহাম্মদ আলী কোটি কোটি টাকার সরকারি জমি দখল করে মৎস্য প্রকল্প গড়ে তুলেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এদিকে হাতিয়া বাজারে খাসজমিতে গড়ে তোলা মোহাম্মদ আলীর অবৈধ ৫ তলা ভবন ভেঙে সরকারি জমি বুঝিয়ে দিতে ভূমি অফিসের পক্ষ থেকে নোটিশ দেয়া হয়েছে। কিন্তু বিষয়টি তোয়াক্কা না করে এই বাজারেই গরু বাজার অন্যত্র সরিয়ে ১০ তলা মার্কেট ভবন নির্মাণ করারও প্রক্রিয়া শুরু করেছেন তিনি। মোহাম্মদ আলীর বিরুদ্ধে কোটি কোটি টাকার সরকারি জমি দখলের অভিযোগে হাতিয়া উপজেলায় ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। মোহাম্মদ আলী একসময় ছিলেন ঠিকাদার। হাতিয়া পৌরসভার প্রকৌশলী মোহাম্মদ ফজলুল আজিম মহিলা কলেজের দক্ষিণসংলগ্ন জরাজীর্ণ একতলা ভবন রয়েছে। তার স্ত্রী এমপির প্রভাব খাটিয়ে ক্ষমতার অপব্যবহার করে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন তিনি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ব্যবসায়ীরা জানান, হাতিয়া বাজারে ৩শ’ ব্যবসায়ীর দোকানঘর রয়েছে। এ বাজারে সরকারি জমিতে মোহাম্মদ আলী ৫ তলা ভবন নির্মাণ করেছেন। একই বাজারে গরু বাজার অন্যত্র সরিয়ে ১০ তলা মার্কেট ভবন নির্মাণের প্রক্রিয়া চলছে। এসি ল্যান্ড অফিসের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কর্মচারীরা জানান, মোহাম্মদ আলী ডালচর, তমরদ্দি, নিঝুম দ্বীপ, কেয়ারিং চর, নলের চর ও চানন্দি ইউনিয়নের শত শত একর সরকারি খাসজমি দখল করে মৎস্য প্রজেক্ট গড়ে তুলেছেন। হাতিয়া উপজেলার সাবেক এমপি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ওয়ালী উল্যাহ ও সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন যুগান্তরকে জানান, মোহাম্মদ আলী আওয়ামী লীগের কোনো পদে নেই। এমপির প্রভাব খাটিয়ে তিনি হাতিয়া বাজারের কোটি কোটি টাকার সরকারি জমিতে ৫ তলা ভবন নির্মাণ করেছেন। একই সময় গরু বাজার অন্যত্র সরিয়ে এখানেও ১০ তলা মার্কেট নির্মাণ প্রক্রিয়া শুরু করেছেন। হাতিয়া উপজেলা আসনের এমপি আয়েশা ফেরদাউস যুগান্তরকে বলেন, হাতিয়া বাজার উন্নয়ন করতে আমার স্বামী ৫ তলা ভবন নির্মাণ করেছেন। এ জমি ইজারা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। মোহাম্মদ আলী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এ বাজারে কোনো ভবন নির্মাণ হয়নি। বাজারের পরিবেশ সুন্দর করতে আমি ৫ তলা ভবন নির্মাণ করেছি। গরু বাজার অন্যত্র সরিয়ে এখানে মার্কেট নির্মাণের প্রক্রিয়া চলছে। তবে ভবন ও মার্কেট নির্মাণের জমি ইজারা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। হাতিয়া উপজেলার এসি ল্যান্ড পঙ্কজ বড়–য়া বলেন, সরকারি জমিতে মোহাম্মদ আলীর করা ৫ তলা ভবন ভেঙে দেয়ার নোটিশ দিয়ে জেলা প্রসাশক ও অতিরিক্ত জেলা প্রসাশককেও (রাজস্ব) অবহিত করা হয়েছে।



 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র