¦

এইমাত্র পাওয়া

  • সমাবেদনা জানাতে আসায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া || প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানাতে কার্যালয়ের কেউ এগিয়ে আসেননি: প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী মাহবুবুল হক শাকিল
ফিরে গেলেন প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক, ২৪ জানুয়ারি | প্রকাশ : ২৪ জানুয়ারি ২০১৫

ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যুতে স্তব্ধ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সমবেদনা জানাতে গুলশান কার্যালয়ে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কিন্তু কার্যালয়ের গেট বন্ধ থাকায় তার সঙ্গে দেখা করতে পারেননি প্রধানমন্ত্রী।
৮টা ৩৫ মিনিটে প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহর গুলশান কার্যালয়ের সামনে পৌঁছায়। তার সঙ্গে ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদসহ শীর্ষ নেতারা। এরপর বিএনপি চেয়ারপার্সনের বিশেষ সহকারী শিমুল বিশ্বাসের সঙ্গে কথা বলেন আমু-তোফায়েলসহ এসএসএফ সদস্যরা। তারা শিমুল বিশ্বাসের সঙ্গে কথা বলার পর ৮টা ৪০ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী গাড়িবহরটি ফিরে যায়।
তবে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, 'সব প্রটোকল ভেঙে প্রধানমন্ত্রী মানবিক কারণে বিএনপি চেয়ারপার্সনের সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন। কিন্তু ভেতর থেকে গেট না খোলায় তিনি কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে চলে যান। এটা ভদ্রজনোচিত নয়। এমনকি এটা রাজনৈতিক শিষ্টাচারবহির্ভূত।'
এর আগে শনিবার রাত ৮টা ২২ মিনিটে গুলশান কার্যালয়ের সামনে শিমুল বিশ্বাস সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যুর খবর শুনে অসুস্থতা বোধ করায় তাকে ঘুমের ইনজেকশন দিয়েছেন চিকিৎসক।
২০০৯ সালের মে মাসে শেখ হাসিনার স্বামী ড. ওয়াজেদ মিয়ার মৃত্যুর পর ধানমণ্ডির সুধা সদনে গিয়েছিলেন খালেদা জিয়া। সে সময় তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সমবেদনা জানান এবং দুই নেত্রীর মধ্যে কিছুক্ষণ কথাও হয়।
প্রসঙ্গত, শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় মালয়েশিয়ার ইউনিভার্সিটি মালায়া হাসপাতালে নেয়ার পথে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান কোকো।  রোববার বাদ জোহর মালয়েশিয়ার জাতীয় মসজিদে নামাজে জানাজা শেষে সোমবার তার লাশ দেশে আসার কথা রয়েছে।

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close