¦
জোর করে ক্ষমতায় টিকেও থাকা যায় না

ঢাকা, ৪ এপ্রিল: | প্রকাশ : ০৪ এপ্রিল ২০১৫

গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, জনগণের রায় না নিয়ে কেউ ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতে পারবে না।  জোর করে ক্ষমতায় টিকেও থাকা যায় না। বাঙ্গালী খুন-গুমের ভয়ে ভীত হবে না। সময়মতো গর্জে উঠবেই।
মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, ঐতিহাসিক আগরতলা মামলার অভিযুক্ত এবং গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি প্রয়াত কমান্ডার (অব.) আবদুর রউফ স্মরণে আয়োজিত নাগরিক শোকসভায় সভাপতির বক্তব্যে সংবিধানের অন্যতম প্রণেতা এ কথা বলেন। গণফোরামের উদ্যোগে শনিবার রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনের মুক্তিযুদ্ধ মিলনায়তনে এই শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়।
বিশিষ্ট আইনজীবী বলেন, চলমান রাজনীতির মধ্যে রোগ ঢুকেছে। এখন রাজনীতি নয়, রাজচালাকী চলছে। ইতিহাস রাজচালাকীকে মূল্যায়ন করবে না। জনগণ ঐক্যবদ্ধভাবে অবস্থান নিলে কোন স্বৈরশাসন টিকতে পারে না। এদেশের মানুষ কখনো অন্যায়ের সাথে আপোষ করেনি। করবেও না।
তিনি আরো বলেন, সংলাপ শব্দটিকে পচানোর চেস্টা চলছে। অথচ সংলাপ ছাড়া অতীতেও সমস্যার সমাধান হয়নি। ভবিষ্যতেও সমস্যার সমাধানে সংলাপই একমাত্র পথ। গায়ের জোড়ে সমস্যার সমাধান করা যায় না।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন-কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, জেএসডি সভাপতি আসম আব্দুর রব, বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জান ভুইয়া, বিকল্পধারা বাংলাদেশের মহাসচিব মেজর (অব.) আব্দুল মান্নান, ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, মফিজুল ইসলাম খান কামাল, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, প্রয়াত আবদুর রউফের মেয়ে ডা. ফওজিয়া মোসলেম।
বক্তারা আবদুর বলেন, রউফ জীবনকে ইতিবাচক হিসেবে দেখতেন। তিনি সব সময় ভাল পথ খোজাঁর পক্ষে কাজ করতেন। মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক। আগরতলা মামলার বিরুদ্ধে গিয়ে তিনি দেশ স্বাধীনের জন্য কাজ করেছেন। তারা আরও বলেন, এখন নির্বাচনে রাজনীতিবিদ খোঁজা হয় না। পেশিশক্তি এবং যার টাকার শক্তি আছে তাকেই নমিনেশন দেয়া হয়। যার যত বেশি টাকা আছে সেই তত বেশি যোগ্য হয়ে উঠছে।

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর