jugantor
পূর্বধলায় ৩৫ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য

  বোয়ালমারী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি  

২০ অক্টোবর ২০১৫, ০০:০০:০০  | 

নূর আহাম্মদ খান রতন, পূর্বধলা (নেত্রকোনা) থেকে

নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার ৩৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের পদ দীর্ঘদিন ধরে শূন্য রয়েছে। ফলে বিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কার্যক্রমসহ পড়ালেখার ক্ষতি হচ্ছে। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় নতুন জাতীয়করণ করা ৮১টিসহ মোট ১৫৬টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে ১৫টি পুরাতন ও ২০টি নতুন জাতীয়করণ করা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে। পুরাতন সরকারি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের চাকরির মেয়াদ শেষ হলে ওই বিদ্যালয়ে কোনো প্রধান শিক্ষক পদায়ন করা হয়নি। এর মধ্যে রয়েছে- তেনুয়া, ইসবপুর, ধলা যাত্রাবাড়ী, ইচুলিয়া, আগিয়া, মেঘশিমুল, দত্তকুনিয়া, পাবই, কুড়িকুনিয়া, খাটুয়ারি, লেটিরকান্দা, কালিহর, মহেষপট্টি, গোপিনাথখিলা ও ধলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। নতুন জাতীয়করণ বিদ্যালয়ের মধ্যে খামারহাটি, গোহালাকান্দা, হাতিনাকান্দা, হবিবপুর, উকুয়াকান্দা, জটিয়াবর, তারাকান্দা, দেবকান্দা, সানকিডুয়ারী, পূর্ব ভিকুনিয়া, চাঁনপুর চাদপুকুরিয়া, কামালপুর, এরুয়ারচর, এরশাদ, কাঠাখালী, কালিহর পূর্বপাড়া, ভবানীপুর, জামুদ, নাটেরকোনা ও নারান্দিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এসব বিদ্যালয়ের একজন সহকারী শিক্ষককে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব দিয়ে দাফতরিক কাজ চালানো হচ্ছে। কয়েকজন ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক যুগান্তরকে বলেন, প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য থাকায় দাফতরিক কাজের জন্য প্রায়ই উপজেলা সদরে যেতে হয়। দু’জন শিক্ষকের ঘাটতি পুষিয়ে নেয়া কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ে। ফলে পড়ালেখার বিঘ্ন ঘটে।



সাবমিট

পূর্বধলায় ৩৫ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য

 বোয়ালমারী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি 
২০ অক্টোবর ২০১৫, ১২:০০ এএম  | 
নূর আহাম্মদ খান রতন, পূর্বধলা (নেত্রকোনা) থেকে

নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার ৩৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের পদ দীর্ঘদিন ধরে শূন্য রয়েছে। ফলে বিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কার্যক্রমসহ পড়ালেখার ক্ষতি হচ্ছে। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় নতুন জাতীয়করণ করা ৮১টিসহ মোট ১৫৬টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে ১৫টি পুরাতন ও ২০টি নতুন জাতীয়করণ করা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে। পুরাতন সরকারি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের চাকরির মেয়াদ শেষ হলে ওই বিদ্যালয়ে কোনো প্রধান শিক্ষক পদায়ন করা হয়নি। এর মধ্যে রয়েছে- তেনুয়া, ইসবপুর, ধলা যাত্রাবাড়ী, ইচুলিয়া, আগিয়া, মেঘশিমুল, দত্তকুনিয়া, পাবই, কুড়িকুনিয়া, খাটুয়ারি, লেটিরকান্দা, কালিহর, মহেষপট্টি, গোপিনাথখিলা ও ধলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। নতুন জাতীয়করণ বিদ্যালয়ের মধ্যে খামারহাটি, গোহালাকান্দা, হাতিনাকান্দা, হবিবপুর, উকুয়াকান্দা, জটিয়াবর, তারাকান্দা, দেবকান্দা, সানকিডুয়ারী, পূর্ব ভিকুনিয়া, চাঁনপুর চাদপুকুরিয়া, কামালপুর, এরুয়ারচর, এরশাদ, কাঠাখালী, কালিহর পূর্বপাড়া, ভবানীপুর, জামুদ, নাটেরকোনা ও নারান্দিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এসব বিদ্যালয়ের একজন সহকারী শিক্ষককে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব দিয়ে দাফতরিক কাজ চালানো হচ্ছে। কয়েকজন ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক যুগান্তরকে বলেন, প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য থাকায় দাফতরিক কাজের জন্য প্রায়ই উপজেলা সদরে যেতে হয়। দু’জন শিক্ষকের ঘাটতি পুষিয়ে নেয়া কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ে। ফলে পড়ালেখার বিঘ্ন ঘটে।



 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র