¦
গ্রেফতারি পরোয়ানা দিয়ে গণআন্দোলন স্তব্ধ করা যাবে না

ঢাকা ৪ মার্চ: | প্রকাশ : ০৪ মার্চ ২০১৫

 বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া দেশ ও জাতির কল্যাণে গণমানুষের মুক্তির লক্ষ্যে যে কোনো ত্যাগ স্বীকার করতে প্রস্তুত রয়েছেন। গ্রেফতারি পরোয়ানা গণআন্দোলনকে বন্দী করতে পারে না বরং অবৈধ সরকারের দেউলিয়াত্বই প্রমাণ করে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে জোটের পক্ষে তিনি একথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রীকে হুঁশিয়ার করে তিনি বলেন, ফ্যাসিবাদী একদলীয় রাষ্ট্রব্যবস্থা কায়েমের উন্মাদনা ও ব্যর্থ প্রচেষ্টা থেকে সরে এসে গণদাবি মেনে নিয়ে দ্রুত পদত্যাগ করুন।দেশে প্রকৃত গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থা পুনঃপ্রতিষ্ঠায় সহযোগিতা করুন। অন্যথায়, ইতিহাসের ঘৃণ্য স্বৈরশাসকদের মতোই নির্মম পরিণতির ভাগ্য বরণ করতে হবে।
বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘স্থিতিশীলতা, শান্তি, সমৃদ্ধি ও উন্নত গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার জাতীয় আকাঙ্ক্ষা পূরণের লক্ষ্যেই চলমান গণআন্দোলন যৌক্তিক পরিণতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। তৃণমূলের অংশগ্রহণে জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত আন্দোলনকে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে স্তব্ধ করার উদ্ভট পরিকল্পনা শাসকশ্রেণীর চিন্তার দৈন্যতা ছাড়া আর কিছুই নয়।
বিবৃতিতে সালাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, দেশের সকল বিরোধী দলের নেতাকর্মী ও গণতন্ত্রপ্রিয় সাধারণ মানুষ শাসকগোষ্ঠীর অন্ধ প্রতিহিংসা, বিদ্বেষমূলক রাজনীতি ও উগ্র ক্ষমতালিপ্সার শিকারে পরিণত হয়েছেন। দমন-নিপীড়নে জর্জরিত হচ্ছে গণমাধ্যম কর্মী, সাংবাদিক, সম্পাদক ও মালিকগণ। বিনা অজুহাতে একের পর এক সংবাদ মাধ্যম বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। সর্বশেষ অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাস্ট নিউজ বিডি ডটকম বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কারণ, তার মালিক ও সম্পাদক মুশফিকুল ফজল আনসারী জাতিসংঘ মহাসচিবের প্রেস ব্রিফিংয়ে অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশের জনগণের পক্ষে প্রশ্ন করেছেন।
সালাহ উদ্দিন আহমেদ সরকারের এ সকল ঘৃণ্য তৎপরতার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। একইসঙ্গে, অবিলম্বে বন্ধ করে দেওয়া গণমাধ্যম খুলে দেওয়া ও ‘গ্রেফতার’ সকল সম্পাদক, মালিক ও সাংবাদিকদের মুক্তি দাবি জানান।
 
সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close