¦
দশ নতুন থানা হচ্ছে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনে

প্রিণ্ট সংস্করণ, ১৭ মার্চ | প্রকাশ : ১৭ মার্চ ২০১৫

শিগগিরই গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন এলাকায় গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি) গঠন হচ্ছে। এ জন্য সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ১০টি নতুন থানা করার প্রস্তাবনাও রয়েছে।
গত বছর ২২ আগস্ট পুলিশ সদর দফতর থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাবনা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। প্রস্তাবনায় বলা হয়, গাজীপুর ও টঙ্গী পৌরসভা এলাকার ৩২৯ দশমিক ৯০ বর্গকিলোমিটার এলাকা নিয়ে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন গঠন করা হয়েছে। গাজীপুর শহর এলাকায় অসংখ্য গার্মেন্ট কারখানাসহ বহু শিল্পপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। বর্তমানে গাজীপুর শহরের জনসংখ্যা প্রায় ২০ লাখ। গাজীপুর শহরের ওপর দিয়ে দেশের উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জেলায় রাষ্ট্রীয় উচ্চপর্যায়ের ব্যক্তিরা যাতায়াতসহ বহু যানবাহন চলাচল করে থাকে। ফলে জেলা পুলিশের কার্যপরিধি বেড়েছে। জেলা পুলিশের স্বল্পসংখ্যক জনবল দিয়ে যানজট নিরসন ও ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ করা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। এ ছাড়া প্রায় প্রতিদিন অনেক ভিআইপি যাতায়াত করেন গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ওপর দিয়ে। প্রতিবছর একাধিকবার দেশী-বিদেশী ভিআইপি, ভিভিআইপির এ জেলায় আগমন ঘটে থাকে।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনে ১০টি থানা করার প্রস্তাব করা হয়েছে। বর্তমানে গাজীপুর জেলায় এসপিসহ বিভিন্ন পদমর্যাদার ৩২৬ জন পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্য রয়েছেন। গাজীপুর মেট্রোপলিটনের প্রধান ডিআইজিসহ আট হাজার ২২৬ পদের প্রস্তাব করা হয়েছে। গাড়ি চাওয়া হয়েছে এক হাজার ২১৭টি। আর এ জন্য বছরে খরচ হবে ১৮৩ কোটি ৫৯ লাখ টাকা। জিএমপির থানাগুলোর নাম হবে সালনা, জয়দেবপুর, চৌরাস্তা, কোনাবাড়ি, মীরেরবাজার, বোর্ডবাজার, মৌচাক, কাশিমপুর, টঙ্গী পূর্ব ও টঙ্গী পশ্চিম থানা। জানা গেছে, পুলিশের তরফ থেকে পাঠানো প্রস্তাবটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় হয়ে এখন আইন মন্ত্রণালয়ে ভেটিংয়ের অপেক্ষায় রয়েছে। আইন মন্ত্রণালয় থেকে ভেটিং শেষে সেটি অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। সেখান থেকে অনুমোদন হলেই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নিয়ে যাত্রা শুরু করবে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ ইউনিট। দেশে বর্তমানে ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, রাজশাহী, বরিশাল ও খুলনায় মেট্রোপলিটন পুলিশ ইউনিট রয়েছে। গাজীপুর অনুমোদন পেলে এটি সপ্তম মেট্রোপলিটন হিসেবে যাত্রা শুরু করবে।
গাজীপুর মেট্রোপলিটন হওয়ার পরও গাজীপুর জেলা পুলিশ বিদ্যমান থাকবে। মেট্রোপলিটন হলে বর্তমানে জয়দেবপুর, টঙ্গী থানা ও জয়দেবপুরের টিওপি ও মৌচাক পুলিশ ফাঁড়ির জনবল মেট্রোপলিটন পুলিশ ইউনিটের সঙ্গে সমন্বয় করা হবে।
প্রস্তাবনায় বলা হয়, গাজীপুর জেলার জয়দেবপুর, টঙ্গী, এবং কালিয়াকৈর থানার মৌচাক ও সফিপুর ইউপি এলাকা নিয়ে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ ইউনিট (জিএমপি) স্থাপনের প্রস্তাব করা হল। প্রস্তাবনায় গাজীপুর মেট্রোপলিটনের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য আট হাজার ২২৬টি পদ সৃজনের প্রস্তাব করা হয়েছে। ২৬৫টি হল ক্যাডার পদ। এর মধ্যে ডিআইজি পদবির একজন দায়িত্ব পালন করবেন কমিশনার হিসেবে। তিনজন অতিরিক্ত ডিআইজি, এসপি পদমর্যাদার ২১ জন ডিসি (ডেপুটি পুলিশ কমিশনার), এডিসি ৪৯ জন ও এএসপি ১৯১ জনের পদ সৃজনের প্রস্তাব করা হয়েছে। উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১৬ জানুয়ারি গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন গঠিত হয় এবং ওই বছর ৬ জুলাই নির্বাচনও সম্পন্ন হয়।

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close