¦
আদালতের আদেশ দিয়ে গণতান্ত্রিক আন্দোলন স্তব্ধ করা যায় না

ঢাকা ১৬ ফেব্রুয়ারি: | প্রকাশ : ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

বিএনপির মুখপাত্র সালাহ উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, আদালতের আদেশ দিয়ে গণতান্ত্রিক আন্দোলন কখনো স্তব্ধ করা যায় না।

সোমবার এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘বর্তমানে রাষ্ট্রের সকল অঙ্গই শাসন বিভাগের হাতে বন্দী, এক ব্যক্তির ইচ্ছার প্রতিফলন হচ্ছে বিচার বিভাগ, আইন বিভাগ ও শাসন বিভাগে।
তিনি বলেন, বিচার বিভাগকে বিরোধী দল ও ভিন্নমত দমনের হাতিয়ারে পরিণত করেছে সরকার। ফলে রাষ্ট্রীয় নৈরাজ্যের চুড়ান্ত শিকারে পরিণত হয়েছে আজ দেশ ও জাতি।
হরতাল অবরোধে সহিংসতা রোধে পদক্ষেপ নিতে হাইকোর্টের নির্দেশনার একদিন পর বিএনপির পক্ষে এ প্রতিক্রিয়া জানান তিনি।
বিবৃতিতে সালাউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘ন্যায্য গণতন্ত্র পূণ:রুদ্ধারের আন্দোলনকে দমনের শেষ চেষ্টা হিসেবে আদালতকে ব্যবহার করে আওয়ামী লীগ প্রকারান্তরে তাদের রাজনৈতিক দেওলিয়াত্বকেই স্বীকার করে নিয়েছে। ইতিহাস সাক্ষ্য দেয়, আদালতের আদেশ দিয়ে গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে কখনো স্তব্ধ করা যায়না।
বিএনপির মুখপাত্র বলেন, ‘চুড়ান্ত দলীয়করণ ও বিচারক অভিশংসন আইন বিচারিক নৈরাজ্য সৃষ্টির মূল কারণ। ফলে রাষ্ট্রীয় কাঠামোর ভারসাম্যহীনতার শেষ পরিণতি ভোগ করছে জাতি।
সার্বভৌম সংসদ এখন ‘বিকাশ মার্কা’ এমপিদের আড্ডাখানা মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘জাতীয় সংসদ এখন জাতীয় বিষয়াদি ও আইন প্রণয়নের কেন্দ্র বিন্দু নয়; এটা এখন বিএনপি ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে বিষোদগার কেন্দ্র। সংসদে দাঁড়িয়ে রোববার প্রধানমন্ত্রী যে ভাষায় বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বিষোদগার করেছেন, তার নিন্দা জানানোর ভাষা আমাদের জানা নেই।
বেগম খালেদা জিয়ার খাবার ও পানি সরবরাহ বন্ধ করে দিয়ে সরকার মাত্রাজ্ঞানহীন, ঘৃন্য ও নিষ্ঠুর বাড়াবাড়ি করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এর পরিণাম কখনোই শুভ হবে না।
তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস, বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ড, গুম, খুন, অপহরণ, জুলূম-নির্যাতন, হামলা-মামলা ও গণগ্রেফতারের দায়ভার হুকুমদাতা হিসেবে প্রধানমন্ত্রীকেই নিতে হবে।
সালাহ উদ্দিন বলেন, ‘রাষ্ট্রশক্তির দমন-পীড়ণের প্রতিক্রিয়ায় গণশক্তির বহুমাত্রিক উত্থান হয়েছে আজ। সেই গণশক্তির সুনামীতে স্বৈরশাসকরা খড়-কুটোর মতো অচিরেই ভেসে যাবে।
মিডিয়া নিয়ন্ত্রণ করে সরকার এখন কেবল টেলিভিশনেই তার অস্তিত্ব প্রকাশ করে চলেছে মন্তব্য করে সালাহ উদ্দিন সরতারের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘টেলিভিশনের বাক্স থেকে বেরিয়ে এসে জনগণের আওয়াজ শুনুন।
পুলিশ পাহারা পরিত্যাগ করে মন্ত্রী-নেতাদের রাস্তায় এবং এলাকা সফর করতে বলুন-তাহলেই সরকারের দানবীয় চেহারা পরিলক্ষিত হবে।
সালাহ উদ্দিন অভিযোগ করেন, মাগুরা জেলার শালিখা উপজেলার বিএনপি নেতা কাজী মশিয়ার রহমানকে ওসি বিপ্লব কুমার নাথের নেতৃত্বে গুলি করে ঠান্ডা মাথায় হত্যা করা হয়েছে।
তিনি হুঁশিযারী উচ্চরণ করে বলেন, পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে এসব ঘটনায় দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মানবতা বিরোধী আদালতে বিচারের ব্যবস্থা করা হবে।
চলমান শান্তিপূর্ণ অবরোধ-হরতাল এবং গণআন্দোলন অব্যাহত থাকবে উল্লেখ করে ‘সংগ্রামী জনতার বিজয় আসন্ন বলে তিনি জানান।
 
সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close