jugantor
ঢামেকে ছাত্রলীগের সাথে ইন্টার্নী চিকিৎসকদের পাল্টাপাল্টি হামলা
চিকিৎসকদের হামলায় সাংবাদিক আহত

   

০৬ মে ২০১৪, ১৬:৩৮:১১  | 

ঢাকা ৬ মে : ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদুল্লাহ হলের এক ছাত্রলীগ নেতার সমর্থকরা ভাঙচুর চালিয়েছে। এ ঘটনায় ইন্টার্নি চিকিৎসকদের সাথে ছাত্রলীগের পাল্টাপাল্টি কয়েক দফা হামলার ঘটনা ঘটেছে। লিফটে উঠাকে কেন্দ্র করে হাসপাতালে তিনবার হামলার ঘটনা ঘটে। এতে হাসপাতালে চিকিৎসাসহ রোগী দেখাসহ সব কার্যক্রম বন্ধ করে দেয় ডাক্তার ও নার্সরা।
এদিকে ভাংচুরের ছবি তুলতে গেলে সাংবাদিকদের ওপর চড়াও হয় ইন্টার্নী ডাক্তাররা। তাদের তাদের হামলায় এটিএন নিউজের ক্যামেরা পার্সন হিমেল গুরুতর আহত হন। এসময় সংবাদকর্মীদের হাসপাতালের ভেতরে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। হাসপাতালের প্রধান গেটসহ জরুরী বিভাগের গেট বন্ধ ও রোগীদের চিকিৎসা বন্ধ করে দেয়া হয়।
পরে বেলা সোয়া ৪টায় হাসপাতালের পরিচালক সকল পক্ষের সঙ্গে সংক্ষিপ্ত বৈঠক শেষে ঘটনার জন্য দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়ে হাসপাতালের প্রাধান গেটসহ জরুরি বিভাগের গেট খুলে দেন এবং চিকিৎসা সেবা শুরুর নির্দেশ দেন।
এছাড়া চিকিৎসকদের হামলায় কয়েকজন সাংবাদিক আহত হওয়ার বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন ঢামেক পরিচালক।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, শহীদুল্লাহ হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মিরাজের মা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন। তাকে দেখতে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে জসিম ও আশিকুল নামে দুজন হাসপাতালে যান। এরপর তারা হাসপাতালের চিকিৎসক ও স্টাফদের লিফটে ওঠেন। এ নিয়ে চিকিৎসকদের সাথে তাদের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায় তাদের দুজনকে মারপিট করেন চিকিৎসকরা। এতে জসিমের মাথা ও ঠোট কেটে যায়। পিঠে গুরুতর আঘাত পান আশিকুল। তাদেরকে হাসপাতালের ক্যাজুয়াাল্টি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে।
এই ঘটনার জের ধরে দুপুর সোয়া ১টার দিকে মিরাজের সমর্থক শহীদুল্লাহ হলের ২০-২৫ জন ছাত্রলীগ কর্মী লাঠি ও রড নিয়ে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে হামলা চালায়। ৩-৪ মিনিট জরুরি বিভাগের জানালার গ্লাস ভেঙে চলে যায় তারা। এসময় আতঙ্কে ছোটাছুটি শুরু করেন হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের স্বজনরা। এসময় ক্যামেরা নিয়ে ছবি তুলতে গিয়ে সাংবাদিকদের মারতে আসেন ইন্টার্নী চিকিৎসকরা। তারা লাঠি সোটা হাতে নিয়ে সাংবাদিকদের গেট থেকে তাড়িয়ে দেয়।
হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক মোজ্জাম্মেল হক জানান, আহত জসিম ও আশিকুলকে হাসপাতালের ক্যাজুয়াল্টি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে।
 
 

সাবমিট

ঢামেকে ছাত্রলীগের সাথে ইন্টার্নী চিকিৎসকদের পাল্টাপাল্টি হামলা

চিকিৎসকদের হামলায় সাংবাদিক আহত
  
০৬ মে ২০১৪, ০৪:৩৮ পিএম  | 

ঢাকা ৬ মে : ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদুল্লাহ হলের এক ছাত্রলীগ নেতার সমর্থকরা ভাঙচুর চালিয়েছে। এ ঘটনায় ইন্টার্নি চিকিৎসকদের সাথে ছাত্রলীগের পাল্টাপাল্টি কয়েক দফা হামলার ঘটনা ঘটেছে। লিফটে উঠাকে কেন্দ্র করে হাসপাতালে তিনবার হামলার ঘটনা ঘটে। এতে হাসপাতালে চিকিৎসাসহ রোগী দেখাসহ সব কার্যক্রম বন্ধ করে দেয় ডাক্তার ও নার্সরা।
এদিকে ভাংচুরের ছবি তুলতে গেলে সাংবাদিকদের ওপর চড়াও হয় ইন্টার্নী ডাক্তাররা। তাদের তাদের হামলায় এটিএন নিউজের ক্যামেরা পার্সন হিমেল গুরুতর আহত হন। এসময় সংবাদকর্মীদের হাসপাতালের ভেতরে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। হাসপাতালের প্রধান গেটসহ জরুরী বিভাগের গেট বন্ধ ও রোগীদের চিকিৎসা বন্ধ করে দেয়া হয়।
পরে বেলা সোয়া ৪টায় হাসপাতালের পরিচালক সকল পক্ষের সঙ্গে সংক্ষিপ্ত বৈঠক শেষে ঘটনার জন্য দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়ে হাসপাতালের প্রাধান গেটসহ জরুরি বিভাগের গেট খুলে দেন এবং চিকিৎসা সেবা শুরুর নির্দেশ দেন।
এছাড়া চিকিৎসকদের হামলায় কয়েকজন সাংবাদিক আহত হওয়ার বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন ঢামেক পরিচালক।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, শহীদুল্লাহ হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মিরাজের মা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন। তাকে দেখতে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে জসিম ও আশিকুল নামে দুজন হাসপাতালে যান। এরপর তারা হাসপাতালের চিকিৎসক ও স্টাফদের লিফটে ওঠেন। এ নিয়ে চিকিৎসকদের সাথে তাদের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায় তাদের দুজনকে মারপিট করেন চিকিৎসকরা। এতে জসিমের মাথা ও ঠোট কেটে যায়। পিঠে গুরুতর আঘাত পান আশিকুল। তাদেরকে হাসপাতালের ক্যাজুয়াাল্টি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে।
এই ঘটনার জের ধরে দুপুর সোয়া ১টার দিকে মিরাজের সমর্থক শহীদুল্লাহ হলের ২০-২৫ জন ছাত্রলীগ কর্মী লাঠি ও রড নিয়ে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে হামলা চালায়। ৩-৪ মিনিট জরুরি বিভাগের জানালার গ্লাস ভেঙে চলে যায় তারা। এসময় আতঙ্কে ছোটাছুটি শুরু করেন হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের স্বজনরা। এসময় ক্যামেরা নিয়ে ছবি তুলতে গিয়ে সাংবাদিকদের মারতে আসেন ইন্টার্নী চিকিৎসকরা। তারা লাঠি সোটা হাতে নিয়ে সাংবাদিকদের গেট থেকে তাড়িয়ে দেয়।
হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক মোজ্জাম্মেল হক জানান, আহত জসিম ও আশিকুলকে হাসপাতালের ক্যাজুয়াল্টি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে।
 
 

 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র