¦
১০ লাখ আইটি পেশাদার তৈরি করা হবে: জয়

ঢাকা, ১০ ফেব্রুয়ারি: | প্রকাশ : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

আগামী ৫ বছরে দেশে ১০ লাখ আইটি পেশাদার তৈরি করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৫’-এর মিনিস্ট্রিয়াল কনফারেন্সে প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে তিনি এ কথা জানান।
বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমানের সঞ্চালনায় মিনিস্ট্রিয়াল কনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, আন্তর্জাতিক টেলিযোগাযোগ ইউনিয়নের মহাসচিব হাওলিন ঝাও, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক প্রমুখ। অনুষ্ঠানে নেপাল ও ভুটানের মন্ত্রীরাও উপস্থিত ছিলেন।
আগামী ৫ বছরের মধ্যে প্রতিবছর এক কোটি করে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী বাড়বে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি উপদেষ্টা বলেন, বর্তমানে জনসংখ্যার ৬৫ শতাংশের বয়স ২৫ বছরের নিচে। জনসংখ্যার এই বিশাল অংশ তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে প্রচণ্ড আগ্রহী।
জয় বলেন, ২০০৮ সালে দেশে দারিদ্র্যের হার ছিল ৪০ শতাংশ। ২০১৪ সালে এই হার হ্রাস পেয়ে ২৬ শতাংশ হয়েছে। আর সাক্ষরতার হার ছিল ৪৯ শতাংশ। তাকে ৬৫ শতাংশে নিয়ে এসেছে বর্তমান সরকার। সারা দেশে ইলেকট্রিসিটি গ্রিড ২৭ থেকে ৬২ শতাংশ, ইন্টারনেট ০.৪ শতাংশ থেকে ২৭ শতাংশ, মোবাইল ফোন গ্রাহক ২০ মিলিয়ন থেকে ১২০ মিলিয়নে উন্নীত হয়েছে।
সারা দেশে ৫৩ হাজার ডিজিটাল সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে উল্লেখ করে জয় আরো বলেন, এই সেন্টারগুলোর মাধ্যমে সাধারণ মানুষ জন্ম-মৃত্যুনিবন্ধন, ভূমি রেকর্ড, পরীক্ষার ফলাফল, সরকারি বিভিন্ন ফরম, মোবাইল ব্যাংকিং, লাইফ ইন্স্যুরেন্স, ইংরেজি শিক্ষা, স্বাস্থ্য পরামর্শসহ বিভিন্ন তথ্য সহায়তা নিতে পারছে। সব মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের সঙ্গে জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে ইন্টারনেট যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থাপন করা হচ্ছে। এসবের পাশাপাশি, কালিয়াকৈরে হাইটেক পার্ক করা হয়েছে। এ ছাড়াও সব গুরুত্বপূর্ণ শহরে ১২টি হাইটেক পার্ক করার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close