¦
রোববার থেকে ৭২ ঘণ্টা হরতাল- বিপাকে শিক্ষার্থীরা

ঢাকা, ৭ ফেব্রুয়ারি: | প্রকাশ : ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

ক্রসফায়ারের মাধ্যমে নেতাকর্মীকে হত্যা, ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবিতে রোববার থেকে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের টানা ৭২ ঘণ্টা হরতাল। রোববার সকাল ৬টা থেকে শুরু হওয়া এ হরতাল চলবে বুধবার সকাল ৬টা পর্যন্ত। এদিকে এসএসসি পরীক্ষার মধ্যে একের পর এক টানা হরতালে বিপাকে পড়েছে দেশের ১৫ লাখ শিক্ষার্থীরা।
শুক্রবার রাতে দলের যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদ  জোটের পক্ষে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ৭২ ঘণ্টার হরতাল কর্মসূচি ঘোষণা করেন। এতে বলা বলা হয়, দেশব্যাপী ক্রসফায়ারের মাধ্যমে অসংখ্য নেতাকর্মীকে হত্যা, গুলি করে পঙ্গু ও আহত করা, গণগ্রেফতার, জনগণের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবি, বিচার ব্যবস্থায় হস্তক্ষেপ ও কুক্ষিগতকরণের প্রতিবাদ, গণমাধ্যমে হস্তক্ষেপ, গ্রেফতারকৃত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবসহ বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের সিনিয়র নেতা ও সকল রাজবন্দীদের মুক্তির দাবিতে এই হরতাল ডাকা হয়েছে।
শনিবার গণমাধ্যমে পাঠানো অপর এক বিবৃতিতে সালাহ উদ্দিন বলেন, গণতন্ত্র মুক্তি আন্দোলনের বিজয় অর্জিত না হওয়া পর্যন্ত চলমান অনির্দিষ্টকালের শান্তিপূর্ণ অবরোধ কর্মসূচির পাশাপাশি রোববার সকাল ৬টা থেকে বুধবার সকাল ৬টা পর্যন্ত দেশব্যাপী ৭২ ঘণ্টার সর্বাত্মক হরতাল পালন করা হবে। তিনি দেশবাসীকে শান্তিপূর্ণভাবে পালনের আহ্বান জানান।
এদিকে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের টানা হরতালে বিপাকে পড়েছেন এসএসসি ও সমমানের ১৫ লাখ পরীক্ষার্থী। ইতিমধ্যে চার দিনের নির্ধারিত ২০টি বিষয়ের পরীক্ষা হরতালের কারণে চার দিনে পেছানো হলো।
গত ২ ফেব্রুয়ারি পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও হরতালের কারণে তা পেছানো হয়। এ পরীক্ষা নেয়া হয়। একই ভাবে ৪ ফেব্রুয়ারির পরীক্ষা নেয়া হয় ৬ ফেব্রুয়ারি। রোববার থেকে আবারো ৭২ ঘন্টার হরতাল ডাকায় আগামীকাল রোববার ও মঙ্গলবারের পরীক্ষা পেছানো হয়েছে। এ পরীক্ষা নেয়া হবে যথাক্রমে ১৩ ও ১৪ ফেব্রুয়ারি। শনিবার বিকেলে ৪টায় চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান।
শিক্ষামন্ত্রীর করজোড় অনুরোধও উপেক্ষা করলো বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট। আগামীকাল রোববার সকাল ৬টা থেকে ৭২ ঘণ্টার হরতাল দিয়েছে তারা। ফলে বাধ্য হয়ে এসএসসি পরীক্ষার তৃতীয় ও চতুর্থ দিনের আটটি পরীক্ষাও পেছানো হলো। রোববার ৮ ফেব্রুয়ারি নির্ধারিত পরীক্ষা আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) এবং ১০ ফেব্রুয়ারির পরীক্ষা ১৪ ফেব্রুয়ারি শনিবার অনুষ্ঠিত হবে। শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে ১২টা এবং শনিবার সকাল শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীদের জীবনের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করেই পরীক্ষা পেছানোর এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তাদের জীবনের নিরাপত্তা সর্বাধিক গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করতে হবে। হরতাল-অবরোধের মধ্যে পরীক্ষা নিয়ে নেওয়ার চাপ থাকা সত্ত্বেও শিক্ষার্থীদের ঝুঁকির কথা বিবেচনা করে পরীক্ষা পেছানো হয়েছে। ২০ দলীয় জোটের নেতাদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমাদের শিক্ষা পরীক্ষার্থীদের বিনীত আবেদন, আপনারা অন্তত পরীক্ষার দিনটি হরতালমুক্ত রাখুন।
এবার সারাদেশে ৩ হাজার ১১৬টি কেন্দ্রে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে। ১০টি শিক্ষা বোর্ডের মোট পরীক্ষার্থী ১৪ লাখ ৭৯ হাজার ২৬৬ জন। তবে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার প্রথম দিনেই সারাদেশে ৭ হাজার ২৭৭ পরীক্ষার্থী অংশ নেয়নি।

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close