¦
রাজধানী কযেকটি স্থানে ককটেল বিস্ফোরণ- আহত ৫

ঢাকা, ২০ ফেব্রুয়ারি: | প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৫

রাজধানীর কযেকটি স্থানে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার রাতে নীলক্ষেত মোড়, শাহবাগে গণজাগরণ মঞ্চ এলাকা, রমনা ও পুরানা পল্টনে এসব ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় দুর্বৃত্তরা। এর মধ্যে নীলক্ষেত মোড়ে দুর্বৃত্তদের ছোড়া ককটেল বিস্ফোরণে পাঁচজন পথচারী আহত হয়েছেন।
শুক্রবার রাত ৯টার দিকে নীলক্ষেত মোড়ে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। পথচারীরা আহতদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে ‍আসেন।
ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের সহকারী উপ পরিদর্শক (এএসআই) বাবুল মিয়া এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নীলক্ষেত মোড়ে রাস্তার পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় দুর্বৃত্তরা ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে রাশেদুল ইসলামের (২১) কোমরে, হাজী মো. আবুল কালামের (৪০) ডান পায়ে, মো. মুসা রহমানের (২৮) বাম পায়ে, মো. রাকিব আহমেদের (২৫) পায়ে ও মো. সুমনের (২৫) হাতে-পায়ে স্প্লিন্টার বিদ্ধ হয়েছে।
শাহবাগে গণজাগরণ মঞ্চ সংলগ্ন সড়কে পরপর তিনটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। পৃথকভাবে রমনা এলাকায় আরও একটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে। শুক্রবার রাত পৌনে ৯টার দিকে পৃথক এ দু’টি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঠিক পৌনে ৯টার দিকে শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরের সামনে গণজাগরণ মঞ্চ সংলগ্ন সড়কে পরপর তিনটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। তবে, ককটেল নিক্ষেপ করেই পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। অপরদিকে, পৌনে ৯টার কিছু সময় পর রমনার মৎস্য ভবন সংলগ্ন পেট্রোল পাম্পের সামনের সড়কে একটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা।
শাহবাগ থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) জাহাঙ্গীর বলেন, এ ঘটনা কারা ঘটিয়েছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি এবং কাউকে আটকও করা যায়নি। এছাড়া কেউ হতাহত হওয়ার খবরও পাওয়া যায়নি।
পুরানা পল্টন এলাকায় পরপর দু’টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। শুক্রবার বিকেল সোয়া ৫টার দিকে ককটেল বিস্ফোরণের এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর জড়িতদের সন্ধানে আশপাশের এলাকায় তল্লাশি চালায় পুলিশ।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পুরানা পল্টন মোড়ে হঠাৎ বিকট শব্দে পরপর দু’টি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটলে ওই এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close