¦
বৈশাখী বাজারে রাজনৈতিক অস্থিরতার ছাপ

ঢাকা, ১২ এপ্রিল | প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০১৫

মঙ্গলবার পহেলা বৈশাখ। বাংলা নববর্ষ ১৪২২। বাঙালি সংস্কৃতির আনন্দময় এ দিনটি উদযাপন উপলক্ষে ব্যবসায়ীদের মধ্যে ব্যাপক তৎপরতা দেখা গেলেও বিক্রি কমে যাওয়ায় মন্দা জেকে বসেছে। তবে বেচাকেনা কম হওয়ায় তারা অনেকটা হতাশ। দীর্ঘ রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে ব্যবসায়ীরা এবার যথেষ্ট প্রস্তুতি নিতে পারেননি।
গত শীতের সময়ে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েও রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে শীতের কাপড় ব্যাপকভাবে মজুদ করেও এখনও বিক্রি করতে পারেনি। ওই খাতে মোটা অংকের পুঁজি তাদের আটকে রয়েছে। সে অভিজ্ঞতা থেকে এবারের বৈশাখ উপলক্ষে তাদের প্রস্তুতিতেও ঘাটতি রয়েছে। তবে শেষ মুহূর্তে রাজনৈতিক জট কিছুটা খুলে যাওয়ায় পরিস্থিতির এখন কিছুটা উন্নতি হয়েছে।
পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে ফ্যাশন হাউস, ফুল, বই, খেলনা, মিষ্টি জাতীয় খাবারের ব্যাপক চাহিদা থাকে। এবারের বৈশাখ উপলক্ষে শপিংমল, বিপণিবিতান ও মার্কেটগুলোতেও এর প্রভাব দেখা যাচ্ছে। তবে আগের চেয়ে অনেক কম।
এ ব্যাপারে ঢাকা মহানগর দোকান মালিক সমিতির সহ-সভাপতি রেজাউল ইসলাম মন্টু যুগান্তরকে বলেন, মার্কেটের প্রধান ফটক সাজিয়ে লাইটিং করে গত বছর পহেলা বৈশাখ বরণ করেছে ব্যবসায়ীরা। এ বছর এ আয়োজন থাকছে না। কারণ রাজনৈতিক আন্দোলনের কারণে ব্যবসায়ীদের অবস্থা খুবই খারাপ। তিনি আরও বলেন, পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে কিছু লোকজন মার্কেটে আসা শুরু করেছে। তবে আগের চেয়ে কম। ফলে ব্যবসায় আগের অবস্থা নেই।
জানা গেছে, পান্তা-ইলিশের পাশাপাশি বৈশাখ উৎসবে এখন যোগ হচ্ছে নতুন পোশাক ও বাহারি সব খাবার-দাবার। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পহেলা বৈশাখ এখন শুধু সাটামাটা কোনো উৎসব নয়, দিন দিন এর ব্যাপ্তি অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বাড়ছে।
পোশাক, উপহার সামগ্রী, বিভিন্ন ধরনের মিষ্টি, দই, ফলমূল, নববষের কার্ড, নতুন মোবাইল ফোন, ফার্নিচার ও ইলিশ বাণিজ্যকে কেন্দ্র ঘিরে চাঙ্গা হয়ে উঠে বর্ষবরণের অর্থনীতি।কিন্তু এবারের দৃশ্যপট একেবারেই ভিন্ন।
বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সূত্রে দেশব্যাপী ছোট-বড় প্রায় ২৬ লাখ দোকান রয়েছে। বৈশাখ ঘিরে ইতিমধ্যে কিছুটা প্রাণচাঞ্চল্য শুরু হয়ে গেছে পোশাকের বাজারে। বুটিক ও ফ্যাশন হাউসগুলো নতুন ডিজাইনের পোশাক নিয়ে হাজির হচ্ছে। দেশের উচ্চবিত্ত শ্রেণী বৈশাখী পোশাকের জন্য বুটিক ও ফ্যাশন হাউসে ভিড় করলেও বিক্রি অন্যবারের তুলনায় কম।
রাজধানীসহ সারা দেশে প্রায় সাড়ে ৫ থেকে ৬ হাজার বুটিক ও ফ্যাশন হাউস রয়েছে।
বিক্রেতারা বলছেন, প্রতিবছরই বৈশাখী পোশাক, মিষ্টি, দই আর ইলিশের চাহিদা বাড়ছে। এক যুগ আগেও বৈশাখী পোশাকের তেমন চাহিদা ছিল না। এ প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলে শাড়ি কুটিরের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমদাদ বলেন, এ বছর পহেলা বৈশাখ সামনে রেখে নতুন পোশাক প্রস্তুত করা হয়েছে।
ভিন্ন ভিন্ন উৎসবে পোশাকের ডিজাইন ও রঙে বৈচিত্র আনা হয়েছে। বৈশাখকে কেন্দ্র করে বিশেষ করে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পগুলো বেশ জমে উঠে। কিন্তু এবারের চিত্র ভিন্ন। রাজনৈতিক অস্থিরতায় ব্যবসায়ীরা সে প্রস্তুতি নিতে পারেনি। ফলে এ খাতে ফেরেনি চাঙ্গাভাব।
 

সর্বশেষ খবর পাতার আরো খবর
৭ দিনের প্রধান শিরোনাম

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Developed by
close
close