jugantor
শ্রীপুরে নিখোঁজের ছয়দিন পর অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রীর লাশ উদ্ধার

   

২৮ জানুয়ারি ২০১৪, ১১:৪৭:৫৯  | 

শ্রীপুর (গাজীপুর), ২৮ জানুয়ারি: নিখোঁজের ছয়দিন পর মাসুমা আক্তার মনি (১৩) নামে এক স্কুল ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ২৮ জানুয়ারি মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় ওই ছাত্রীর বাড়ির পাশের পুকুর থেকে গাজীপুরের শ্রীপুর মডেল থানা পুলিশ ওই ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করে। সে গাজীপুরের শ্রীপুর পৌর এলাকার বেড়াইদেরচালা গ্রামের মতলব হোসেনের একমাত্র কন্যা ও স্থানীয় আবেদ আলী গার্লস হাই স্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। লাশ উদ্ধারের সময় তার পরনে বিদ্যালয়ের ইউনিফর্ম ছিল।
ছাত্রীর মা বিলকিস আক্তার জানান, ২৪ জানুয়ারি গাজীপুর সদর উপজেলার শিরিরচালা গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে নাঈম (২১) মেয়ে নিখোঁজে হওয়ার বিষয়ে বেশি বাড়াবাড়ি না করার জন্য মুঠোফোনে তাকে হুমকি দেন। বাড়াবাড়ি করলে তাদের পরিবারের এবং মেয়েরই ক্ষতি হবে।
আবেদ আলী গার্লস হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মতিউর রহমান জানান, মাসুমা আক্তার মণি বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্রী হিসেবে পরিচিত ছিল। বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আমরা এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমুলক বিচার দাবি করছি।
শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মজিবুর রহমান জানান, হুমকির পর তার বাবা মতলব হোসেন বাদী হয়ে নাঈম ও তার প্রতিবেশী আব্দুল আজিজজের ছেলে বন্ধু সেলিমকে অভিযুক্ত করে ২৫ জানুয়ারী শ্রীপুর থানায় নারী নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর গ্রেফতারের জন্য অভিযুক্তদের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়েছে। তবে তাদের সকলেই বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ায় গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।  
শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন জানান, ওই ছাত্রী গত ২২ জানুয়ারি বিদ্যালয় ছুটির পর আর বাড়ি ফিরেনি। অনেক খোঁজাখুজি করে তার বাবা মতলব হোসেন ২৩ জানুয়ারি কাউকে অভিযুক্ত না করে শ্রীপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।
 

সাবমিট

শ্রীপুরে নিখোঁজের ছয়দিন পর অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রীর লাশ উদ্ধার

  
২৮ জানুয়ারি ২০১৪, ১১:৪৭ এএম  | 

শ্রীপুর (গাজীপুর), ২৮ জানুয়ারি: নিখোঁজের ছয়দিন পর মাসুমা আক্তার মনি (১৩) নামে এক স্কুল ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ২৮ জানুয়ারি মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় ওই ছাত্রীর বাড়ির পাশের পুকুর থেকে গাজীপুরের শ্রীপুর মডেল থানা পুলিশ ওই ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করে। সে গাজীপুরের শ্রীপুর পৌর এলাকার বেড়াইদেরচালা গ্রামের মতলব হোসেনের একমাত্র কন্যা ও স্থানীয় আবেদ আলী গার্লস হাই স্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। লাশ উদ্ধারের সময় তার পরনে বিদ্যালয়ের ইউনিফর্ম ছিল।
ছাত্রীর মা বিলকিস আক্তার জানান, ২৪ জানুয়ারি গাজীপুর সদর উপজেলার শিরিরচালা গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে নাঈম (২১) মেয়ে নিখোঁজে হওয়ার বিষয়ে বেশি বাড়াবাড়ি না করার জন্য মুঠোফোনে তাকে হুমকি দেন। বাড়াবাড়ি করলে তাদের পরিবারের এবং মেয়েরই ক্ষতি হবে।
আবেদ আলী গার্লস হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মতিউর রহমান জানান, মাসুমা আক্তার মণি বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্রী হিসেবে পরিচিত ছিল। বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আমরা এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমুলক বিচার দাবি করছি।
শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মজিবুর রহমান জানান, হুমকির পর তার বাবা মতলব হোসেন বাদী হয়ে নাঈম ও তার প্রতিবেশী আব্দুল আজিজজের ছেলে বন্ধু সেলিমকে অভিযুক্ত করে ২৫ জানুয়ারী শ্রীপুর থানায় নারী নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর গ্রেফতারের জন্য অভিযুক্তদের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়েছে। তবে তাদের সকলেই বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ায় গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।  
শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন জানান, ওই ছাত্রী গত ২২ জানুয়ারি বিদ্যালয় ছুটির পর আর বাড়ি ফিরেনি। অনেক খোঁজাখুজি করে তার বাবা মতলব হোসেন ২৩ জানুয়ারি কাউকে অভিযুক্ত না করে শ্রীপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।
 

 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র