¦
কালবৈশাখী ঝড়ে বিভিন্ন জেলায় নিহত ১৩

অনলাইন ডেস্ক, ৪ এপ্রিল: | প্রকাশ : ০৪ এপ্রিল ২০১৫

কালবৈশাখী ঝড়ে রাজধানীসহ বগুড়া, রাজশাহী, পাবনা ও নওগাঁয় দেয়াল ধসে, মাটি চাপা পড়ে অন্তত ১১ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অর্ধ শতাধিক। শনিবার সন্ধ্যার এই ঝড়ে রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলায় বহু গাছপালা উপড়ে পড়েছে। গাছের ডাল ভেঙে বিদ্যুতের তার ছিড়ে যাওয়ায় বগুড়া ও নওগাঁসহ কয়েকটি জেলার অনেক এলাকা বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। উত্তরাঞ্চলে বোরো ধান ও আমের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।
রাজধানীতে দুইজন, বগুড়ায় তিনজন, রাজশাহীতে চারজন, পাবনায় একজন ও নওগাঁয় একজন নিহত হন বলে পুলিশ জানিয়েছে। এছাড়া চাপাইনবাবগঞ্জের পত্নীতলায় একজন, সিরাজগঞ্জে একজন মারা গেছেন বলে জানা গেছে।
রাজধানীর সদরঘাটে বৃষ্টির সময় লঞ্চের সঙ্গে এক নৌকার ধাক্কা লাগলে হানিফ শেখ (৫০) নামের এক মাঝির মৃত্যু হয়। একই সময়ে গুলিস্তানে আহাদ পুলিশ বক্সের সামনে ঝড়ের কবলে পড়ে নিয়ন্ত্রণ হারানো একটি বাসের চাপায় জাহাঙ্গীর আলম (৩৫) নামের এক ব্যক্তি মারা গেছেন। এদিকে রাজধানীর মৎস্য ভবন এলাকায় ঝড়ে বিলবোর্ড পড়ে বায়েজিদ আলম (৫০) ও তারা মিয়া (৪৫) নামের দু’জন রিকশা চালক আহতবস্থায় ঢামেকে চিকিৎসাধীন। এদিকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়সহ রাজধানীর কয়েকটি এলাকা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।
বগুড়া: সদর উপজেলায় দুজন এবং শাহজাহানপুর উপজেলায় একজন মারা যান। নিহতরা হলেন- শহরের বউ বাজার এলাকার আব্দুল ওয়াহেদের স্ত্রী আজিরন বিবি (৩৮), মিলা (৬ মাস) এবং শাহজাহানপুর উপজেলার আমরুল ইউনিয়নের লুৎফর রহমান (২৮)।
বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আরিফুর রহমান জানান, বউ বাজার এলাকায় দেয়াল ধসে আজিরন ও মিলা এবং শাহজাহানপুর উপজেলার আমরুল ইউনিয়নের লুৎফর রহমান মারা যান। এছাড়া গাছের ডালপালা ভেঙে ও দেয়াল ধসে অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন। আহতদের বগুড়ার বিভিন্ন ক্লিনিক ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বগুড়া এখনো বিদ্যু বিচ্ছিন্ন রয়েছে।
রাজশাহী: জেলার বাঘা উপজেলায় দুজন, পবা উপজেলায় একজন ও গোদাগাড়ি উপজেলাতে একজন নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- জাহানারা বেগম (৬০), ইমাজুদ্দিন (৪৭), হাকিম (৩২) ও মনোয়ারা বেওয়া (৬৫)।
বাঘার ওসি আমিনুর রহমান বলেন, ঝড়ে মাটির ঘরের দেয়ালচাপা পড়ে জাহানারা বেগম এবং পদ্মার পাড়ে মাটিচাপা পড়ে ইমাজুদ্দিন মারা গেছেন।
ঘরের টিনের চাল চাপা পড়ে মনোয়ারা বেগম মারা যান বলে জানিয়েছেন গোদাগাড়ি থানার ওসি এস এম আবু ফরহাদ।
পবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কায়সারুল ইসলাম জানান, ঝড়ের সময় বজ্রপাতে বড়গাছি ইউনিয়নের সুবিপাড়া গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে হাকিম মারা যান।
নওগাঁ: জেলার মান্দা উপজেলায় মাটির ঘরের দেয়ালচাপা পড়ে শাহনাজ পারভীন (৩৫) নামে এক নারী নিহত হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছে অর্ধশতাধিক। আহতদের মধ্যে ১১ জনকে মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মান্দা থানার ওসি ওসি মোজাফ্ফর হোসেন।
নিহত শাহনাজ পারভীন (৩৫) মান্দা মহানগর গ্রামের বজলুর রহমানের স্ত্রী।
পাবনা: জেলা শহরের চাঁদমারী এলাকায় এক চায়ের দোকানি গাছচাপা পড়ে মারা যান। সদর থানার এসআই তরিকুল ইসলাম বলেন, জামুদ্দিন বখশ নামে ওই ব্যক্তি নিজের দোকানে ছিলেন। ঝড়ে গাছচাপা পড়ে তিনি নিহত হন।

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর