¦
বাংলাদেশ-ভারত পানির সমবণ্টনে ঐকমত্যে পৌঁছার অপেক্ষায়

ঢাকা, ৯ এপ্রিল: | প্রকাশ : ০৯ এপ্রিল ২০১৫

বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার পঙ্কজ শরণ বলেছেন, বাংলাদেশ ও ভারত পানির সমবণ্টনে একটি ঐকমত্যে পৌঁছার অপেক্ষায় রয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরের সময় এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ডিপ্লোমেটিক করেসপন্ডেন্ট এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ডিকাব) আয়োজিত এক আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন।
আলোচনায় সভাপতিত্ব করেন ডিকাব’র সভাপতি মাসুদ করিম। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বশির আহমেদ।
পঙ্কজ শরণ বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশ সফরে আগ্রহী। এ সফরের জন্য একটি পারস্পরিক সুবিধাজনক সময়ের অপেক্ষায় রয়েছি আমরা। তিনি ভারতীয় হাইকমিশনার তিস্তা পানি বণ্টন চুক্তি, স্থল সীমান্ত চুক্তি, সীমান্তে হত্যাকা-, দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য, জনগণের সঙ্গে জনগণের যোগাযোগ এবং পারস্পরিক স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়সহ দ্বিপক্ষীয় ও আঞ্চলিক বিষয়ের ওপর আলোকপাত করেন।
তিস্তা পানি বণ্টন চুক্তির ব্যাপারে পঙ্কজ শরণ বলেন, গোটা এই অঞ্চলসহ পানি আমাদের উভয় দেশের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ। কোটি কোটি মানুষ এর ওপর নির্ভরশীল। আমাদেরকে এর ব্যবহারে একটি সুবিধাজনক উপায় খুঁজে বের করতে হবে। স্থল সীমান্ত চুক্তি (এলবিএ) প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ভারত এ চুক্তি বাস্তবায়নে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এ ব্যাপারে নয়াদিল্লী অভ্যন্তরীণভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
তিনি আরো বলেন, আমি সুস্পষ্টভাবে জানাতে চাই, ভারত এলবিএ বাস্তবায়নে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। পাশাপাশি তিস্তা পানি বণ্টন চুক্তিও ভারত বাস্তবায়ন করতে চায়। উভয় চুক্তি বাস্তবায়নে দিল্লীর কিছু আইনী ও সাংবিধানিক কাজ সম্পন্নের প্রয়োজন রয়েছে।

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close