¦
জরুরি অবস্থা জারি করে সমাধান সম্ভব নয়-এরশাদ

রংপুর ব্যুরো ১২ ফেব্রুয়ারি | প্রকাশ : ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ বলেছেন, দেশে রাজনৈতিক সহিংসতায় প্রতিদিন মানুষ পুড়িয়ে নির্মমভাবে হত্যা করা হচ্ছে। নারী-শিশুরাও রক্ষা পাচ্ছে না।  নাশকতা চলছে, দেশের আমদানী রপ্তানী প্রায় বন্ধ। অর্থনীতি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। দেশ স্থবির হয়ে পড়েছে।
বৃহস্পতবিার রংপুরে ৩ দিনে সফরে সার্কিট হাউসে সাংবাদিকদের সাথে তনিি এ কথা বলেন।
এ অবস্থার জন্য দু’টি রাজনৈতিক দলই দায়ী। এ ধ্বংসের হাত থেকে দেশ ও মানুষ বাঁচাতে দুই দলকেই সমাধানের পথে আসতে হবে। তা না হলে দেশে কি হবে তা অনিশ্চিত। এ অবস্থা চলতে দেয়া যায় না। আমি মনে করি না যে জরুরী অবস্থা জারী করে এর সমাধান সম্ভব।
এ সময়  পার্টির জেলা কমিটির আহ্বয়াক ও সাবেক সংসদ সদস্য মোফাজ্জল হেসেন মাস্টার, মহানগর কমিটির আহ্বায়ক সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, সদস্য সচিব এসএম ইয়াসিরসহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
তিনি ক্ষোভের সাথে বলেন, আমাকে কারাগারে নেয়ার পর শুরু হয় প্রতিহিংসার রাজনীতি। যার শিকার এখন দেশবাসী। বিএনপি-জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যারা বলছেন এটি করলে সব সমস্যার সমাধান হবে। তা ঠিক নয়। নিবন্ধন বাতিল হলে কি ওই সব দল নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এরশাদ বলেন, ক্রস ফায়ারে মানুষ মরছে। সরকারতো সকল প্রচেষ্টা চালাচ্ছে মানুষের জীবন বাঁচাতে। কিন্তু তাতেও কি হচ্ছে। দু’দলকে বসেই এই অবস্থা থেকে দেশের মানুষকে বাঁচাতে সমাধানের উদ্যোগ নিতে হবে। তিনি বলেন, জরুরী অবস্থা জারী করে এর সমাধান সম্ভব নয়। প্রধানমন্ত্রীও তাই মনে করেন। রাজনৈতিক সমস্যার সমাধান রাজনৈতিভাবে রাজনীতিবিদদের ঠিক করতে হবে। অন্য কোন উপায়ে নয়।
নাগরিকদের পক্ষে সংকট সমাধানের উদ্যোগ গ্রহন করছেন  এটা ভাল লক্ষণ। বিএনপি’র উদ্দেশ্যে তিনি বলেন বিদ্যুৎ, গ্যাস, সারসংকটসহ নাগরিক সমস্যা নিয়ে নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন করলে আমরাও তাতে সমর্থন দেব।
দেশের এই অবস্থায় এরশাদ মনে করেন জাতীয় পার্টিকে দেশের মানুষ ক্ষমতায় দেখতে চায়। তাই মার্চ মাস থেকে জেলায় জেলায় সফর করবেন। নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে দলের নেতকর্মীদের চাঙা করার উদ্যোগ নেবেন বলে তিনি জানান।
 

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close